৬ ভাদ্র  ১৪২৬  শনিবার ২৪ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৬ ভাদ্র  ১৪২৬  শনিবার ২৪ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

দেবব্রত মণ্ডল, বারুইপুর: প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় বারুইপুরের জনসভা বাতিল হয়েছে অমিত শাহের৷ আর এই ইস্যুতেই সোমবার ক্যানিংয়ের জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র ভাষায় আক্রমণ শানালেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি৷ রাজ্য প্রশাসনকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে তিনি জানালেন, ‘‘২৩ তারিখ বাংলা থেকে মমতা সরকারের বিদায় ঘটবে৷ আগামিকাল আমি কলকাতায় যাচ্ছি, ক্ষমতা থাকলে গ্রেপ্তার করুন৷’’

[ আরও পড়ুন: মদ্যপানের আসরে কানে গুলি, নদিয়ায় সিভিক ভলান্টিয়ারের খুনে চাঞ্চল্য ]

সোমবার রাজ্যে তিনটি জনসভা করার কথা ছিল অমিত শাহের৷ ক্যানিং ও রাজারহাটের জনসভা নিয়ে কোনও সমস্যা না হলেও, বারুইপুরের সভাটি ঘিরে তীব্র সংকট তৈরি হয়৷ সূত্রের খবর, প্রথমে সভা করার অনুমতি দিলেও, রবিবার রাতে স্থানীয় থানায় গিয়ে সভার অনুমতি প্রত্যাহার করেন ওই জমির মালিক৷ এরপর সভা করা যাবে না বলে, বিজেপি নেতৃত্বকে জানিয়ে দেওয়া হয় প্রশাসনের তরফে৷ সভার প্রস্তুতি যখন প্রায় শেষ লগ্নে, তখন এমন ধরনের ঘটনায় স্বভাবতই চাপে পড়ে যায় গেরুয়া শিবির৷ এর পিছনে তৃণমূলের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করে বিজেপি নেতৃত্ব৷ প্রতিহিংসার রাজনীতির অভিযোগ তুলে শাসকদলকে আক্রমণ করেন বিজেপির শীর্ষ নেতারাও৷ এই প্রসঙ্গেই সোমবার ক্যানিংয়ের জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন অমিত শাহ৷ তিনি বলেন, ‘‘বারুইপুরের সভা বাতিল করেছেন দিদি৷ ভাইপোর কেন্দ্রে বিরোধীদের প্রচারে বাধা দেওয়া হচ্ছে৷ কিন্তু দিদি সভার অনুমতি দিক বা না দিক, মানুষ মমতাকে হারানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছে৷’’ ডায়মন্ড হারবার কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অভিযোগ করেন, ‘‘বাংলায় সিন্ডিকেটরাজ চলছে৷ সব কিছুতেই ভাইপো ট্যাক্স দিতে হচ্ছে৷’’

[ আরও পড়ুন: ব্যাঘ্রপ্রেমীদের জন্য সুখবর, সুন্দরবনে নতুন করে সন্ধান মিলল ৭টি বাঘের! ]

মুখ্যমন্ত্রী কনভয়কে লক্ষ্য করে কয়েকজন যুবকের ‘জয় শ্রীরাম’ বলা নিয়ে সম্প্রতি যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল, এদিন সেই প্রসঙ্গও টেনে আনেন অমিত শাহ৷ অভিযোগ করেন, ‘‘মমতা দিদি বলছেন, বাংলায় জয় শ্রীরাম বলা যাবে না৷ কিন্তু আমি ক্যানিংয়ের এই সভা থেকে জয় শ্রীরাম বলছি৷’’ ‘‘গত আট বছরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শাসনকালকে সোনার বাংলা, কাঙাল বাংলায় পরিণত হয়েছে৷ এবং বাংলার বিকাশে মমতার গ্রহণ লেগেছে’’ এদিন মমতা সরকারের এমন চাঁচাছোলা সমালোচনা করতেই শোনা যায় তাঁকে৷ বক্তৃতা প্রসঙ্গে অমিত শাহ টেনে আনেন দাড়িভিট কাণ্ডের বিষয়টি৷ এবং আবারও হুঁশিয়ারি দিয়ে জানান, ক্ষমতায় এলে আনা হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও বাংলাতে লাগু হবে এনআরসি৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং