BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

পদ ছাড়ার আগেই সাংসদ তহবিলের বাকি টাকা মঞ্জুর বাবুল সুপ্রিয়ের, দিলেন ট্রোলের জবাবও

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: September 23, 2021 10:05 pm|    Updated: September 23, 2021 10:05 pm

Babul Supriyo clears his MPLAD money | Sangbad Pratidin

শেখর চন্দ্র, আসানসোল: সাংসদ পদ ছাড়ার আগেই চলতি আর্থিক বছরের বাকি পড়ে থাকা সাংসদ তহবিলের ২ কোটি ২০ লক্ষ টাকাও মঞ্জুর করলেন বাবুল সুপ্রিয় (Babool Supriyo)। আসানসোলের (Asansol) উন্নয়নের জন্য প্রতি বছর সাংসদ তহবিলে মোট ৫ কোটি টাকা করে বরাদ্দ থাকে। তার মধ্যে তিনি আগেই ৩ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকা মঞ্জুর করেছিলেন। বাকি পড়ে থাকা ওই দু’কোটিও মঞ্জুর করে দিলেন আসানসোলের সাংসদ।

বাবুল সুপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে জানিয়েছেন, পুরোটাই আসানসোলের বিস্তীর্ণ এলাকার উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ। তিনি আশা প্রকাশ করেছেন, জেলাপ্রশাসন এই কাজগুলি আসানসোল পুরনিগম ও আসানসোল দুর্গাপুর উন্নয়ন পর্ষদের মাধ্যমে দ্রুত সম্পন্ন করাবেন। তিনি বলেন, জেলাশাসকের সঙ্গে এই নিয়ে তিনি কথা বলে নেবেন। জানা গিয়েছে, আসানসোল উত্তর, কুলটি, জামুড়িয়া, পাণ্ডবেশ্বর ও সালানপুরে ব্লকের জন্য হাইমাস্ট লাইট, শ্মশান ও সমাধি ক্ষেত্রের উন্নয়ন, পাকা রাস্তা ও নর্দমার জন্য তিনি অর্থ বরাদ্দ করেছেন। মোট ১৫টি উন্নয়নের কাজ হবে ওই দু’কোটি টাকায়। এর মধ্যে সব থেকে বেশি বরাদ্দ হয়েছে কুলটি বিধানসভার জন্য। এই কাজগুলি চলতি বছরের মার্চের মধ্যে শেষ করে ফেলতে হবে।

[আরও পড়ুন: কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ মইনুল হকের, জঙ্গিপুরে অভিষেকের উপস্থিতিতে দলবদল]

সূত্রের খবর, আগামী ২৬ তারিখ তিনি ইস্তফা দেবেন। তারপর তিনি সাংসদ থাকবেন না। উন্নয়নের কাজ যেন থেমে না যায় তার জন্য ইস্তাফা দেওয়ার আগেই এই অর্থবরাদ্দ করে দিলেন। বাবুল বলেন, “আমার কাছে আসানসোল খুব কাছের ও ভালবাসার জায়গা। আগামীদিনেও যেখানেই থাকবেন আসানসোলের জন্য যতটা সম্ভব তার থেকেও বেশিই করবেন।” উল্লেখ্য, আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় বিজেপি ছেড়েছিলেন আগেই। তৃণমূল যোগের পর এবার সাংসদ পদও ছাড়বেন। তার আগে উন্নয়নের খাতে শেষ অর্থ বরাদ্দটুকুও করলেন বাবুল।

এই পোস্টের পর অবশ্য তাঁকে নানারকমভাবে ট্রোলের মুখে পড়তে হয়। ক্রমাগত বেইমান আখ্যা দেওয়া হয়। সেই সমস্ত ট্রোলের জবার বাবুল সুপ্রিয় কমেন্ট বক্সে সরাসরি এদিন দেন। তিনি বৃহস্পতিবার ফেসবুক পোস্টে লেখেন, “২০১৪ সালে কঠোর পরিশ্রম করে সাংসদ হয়েছেন। পরের বারে তিনগুন বেশি ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন। তারপরেও দল প্রমোশন দেয়নি। উলটে নির্মমভাবে মন ভেঙে দিয়েছে।” সমালোচকদের তিনি প্রশ্ন করেন, “কোথায় ছিলেন যখন একের পর এক কয়লা মাফিয়াদের দলে নেওয়া হচ্ছিল? কেন প্রতিবাদ করেননি? তিনি যে দুর্নীতিমুক্ত তা বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যই বলেছেন। তাই নির্ভয়ে জবাব দিলাম। মানুষের টাকার হিসেব মানুষকেই দিলাম।” ফেসবুকের মাধ্যমে বলে বৃহস্পতিবার জানান বাবুল।

[আরও পড়ুন: সিপিএমের ছাত্র সংগঠনের সদস্য কমল আডা়ই লক্ষ! আলিমুদ্দিনকেই দায়ী করল ছাত্র নেতৃত্ব]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে