BREAKING NEWS

৮ মাঘ  ১৪২৮  শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

এক্সিট পোলে জয়ের ইঙ্গিত মিলতেই ঝাড়গ্রামে লাড্ডু বিলি শুরু বিজেপির

Published by: Tanujit Das |    Posted: May 21, 2019 9:15 am|    Updated: May 21, 2019 9:15 am

After Exit Poll BJP started distributing sweets in Jhargram

সুনীপা চক্রবর্তী, ঝাড়গ্রাম: এ যেন গাছে না উঠতেই এক কাঁদি। বিভিন্ন বেসরকারি চ্যানেলগুলির বুথ ফেরৎ সমীক্ষা সামনে আসতেই বিজেপি শিবিরে শুরু হয়ে গিয়েছে উৎসব। রবিবার রাতে বিভিন্ন সমীক্ষা যখন বলছে, কেন্দ্রে মোদি সরকার ফিরছে, এবং ঝাড়গ্রামে জিতছে বিজেপি, তখনই উল্লাসে ফেটে পড়েন জেলার বিজেপি নেতা-কর্মীরা। কোথাও ফাটল বাজি, আবার কোথাও বিতরণ হল লাড্ডু, মিষ্টি।

[ আরও পড়ুন: এক্সিট পোলে খুশির হাওয়া বঙ্গ বিজেপিতে, বুথভিত্তিক হিসেবনিকেশে ব্যস্ত নেতারা]

এদিন সোমবার বিনপুরের দহিজুড়িতে বিজেপির পক্ষ থেকে মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে। ঝাড়গ্রাম লোকসভা আসনে সম্ভাব্য বিজয়ী হিসেবে দেখানো হয়েছে বিজেপি প্রার্থী কুনার হেমব্রমকে। নির্বাচনের আগে থেকেই ঝাড়গ্রামে জেতার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী ছিল বিজেপি। রবিবারের বিভিন্ন সমীক্ষা সেই আভাস দিতেই এই উচ্ছ্বাস। বিজেপি ধরেই নিয়েছে, গত পঞ্চায়েত ভোটের সাফল্য ধরে রেখে লোকসভারও দখল নেবে তারা। বিজেপি নেতৃত্বের একটাই বক্তব্য, ২৩ মে কত ব্যবধানে তারা জিতছে সেটাই এখন দেখার। যদিও এই সমীক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে নারাজ শাসকদল। তৃণমূল নেতৃত্বের তাদের সাফ কথা, জঙ্গলমহলের মানুষ তৃণমূলের উপরেই ভরসা রেখেছে। তারা বড় ব্যবধানেই জিতবে। এবার ঝাড়গ্রাম লোকসভা আসনে মোট প্রার্থী দাঁড়িয়েছে ন’জন। সিপিএম, কংগ্রেসের মতো দলগুলি থাকলেও এবার ঝাড়গ্রাম আসনে জোর টক্কর ছিল শাসক দল তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে। বিজেপির পক্ষ থেকে শেষ মুহূর্ত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে প্রচারে এনে বড় চমক দিয়েছে। আর প্রচারের ক্ষেত্রে বিজেপি যুব মোর্চা সোশ্যা মিডিয়াতে সর্বতোভাবে ব্যবহার করেছে।

[ আরও পড়ুন: যন্ত্র বিকলে বর্ধমান মেডিক্যালে ব্যাহত পরিষেবা, বিপাকে ক্যানসার রোগীরা ]

রবিবার রাতে গোপীবল্লভপুর-সহ জেলার বিভিন্ন ব্লকে বাজি ফাটিয়েছে বিজেপির লোকজন। এদিন বিনপুর-১ ব্লকের দহিজুড়িতে যুবমোর্চার পক্ষ থেকে মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে। সব মিলিয়ে জেলা নেতা থেকে শুরু করে বিজেপির কর্মী, সমর্থকরা জয় নিশ্চিত ধরে নিয়ে উৎসবের মেজাজে আছে। ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির সভাপতি সুখময় শতপথি বলেন, “এটা হওয়ার ছিল। বিভিন্ন সংস্থা তাদের নিজেদের মতো করে সমীক্ষা করেছে। জয় নিশ্চিত আছেই। এখন অপেক্ষা দেখার কতটা ব্যবধানে আমরা জিতছি।” অন্যদিকে ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূল কোর কমিটির চেয়ারম্যান, বিধায়ক সুকুমার হাঁসদা বলেন, “এক্সিট পোল কী দেখাচ্ছে তা নিয়ে আমাদের মাথাব্যথা নেই। আমরাই জিতব এটা নিশ্চিত।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে