২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিক্রম রায়, কোচবিহার: দিনহাটা মহকুমার সিতাইয়ে প্রশান্ত বর্মন নামে বিজেপির যুব মোর্চার নেতাকে গ্রেপ্তার করা নিয়ে শুক্রবার সকালে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। এদিন সকাল থেকে নেতার অনুগামীরা গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে থানা ঘেরাও করে। এমনকী ধৃতকে আদালতে নিয়ে যাওয়ার পথেও বাধা দেওয়া হয়। উত্তেজনা সামাল দিতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। যদিও পুলিশের তরফে এমন অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

এদিকে, গরু পাচারের অভিযোগ ঘিরে বৃহস্পতিবার রাতে রণক্ষেত্রের আকার ধারণ করে কোচবিহারের দিনহাটা। গরু বোঝাই গাড়ি আটক করাকে কেন্দ্র করে রাতভর চলে সংঘর্ষ। পেটলায় বিজেপির দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর করা হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

[আরও পড়ুন: বর্ষার মুখে ফের ডেঙ্গুর ছোবল, হাবড়ায় মৃত অন্তঃসত্ত্বা-সহ ২]

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকা পেটলায় গরু বোঝাই একটি গাড়ি আটকে দেন এলাকার গোরক্ষক বাহিনীর কয়েকজন যুবক। চালকের কাছে কাগজপত্র দেখতে চাওয়া হয়। কিন্তু তিনি তা দেখাতে পারেননি। যে কারণে তাঁকে হেনস্তা করা হয় বলে অভিযোগ। তারপরই দুই পক্ষের মধ্যে তীব্র বাদানুবাদ শুরু হয়। তারপরই রীতিমতো উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। অভিযোগ, তৃণমূলের পঞ্চায়েতের এক সদস্য তাঁর দল এনে গোরক্ষক বাহিনীর উপর চড়াও হন। এরপরই পেটলায় বিজেপির কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানো হয়। কয়েকজন বিজেপি কর্মীকে মারধরও করা হয়। এমন অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল পালটা দাবি করে, ওই পঞ্চায়েত সদস্যকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারধর করেন বিজেপি সমর্থকরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় পুলিশ। কিন্তু সংঘর্ষের আঁচ লাগে পুলিশের গায়েও। পুলিশের গাড়িতেও হামলা চালানো হয় বলে জানা গিয়েছে।

দিনহাটার এক নম্বর ব্লকের নেতা নূর আলম হোসেনের অভিযোগ, লোকসভা নির্বাচনের ফলপ্রকাশের পর থেকেই এলাকায় অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা চলছে। এমনকী গোরক্ষক বাহিনী তৈরি করে উত্তেজনা সৃষ্টিরও চেষ্টা করা হচ্ছে। 

[আরও পড়ুন: প্রেমের করুণ পরিণতি, মর্গে প্রেমিক, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে তরুণী]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং