BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার গোঘাটে! আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে কাঠগড়ায় তৃণমূল

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 23, 2020 2:50 pm|    Updated: August 23, 2020 2:50 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রেমঘটিত টানাপোড়েনে আত্মহত্যা নাকি তৃণমূলের চাপে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত? বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতির দেহ উদ্ধারের কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা। রবিবার সকালে গোঘাটে (Goghat) নিজের বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয় দেহ। তাঁর মৃত্যুর কারণ নিয়েই চলছে রাজনৈতিক টানাপোড়েন। বিজেপি এই ঘটনার দায় তৃণমূলের উপর চাপিয়েছে। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

গোঘাটের নারায়ণপুর গ্রামের বাসিন্দা শৌভিক মুখোপাধ্যায়। বছর ছাব্বিশের ওই যুবক ৪৬ নম্বর জেলা পরিষদ এলাকার বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি। শনিবার রাতে খাওয়াদাওয়া করে ঘুমোতে গিয়েছিলেন তিনি। রবিবার সকালে অনেক ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। তাই পরিবারের লোকজন চিন্তিত হয়ে পড়েন। চিৎকার চেঁচামেচিতে প্রতিবেশীরা জড়ো হয়ে যান। খবর দেওয়া হয় থানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। শৌভিকের দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়।

[আরও পড়ুন: একুশের লড়াইয়ে তৃণমূলের হাতিয়ার যুবসমাজ, রাজ্যজুড়ে শাসকদলে যোগদান প্রায় ৪ লক্ষ যুবকের]

বিজেপি জেলা নেতৃত্বের দাবি, এক নাবালিকার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল শৌভিকের। সেই সম্পর্ক নিয়ে নানাভাবে প্ররোচনা দেওয়া হত তাঁকে। তৃণমূলের তরফে ওই যুবককে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। যদিও তৃণমূলের তরফে সেই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। ঘাসফুল শিবিরের পালটা দাবি, শৌভিক প্রণয়ঘটিত মনোমালিন্যের জেরে আত্মহত্যা করেছে। তবে তার মৃত্যুর সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।

প্রতিবেশীদের দাবি, অত্যন্ত শান্তশিষ্ট, লাজুক প্রকৃতির ছেলে ছিলেন শৌভিক। ছেলের কারও সঙ্গে আদৌ প্রেমের সম্পর্ক ছিল কিনা, সে বিষয়ে জানা নেই তাঁর পরিবারেরও। তবে ছেলের মৃত্যু মানতে পারছেন না কেউই।

[আরও পড়ুন: মেলার মাঠে পাঁচিল নিয়ে জনমত সংগ্রহ, শান্তিনিকেতনে বাড়ি বাড়ি ঘুরলেন পুলিশকর্তারা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement