BREAKING NEWS

৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

গুটখার পিক ফেলাকে কেন্দ্র করে রক্তারক্তি কাণ্ড, দেখুন ভিডিও

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 16, 2018 8:48 pm|    Updated: August 17, 2019 7:57 pm

Asansol: Two passenger clash with each other in a running bus

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: যাঁরা গুটখা খান, তাঁদের অনেকেরই যেখানে-সেখানে পিক ফেলার বদভ্যাস আছে। এই নিয়ে পথে-ঘাটে অল্পবিস্তর অশান্তিও হয়। কিন্তু, আসানসোলের নিয়ামতপুরে গুটখার পিক ফেলাকে কেন্দ্র করেই চলন্ত বাসে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লেন দুই ব্যক্তি। যাকে বলে একেবারে রক্তারক্তি কাণ্ড! শেষপর্যন্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দু’জনকেই আটক করে।

[জনপ্রতিনিধির মানবিক মুখ, অসুস্থ বৃদ্ধকে হাসপাতালে ভরতি করলেন কাউন্সিলর]

শুক্রবার সকালে কুলটি থেকে বাসে করে বাড়ি ফিরছিলেন আসানসোলের নিয়ামতপুরে বাসিন্দা গোপাল যাদব। বাসের জানলার ধারে বসেছিলেন তিনি। গোপালবাবুর ঠিক সামনের সিটে বসেছিলেন ভাস্কর দাস নামে এক যুবক। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, চলন্ত বাসে বসে গুটখা খাচ্ছিলেন ভাস্কর। আমচকাই জানালা দিয়ে পিক ফেলতে যান তিনি। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি! প্রবল হাওয়ায় উড়ে এসে গুটখার পিক লাগে পিছনের সিটে বসা গোপাল যাদবের মুখে ও গায়ে। বাসের অন্যন্য যাত্রীদের বক্তব্য, ওই যুবক যদি প্রথমে নিজের ভুল স্বীকার করে নিতেন তাহলে কোনও সমস্যাই হত না। কিন্তু, তিনি তা করেনি। উলটে গোপাল যাদবের সঙ্গে তর্ক করতে শুরু করেন ভাস্কর দাস। চলন্ত বাসে প্রথমে তর্কাতর্কি, তারপরই হাতাহাতি ছড়িয়ে পড়েন ওই দুই যাত্রী। প্রথমে গোপালকে বেধড়ক মারধর করেন ভাস্কর। বাসটি নিয়ামতপুরে পৌঁছতেই ফোন করে সঙ্গী-সাথীদের ডেকে আনেন গোপাল। বাস থেকে নামিয়ে ভাস্করকে পালটা মারধর করতে শুরু করেন গোপাল ও তাঁর সঙ্গীরা। তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে নিয়ামতপুরের নিউ রোড এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় নিয়ামতপুর থানার পুলিশ। ভাস্কর দাস ও গোপাল যাদবকে আটক করে থানা নিয়ে যাওয়া হয়।

দেখুন ভিডিও:

 

[১৯৩৩ সালে মৃত্যু, ডেথ সার্টিফিকেট ইস্যু হল ২০১৮ সালে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে