৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাস দুর্ঘটনায় রণক্ষেত্র দৌলতাবাদ, পরিস্থিতি মোকাবিলায় শূন্যে গুলি পুলিশের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 29, 2018 5:17 am|    Updated: January 29, 2018 6:19 am

An Images

অতুলচন্দ্র নাগ, মুর্শিদাবাদ: ব্রিজের রেলিং ভেঙে নদী গর্ভে তলিয়ে গিয়েছে আস্ত একটি যাত্রী বোঝাই বাস। কিন্তু, দুর্ঘটনার পর কয়েক ঘণ্টা কেটে গেলেও, এখনও ঠিকমতো উদ্ধারকাজও শুরু হয়নি। অভিযোগ, ঘটনাস্থলে আসেনি দমকল বা বিপর্যয় মোকাবিলা দল। ক্ষোভে ফুঁসছে মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদ। পুলিশের সঙ্গে স্থানীয় বাসিন্দাদের খণ্ডযুদ্ধে রণক্ষেত্রে চেহারা নিয়েছে এলাকা। পুলিশের গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। ভাঙচুর চলেছে দমকলের গাড়িতেও। পরিস্থিতি এতটাই অগ্নিগর্ভ, যে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে শূন্যে গুলি ছুড়েছে পুলিশ। ফাটানো হয়েছে টিয়ার গ্যাসের শেলও।

[মুর্শিদাবাদে ভয়াবহ পথ দুর্ঘটনা, নদীতে তলিয়ে গেল যাত্রীবাহী বাস]

ঘটনার সূত্রপাত্র সোমবার ভোরে। নদিয়ার শিকারপুর থেকে মালদা যাওয়ার পথে দুর্ঘটনা কবলে পড়ে একটি সরকারি বাস। সকাল সাড়ে ছয়টা নাগাদ মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদে বালিরঘাটে সেতুতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিলে পড়ে যায় বাসটি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, চোখের নিমেষে যাত্রী-সহ বাসটি বিলের জলের পুরোপুরি তলিয়ে যায়। বেশ কয়েকজন যাত্রী সাঁতরে পারে উঠতে পারলেও, অধিকাংশ যাত্রীরই সলিল সমাধি ঘটেছে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত বাসটির কোনও হদিশ পাওয়া যায়নি। দুর্ঘটনার খবর পেয়েই বিলে দুই তীরে জড়ো হন অসংখ্য মানুষ। তাঁদের অভিযোগ, ঘটনাস্থলে পৌঁছতে দেরি করেছে পুলিশ। তাই ঠিক সময়ে উদ্ধারকাজ শুরু যায়নি। দুর্ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও, ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয়নি বিপর্যয় মোকাবিলা দল ও প্রশিক্ষিত ডুবুরি। আর এতেই স্থানীয় বাসিন্দাদের ক্ষোভ চরমে ওঠে।

দেখুন উদ্ধারকার্যের ভিডিও:

[রাজ্যে জোড়া উপনির্বাচন, কড়া নিরাপত্তায় ভোটগ্রহণ উলুবেড়িয়া ও নোয়াপাড়ায়]

রইল টাটকা ছবি:

agitation_web

রোষের মুখে পড়েন পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনিক আধিকারিকরা। পুলিশের চার-চারটি গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেন বিক্ষোভকারীরা। ভাঙচুর চলে দমকলের গাড়িতেও। স্থানীয় বাসিন্দাদের বিক্ষোভের হাত থেকে রেহাই পাননি পুলিশ সুপার, বিডিও-সহ স্থানীয় প্রশাসনিক আধিকারিকরাও। পরিস্থিতি নিয়্ন্ত্রণে এলাকায় পৌঁছয় বিরাট পুলিশ বাহিনী। কিন্তু, পুলিশকে লক্ষ্য করে স্থানীয় বাসিন্দারা ইঁট ছুঁড়তে শুরু করেন বলে অভিযোগ। পালটা লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এমনকী, বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে শূন্যে গুলি ছোঁড়া হয়। চলে টিয়ার গ্যাসও। কিন্তু, কীভাবে ঘটল দুর্ঘটনা? বাসের এক যাত্রীর দাবি, বাস চালাতে চালাতেই মোবাইল নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন চালক। তাঁর ডান হাতে ছিল মোবাইল, বাম হাতে স্টিয়ারিং। তার জেরেই বালিরঘাটে ব্রিজে বাসের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন চালক। ব্রিজে রেলিং ভেঙে বিলে পড়ে যায় বাসটি।

দেখুন ভিডিও:

[রাজ্যে জোড়া উপনির্বাচন, কড়া নিরাপত্তায় ভোটগ্রহণ উলুবেড়িয়া ও নোয়াপাড়ায়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement