BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সব ভর্তি অনলাইনেই: পার্থ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 7, 2016 9:14 am|    Updated: June 7, 2016 9:14 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: ছাত্র সংসদ নির্বাচিত সংস্থা, তাই চাইলে কলেজের ভিতরে পড়ুয়া ভর্তিতে সহায়তা করতেই পারে৷ কিন্তু ক্যাম্পাসের বাইরে কোনও ‘হেল্প ডেস্ক’ খোলা যাবে না৷ আর সমস্ত ভর্তি মেধার ভিত্তিতে অনলাইনেই করতে হবে৷ সোমবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী ড. পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ তিনি এ দিন বলেন, “কলেজে ছাত্রভর্তির ক্ষেত্রে মেধাতালিকার উপরেই সবচেয়ে জোর দেওয়া হচ্ছে৷ সমস্ত ভর্তি হবে অনলাইনেই৷ পড়ুয়াভর্তিতে সাহায্য করতে ছাত্র সংসদ যদি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় তবে উচ্চশিক্ষা দফতর তাতে হস্তক্ষেপ করবে না৷ এক্ষেত্রে কোনও আইনি বাধাও নেই৷ তবে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্র সংগঠনের নামে ‘হেল্প ডেস্ক’ খোলার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে৷” পাশাপাশি শিক্ষামন্ত্রী জানান, ছাত্র-ছাত্রীদের সুবিধার জন্য কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকারি ‘হেল্প ডেস্ক’ চালুর জন্য বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ রীতিমতো বিজ্ঞপ্তি দিয়ে টোল ফ্রি নম্বর চালু করে ছাত্রছাত্রী এবং অভিভাবকদের সাহায্য করছে রাজ্য সরকার৷ কিন্তু বহিরাগতদের কোনওমতেই কলেজের বাইরে বা ভিতরে ভর্তি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে অনুমতি দেওয়া যাবে না৷ ছাত্র সংগঠনের নামে হেল্প ডেস্ক খুললে যে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে তারও এদিন ইঙ্গিত দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী৷
দিন কয়েক আগে কলেজে ছাত্র ভর্তি নিয়ে দলীয় স্তরে কড়া নির্দেশিকা জারি করেছিলেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি জয়া দত্ত৷ দলের ছাত্র সংগঠনের সমস্ত জেলা সভাপতি এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিট প্রধানকে ডেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, মেধার ভিত্তিতেই সমস্ত কলেজে অনলাইনে ছাত্র ভর্তি হবে৷ কোনও ক্ষেত্রেই কলেজ গেটে সংগঠনের তরফে ‘হেল্প ডেস্ক’ খুলে কাউকে সহায়তার প্রয়োজন নেই৷ ভর্তির ব্যাপারে ছাত্র সংসদের কোটার দোহাই দিয়েও এবছর কোনওরকম নাক গলানো চলবে না৷ এ বিষয়ে জারি করা হয় নির্দেশিকাও৷ যা উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে পাঠানো হয়৷ চালু করা হয় টোল ফ্রি নম্বরও৷ এ দিন সরকারি বিজ্ঞপ্তির কথা উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী জানান, “কলেজে ভর্তি হতে আসা ছাত্রছাত্রী এবং অভিভাবকদের আমরা বলছি আর্থিক কোনও বিষয় নিয়ে কারও প্রলোভনে পা দেবেন না৷ ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় সরাসরি অনলাইনে হবে এবং লেনদেনও ব্যাঙ্কের মাধ্যমে চলবে৷” শিক্ষামন্ত্রীর স্পষ্ট বার্তা, ক্যাম্পাসে ঢুকতে কেউ বাধা দিলে বা বলপ্রয়োগ করলে সঙ্গে সঙ্গে কলেজের প্রধান অথবা রাজ্য সরকারের টোল ফ্রি হেল্পলাইনে ফোন করতে হবে৷ ফোন পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সরকারের উচ্চশিক্ষা দফতরই যে কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করছে তাও এদিন স্পষ্ট করে দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷
শিক্ষামন্ত্রী এদিন গত চার বছরের সমীক্ষা অনুযায়ী ছাত্রভর্তির হারবৃদ্ধির পরিসংখ্যান তুলে ধরেন৷ তিনি জানান, স্কুল থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় স্তর পর্যন্ত ছাত্রভর্তির সংখ্যা ক্রমেই বেড়েছে৷ পাল্লা দিয়ে বৃ‌দ্ধি পেয়েছে আসনসংখ্যাও৷ গত চার বছরে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় চার লক্ষেরও বেশি৷ ৭ শতাংশ থেকে ছাত্রভর্তির হার বেড়ে হয়েছে ১৭.৫ শতাংশ৷ সেই অনুপাতে দেশে গত চার বছরে ছাত্রভর্তির সংখ্যা বেড়েছে ২১ শতাংশ৷ রাজ্যের ক্ষেত্রেও সেই লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছে৷ শিক্ষা কমিশনের প্রস্তাব অনুযায়ী পরিকল্পনা করতে হবে৷ ছাত্রভর্তির ক্ষেত্রে মেধাকে গুরুত্ব দিয়ে রাজ্য সরকার শিক্ষাক্ষেত্রে যে ১০০ শতাংশ শৃঙ্খলা চাইছে তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement