১০ বৈশাখ  ১৪২৬  বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ধীমান রায়, কাটোয়া: প্রশাসনের নজর এড়িয়ে নাবালিকা মেয়ের বিয়ে দিয়েছিলেন বাবা-মা। কিন্তু, শেষরক্ষা হল না। অষ্টমঙ্গলার দিন বাড়ি গিয়ে বিয়ে বাতিল করে দিলেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা। শুধু তাই নয়, বাবা-মায়ের কাছ থেকে মুচলেকা লিখিয়ে নেওয়া হয়েছে, যে আঠেরো বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে শ্বশুরবাড়ি পাঠাবেন না। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের মাদপুর গ্রামে।

[ কুখ্যাত দুষ্কৃতী কর্ণ বেরার বন্দুকের ঘায়ে জখম এএসআইয়ের মৃত্যু]

বয়স মোটে পনেরো বছর। স্থানীয় একটি স্কুলে দশম শ্রেণিতে পড়ত সে। কিন্তু, মাস ছয়েক আগে পড়াশোনা ছেড়ে দেয় ওই কিশোরী। বাবা-মা দু’জনের দিনমজুর, অভাবের সংসার। পড়াশোনা ছেড়ে দেওয়ার পর মেয়ের বিয়ের ঠিক ফেলেন ওই দম্পতি। গত সপ্তাহে ভাতারের মাদপুর গ্রামের ওই কিশোরীর সঙ্গে বিয়েও হয়ে যায় মন্তেশ্বরের এক যুবকের। বুধবার ছিল অষ্টমঙ্গলা। মেয়ে-জামাইকে নিয়ে যখন পরিবারের সকলে আনন্দে মশগুল, তখনই পুলিশ নিয়ে বাড়িতে হাজির হন প্রশাসন ও চাইল্ড লাইনের প্রতিনিধিরা। পূর্ব বর্ধমান জেলার চাইল্ড লাইনের কো-অর্ডিনেটর অভিজিৎ চৌবে জানিয়েছেন, ‘মেয়েটিকে চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটিতে হাজির করাতে বলা হয়েছে। ওনারা মুচলেকা দিয়েছেন, যে আঠেরো বছর না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে শ্বশুরবাড়ি পাঠাবেন না।’ বুধবার গ্রামবাসীরাই চাইল্ড লাইনে খবর পাঠিয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

[ শিলিগুড়িতে বিষমদ খেয়ে দু’জনের মৃত্যু, চোলাইয়ের ঠেকে ভাঙচুর স্থানীয়দের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং