৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

পুজোয় ওভারগেট নির্মাণে বিধিনিষেধ ঘিরে বহরমপুরে তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: September 25, 2018 4:10 pm|    Updated: September 25, 2018 4:10 pm

Baharampur: TMC leaders openly fight over making a gate for Durga Puja

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেবীপক্ষের আগেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জড়াল তৃণমূল৷ পুজোয় রাস্তার উপর ওভারগেট নির্মাণকে কেন্দ্র করে একে অপরের বিরুদ্ধের কাদা ছোঁড়াছুড়িতে মাতলেন তৃণমূলের দুই শীর্ষ নেতা৷ মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল সভাপতি সুব্রত সাহা ও বহরমপুর পুরসভার চেয়ারম্যান নীলরতন আঢ্যের বাকযুদ্ধের জেরে দলের অন্দরে শুরু হয়েছে চাপানউতোর৷ পুজোর মুখে দুই নেতার উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় নিয়ে চূড়ান্ত অস্বস্তিতে শাসক তৃণমূল৷

[কাকদ্বীপে ১২০০ টন ইলিশের ‘হরির লুট’! ব্যাপারটা কী ?]

ঘটনার সূত্রপাত পুজো কমিটির বৈঠক নিয়ে৷ সূত্রের খবর, সম্প্রতি বহরমপুর পুরসভা ও স্থানীয় প্রশাসনের তরফে পুজো কমিটিকে নিয়ে একটি বৈঠক ডাকা হয়৷ ওই বৈঠকে পুজো কমিটিগুলির উপর বেশ কিছু বিধিনিষেধ চাপানো হয়৷ দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে, ওভারগেট নির্মাণ করা যাবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়৷ রাস্তাজুড়ে ওভারগেটে আলোক ও বিজ্ঞাপনের তোরণ নির্মাণ করা যাবে না বলেও প্রশাসন ও পুরসভার তরফে পুজো কমিটিগুলিকে জানানো হয়৷

[ইসলামপুর কাণ্ডের জের, এলাকায় বন্ধ পোলিও টিকাকরণ কর্মসূচি]

পুরসভার এই নির্দেশ জারি হতেই খেপে যান জেলা তৃণমূল সভাপতি৷ প্রকাশ্যে পুরসভা ও প্রশাসনের বিধিনিষেধ পুজো কমিটিগুলিকে মানতে নিষেধ করেন তিনি৷ অভিযোগ, এই মর্মে নিজের প্রভাব খাটিয়ে ১৬টি পুজো কমিটির সঙ্গে বৈঠকও করেন তিনি৷ বৈঠকে রাস্তাজুড়ে ওভারগেট হবেই বলেই পুজো কমিটিগুলিকে অভয় দেন সভাপতি সুব্রত সাহা৷ স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে তিনি বহরমপুর পুরসভার চেয়ারম্যান নীলরতন আঢ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেন৷ বলেন, ‘‘দুর্গাপুজো বাঙালির প্রাণের উৎসব৷ এই উৎসব ঘিরে কোনও বিধিনিষেধ মানা হবে না৷ কেউ যদি নিষেধাজ্ঞা চাপানোর চেষ্টা করে, তা মেনে নেওয়া হবে না৷’’ এদিন তিনি পুজো কমিটিগুলিকে ওভারগেট নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় অনুমতি নেওয়ার জন্য মহকুমা শাসকের অফিসে যোগাযোগ করতে নির্দেশ দেন৷ পুজো কমিটিগুলিকে অভয় দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম নিয়ে বলেন, ‘‘মুখ্যমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, বহরমপুরের ঐতিহ্য মনে পুজোর যাতে কোনও সমস্যা না হয়, তা দেখতে৷ মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মেনে এখানে পুজো হবেই৷’’

[কনস্টেবলের নিয়োগ পরীক্ষায় ফের হাইটেক টুকলি, গ্রেপ্তার ২৫ জন]

পুজোয় পথনিরাপত্তার স্বার্থে নেওয়া বিধিনিষেধ প্রসঙ্গে বহরমপুর পুরসভার চেয়ারম্যান নীলরতন আঢ্য বলেন, ‘‘পুজোয় দর্শনার্থীদের নিরাপত্তা ও যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে রাস্তাজুড়ে ওভারগেট না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ পুজো কমিটিগুলিকে সহযোগিতার জন্য আরজিও জানানো হয়৷ পুরসভা ও প্রশাসনের এই নির্দেশ পালন করা হবে বলেও জানায় পুজো কমিটিগুলি৷ কিন্তু, এই নির্দেশ দলের শীর্ষ নেতারা মেনে নিতে পারছেন না কেন জানি না৷ একজন দায়িত্বশীল নেতা হয়ে তিনি কীভাবে প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করতে বলেন? এটা কী হচ্ছে, বুঝতে পারছি না!’’

[বিপজ্জনক সেতুতে ভারী যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা, আতঙ্ক বালুরঘাটে]

যদিও, রাস্তাজুড়ে ওভারগেট নির্মাণ ও প্যান্ডেল নির্মাণ বেআইনি বলে আগেই জানিয়েছে কলকাতা হাই কোর্ট৷ এছাড়াও, প্রায় প্রতিবারই বৃষ্টি অথবা দমকা হওয়ায় জেলায় জেলায় ওভারগেট ভেঙে বিপত্তি নতুন কিছু নয়৷ তোরণ ভেঙে হতাহতের আশঙ্কাও থেকে যায়, তা ভালই জানে প্রশাসন৷ ফলে, এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে পুরসভার এই সিদ্ধান্তকে স্বাগতও জানিয়েছেন পুর-এলাকার বাসিন্দারা৷ কিন্তু, নির্দেশ নিয়ে দলের অন্দরে জলঘোলা হওয়ার ঘটনায় বেশ বিরক্ত শাসকশিবির৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে