৫ মাঘ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৯ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

দীর্ঘতম প্রেমপত্র লিখে গিনেস বুকে নাম তুলতে চান বাংলার ‘মিস্টার ভ্যালেন্টাইন’

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: February 14, 2018 9:34 am|    Updated: February 14, 2018 9:42 am

An Images

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: পারমিতাকে ভালবেসেছিল অনুপম। কিন্তু, পারমিতা কি ভালবেসেছিল অনুপমকে?  উত্তর জানা নেই। তবে সেই পরিণতি না-পাওয়া প্রেমের গল্পটাই লিখে চলেছেন অনুপম। দীর্ঘ ৮ বছর ধরে। কালে কালে তা হয়ে উঠেছে ৩২৭ ফুটের দৈর্ঘ্যের এক অন্যন্য প্রেমপত্র। বিশ্বের দীর্ঘতম প্রেমপত্রের স্বীকৃতি চেয়ে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছেন ব্যর্থ প্রেমিক।

[পার্বতীর মতো স্ত্রী চাই, দেওঘরে বৈদ্যনাথের মাথায় জল ঢেলে আরাধনায় পুরুষরা]

বাঙালির কাছে ব্যর্থ প্রেমিকের চিরকালীন আইকন দেবদাস। পার্বতীকে না পেয়ে নিজেকে তিলে তিলে শেষ করে দিয়েছিলেন তিনি। প্রেমে ব্যর্থ হয়ে সেই পথে হাঁটতে চেয়েছিলেন আসানসোলের অনুপম ঘোষালও। কিন্তু, আত্মহত্যা করলে যে ভালবাসার গল্পটা না-বলা থেকে যাবে! অতএব প্রেয়সী পারমিতাকে উদ্দেশ্য করে চিঠি লিখতে শুরু করলেন অনুপম। সেটা ২০০০ সাল। কার্যত নাওয়া-খাওয়া ভুলে শুধু লিখেই গিয়েছেন তিনি। কলমে আঁচড়ে সাদা পাতায় বাগ্ময় হয়ে উঠেছে প্রেয়সী কাছে না পাওয়ার যন্ত্রণা। গানে, কবিতায়,  কথায় সৃষ্টি হয়েছে ৩২৭ ফুট দৈর্ঘ্যের এক অনন্য প্রেমপত্র। বার্তা পৌঁছে গিয়েছে সুদূর সুইজারল্যান্ডে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের দপ্তরে। বিশ্বের দীর্ঘতম প্রেমপত্রের স্বীকৃতি চেয়ে আবেদন করেছেন অনুপম। প্রাপ্তি স্বীকারের চিঠিও এসেছে। আর এই দীর্ঘ প্রেমপত্র লেখার নেশায় কখন যে শরীরে বাসা বেঁধেছে রোগ, টেরই পাননি অনুপম। এখন কলকাতায় হাসপাতালে ভরতি তিনি। নার্ভের চিকিৎসা চলছে। আসানসোলে অনুপম ঘোষাল বলেন, ‘প্রেমের ‘না পরিণতিতে’ আত্মহত্যার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। কিন্তু পারমিতার জন্য জমে ছিল অনেক কথা। সেসবের কী হবে? তাই  আড়াই কেজির সস্তা রোল পেপারের ওপর শুরু করেছিলাম পারমিতার জন্য আমার কথামালা।‘

[বারবার গর্ভেই নষ্ট ভ্রুণ, মানসিক অবসাদে আত্মঘাতী বাঁকুড়ার দম্পতি]

তবে শুধু ভালবাসার কথাই নয়, বদলে যাওয়া আসানসোল শহরের কথাও উঠে এসেছে চিঠিতে। চিঠিতে পারমিতাকে উদ্দেশ্য করে আটটি গানও লিখেছেন অনুপম। অনেকেই তাঁকে ‘মিস্টার ভ্যালেন্টাইন’ বলেন ডাকেন। সমস্যা বলতে একটাই, সস্তার কাগজে লেখা চিঠি যে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে! তবে তাঁর চিঠি একদিন হয়ত ঠিকই পৌঁছে যাবে পারমিতার কাছে। সেই আশাতেই দিন কাটছে আসানসোলে ‘মিস্টার ভ্যালেন্টাইন’ অনুপম ঘোষালের।

[হার না মানা লড়াই, মাশরুম চাষে বিপ্লব এনেছেন মেটেলির প্রদীপ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement