১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘দু’জন একসঙ্গে পথ চলার শপথ নিয়েছি’, BJP বিধায়ক চন্দনার সঙ্গে সংসার করতেই অনড় গাড়িচালক

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 23, 2021 10:03 am|    Updated: August 23, 2021 11:20 am

BJP MLA Chandana Bauri's marriage controversy: first wife of the man is desparate to bring him back | Sangbad Pratidin

টিটুন মল্লিক, বাঁকুড়া: গত সপ্তাহেই স্বামী, সন্তানকে ছেড়ে গাড়িচালককে বিয়ে করে আলোচনায় উঠে এসেছিলেন শালতোড়ার বিজেপি (BJP) বিধায়ক চন্দনা বাউড়ি (Chandana Bauri)। বিষয়টি অস্বীকার করলেও সত্যি চাপা থাকেনি। এ নিয়ে সব মহলেই জোর চর্চা চলেছে। তবে বিয়ের পরই অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন চন্দনার দ্বিতীয় স্বামী তথা গাড়িচালক কৃষ্ণ কুণ্ডু। আর এই পরিস্থিতিতে স্বামীর শুশ্রূষায় টানা হাসপাতালেই রয়েছেন তাঁর প্রথম স্ত্রী রুম্পা। বহুবার স্বামীকে তিনি বোঝানোর চেষ্টা করছেন, চন্দনার সঙ্গে ঘর না বেঁধে নিজের সংসারে মন দিতে। কিন্তু বিধায়ককে বিয়ের পর তাঁর সঙ্গেই থাকতে চান কৃষ্ণ। এ নিয়ে ফের নতুন টানাপোড়েন শুরু হয়েছে।

Chandana Bauri
অসুস্থ কৃষ্ণর পাশে প্রথম পক্ষের স্ত্রী রুম্পা

রাজ্যের সবচেয়ে দরিদ্র বিধায়ক চন্দনা বাউড়ির দ্বিতীয় বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসে বৃহস্পতিবার। আর শনিবার শ্বাসকষ্ট আর বুকে ব্যথা নিয়ে বাঁকুড়া (Bankura) মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি করা হয় তাঁর গাড়িচালক তথা বর্তমান স্বামী কৃষ্ণ কুণ্ডুকে। ‘পরকীয়া’য় মগ্ন স্বামীকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভরতি করার পর থেকেই কৃষ্ণর পাশে রয়েছেন তাঁর প্রথম পক্ষের স্ত্রী রুম্পাদেবী। অন্যের সঙ্গে ঘর বাঁধতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ স্বামীকে নিয়ে তিনি চিন্তিত। তার চেয়েও বেশি চিন্তা, তাঁদের ছেলেমেয়ের ভবিষ্যত নিয়ে। রুম্পাদেবী জানাচ্ছেন, চন্দনার সঙ্গে সংসার করার সিদ্ধান্তে এখনও অনড় তাঁর স্বামী কৃষ্ণ কুণ্ডু। আর দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে এই টানাপোড়েনের জেরেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: কিশোরীকে ‘অপহরণ’ প্রতিবেশী যুবকের, মেয়েকে ফেরানোর দাবিতে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ বাবার]

বিবাহিত কৃষ্ণকে দ্বিতীয়বার বিয়ে করায় স্থানীয় বিধায়ক চন্দনা বাউরির বিরুদ্ধে সংসার ভাঙার অভিযোগ এনেছেন রুম্পাদেবী। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social media) গাড়িচালক কৃষ্ণকে বিয়ে করার কথা অস্বীকার করেছেন বিধায়ক। তবে ঘটনার জল গড়িয়েছে গঙ্গাজলঘাঁটি থানা পর্যন্ত। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এসবের মধ্যেই গত শনিবার রাতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন কৃষ্ণ।

জানা গিয়েছে, ঘটনার জেরে চরম অশান্তির কারণেই আচমকা বুকে ব্যথা অনুভব করেন তিনি। আপাতত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এদিন হাসপাতালের বেডে শুয়ে কৃষ্ণ বলেন, “মন্দিরে ঠাকুরকে সাক্ষী রেখে চন্দনাকে বিয়ে করেছি আমি। তাঁর সঙ্গে সংসার বাঁধব। আমরা দু’জন একসঙ্গে পথ চলার শপথ নিয়েছি।” স্বামীর মুখে এহেন কথা শুনে হাসপাতালেই ডুকরে কেঁদে উঠছেন কৃষ্ণর প্রথম স্ত্রী রুম্পা। ত্রিকোণ প্রেমের এহেন যন্ত্রণা দেখে হতবাক হাসপাতালের চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী থেকে অন্যান্য রোগীরাও। যদিও এ বিষয়ে একাধিকবার বিধায়ক চন্দনা বাউড়ির সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

[আরও পড়ুন: পরকীয়ায় পথের কাঁটা সরাতে ২ ছেলেকে ‘খুন’! মাকে গণপিটুনি উত্তেজিত গ্রামবাসীদের]

উল্লেখ্য, বিজেপির সক্রিয় কর্মী হিসেবেই এলাকায় পরিচিত কৃষ্ণ কুন্ডু। স্থানীয় সূত্রে খবর, বিধানসভা নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর থেকেই শালতোড়ার ওই বিজেপি বিধায়ক ক্রমেই ঘনিষ্ঠ হতে শুরু করেন দলীয় কর্মী তথা গাড়িচালক কৃষ্ণর সঙ্গে। দিন যত গড়িয়েছে, ততই তাঁদের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বেড়েছে। কৃষ্ণর সাথে ঘনিষ্ঠতার পর থেকে চন্দনার প্রথম স্বামী শ্রাবণ বাউরির সঙ্গেও দূরত্ব বাড়তে শুরু করে চন্দনার। গত বুধবার রাতে স্থানীয় একটি মন্দিরে তাঁরা ‘বিবাহ বন্ধনে’ আবদ্ধ হন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে তাঁদের বিয়ের ছবি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে