BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘টিকিয়াপাড়ার অশান্তির পিছনে বিজেপি নেতার ভাই’, ভিডিও প্রকাশ করে দাবি হাওড়া সিটি পুলিশের

Published by: Sayani Sen |    Posted: May 4, 2020 9:59 pm|    Updated: May 4, 2020 10:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টিকিয়াপাড়া পুলিশ নিগ্রহের ঘটনায় নয়া মোড়। হাওড়া সিটি পুলিশের তরফে টুইট করে সোমবার দাবি করা হয়, এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত মোট ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভাইরাল ছবি এবং ভিডিওয় যে ব্যক্তিকে লাথি মারতে দেখা গিয়েছে, সেই মূল অভিযুক্ত। তার প্ররোচনায় সেদিন এলাকায় অশান্তি হয়েছে। তাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সে হাওড়া জেলা বিজেপির মাইনোরিটি সেলের নেতার ভাই বলেও দাবি পুলিশের। এই টুইট নিয়ে চলছে জোর আলোচনা। 

গত ২৮ এপ্রিল বিকেলে টিকিয়াপাড়ার বেলিলিয়াস রোডে পুলিশের টহলদারি চলছিল। তখনও পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল। কিন্তু আচমকা প্রচুর মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে পড়েন। লকডাউন না মেনে রাস্তায় ভিড় করেন। তখনই লকডাউন কার্যকর করতে ভিড় সরাতে গেলে আক্রান্ত হয় পুলিশ। পুলিশের ২টি গাড়ি ভাঙচুর করা। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ও বোতল ছোঁড়া হয়। দু’জন পুলিশকর্মী গুরুতর আহত হন। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশাল পুলিশ ও র‌্যাফ পৌঁছয় ঘটনাস্থলে। পরে রাতেই রাজ্য পুলিশের তরফে টুইট করে জানানো হয় যে অভিযুক্তরা শাস্তি পাবেই। রাত থেকেই এলাকায় শুরু হয় ধরপাকড়।

[আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত কলকাতা পুলিশের আরও এক আধিকারিক, বাড়ছে আতঙ্ক]

শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত মোট ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারপর গভীর রাতে টিকিয়াপাড়া থেকে আরও একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। টিকিয়াপাড়ায় পুলিশের উপর নিগ্রহের ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। জানা গিয়েছে, হামলার ওই ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল তাকে। এমনকী পুলিশকে হামলাকারীর লাথি মারার যে ছবি ভাইরাল হয়েছিল, তাতে নাকি দেখা গিয়েছিল তাকেই। ওই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করলেও মানবিকতার খাতিরে তার পরিবারের হাতে খাদ্যসামগ্রীও পৌঁছে দেয় পুলিশ।

এই ঘটনাই সোমবার নিল নয়া মোড়। হাওড়া সিটি পুলিশের তরফে এদিন একটি ভিডিও টুইট করা হয়। ওই ভিডিওতে দেখা যায়, একজন ব্যক্তি ঘটনার আগে স্থানীয় মানুষকে পুলিশের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য উস্কানিমূলক মন্তব্য করছে। সেই ভিডিওর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার সন্ধেয় শেখ সিয়াজউদ্দিন নামে ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। হাওড়া সিটি পুলিশের দাবি, ধৃত ওই ব্যক্তি হাওড়া জেলা বিজেপির মাইনোরিটি সেলের নেতার ভাই।  

বিজেপি হাওড়া সদরের সভাপতি সুরজিৎ সাহার বলেন, “শেখ সিয়াজউদ্দিন বলে বিজেপির কোনও মাইনোরিটি সেলের নেতা নেই। এটা তৃণমূলের ষড়যন্ত্র।” অন্যদিকে, তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায়ের বক্তব্য, “প্রথম থেকেই বলেছিলাম এই ঘটনার পিছনে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র কাজ রয়েছে। উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সব করা হয়েছে। পুলিশের তদন্তেও তাই উঠে আসছে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement