BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ৪ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কান্দিতে অধীরের মিছিলে বাধা, পুলিশ সুপারের কাছে জবাব তলব হাই কোর্টের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 19, 2018 4:47 pm|    Updated: August 9, 2019 1:04 pm

Calcutta HC seeks report on alleged assault on Adhir Chowdhury’s rally

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়ন পর্বে কান্দিতে মিছিল করতে পারেননি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। মুর্শিদাবাদের পুলিশ সুপার শ্রী মুকেশ, কান্দির এসডিপিও শেখ মহম্মদ আজিম ও কান্দি থানার আইসি সোমনাথ ভট্টাচার্যের কাছে জবাব তলব করল কলকাতা হাই কোর্ট। ওই তিন পুলিশ আধিকারিককে চার সপ্তাহের মধ্যে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্টে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ। পঞ্চায়েত ভোটে মনোনয়ন পর্বে পুলিশের ও প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে বিস্তর অভিযোগ বিরোধীদের। কলকাতা হাই কোর্টে আদালত অবমাননার মামলাও দায়ের করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। তিন পুলিশ আধিকারিকের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ উঠেছে।

[কান্দিতে অধীরকে মিছিল করতে বাধা, প্রতিবাদে থানায় অবস্থান বিক্ষোভ কংগ্রেসের]

আইনি জটিলতায় এ রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোটের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত। শুক্রবার পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে রায় ঘোষণা করবে কলকাতা হাই কোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চ। রায় ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচনী প্রক্রিয়ার উপর বহাল থাকছে স্থগিতাদেশ। পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়ন পর্বে অশান্তির অভিযোগে পুলিশ ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি। বিরোধীদের আবেদনে সাড়া দিয়ে মনোনয়ন প্রক্রিয়াকে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করার নির্দেশ দিয়েছিল হাই কোর্ট। রাজ্যের সর্বোচ্চ আদালতের স্পষ্ট নির্দেশ ছিল, মনোনয়ন পেশ যদি কাউকে বাধা দেওয়া হয়, তাহলে সংশ্লিষ্ট জেলার পুলিশ সুপারকেই ব্যবস্থা নিতে হবে। এরপরেও কোনও সমস্যা হলে ফের মামলাকারীদের আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার অনুমতিও দিয়েছিল কলকাতা হাই কোর্ট। কিন্তু, ঘটনা হল, আদালতের এই রায়ের পরেও মুর্শিদাবাদের কান্দিতে মিছিল করতে পারেননি খোদ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিই। শাসকদলের কর্মী-সমর্থকরাই তাঁকে মিছিল করতে বাধা দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। গত ৭ এপ্রিল মুর্শিদাবাদের কান্দিতে মিছিল করে বিডিও অফিসে মনোনয়ন পেশ করতে যা্চ্ছিলেন কংগ্রেস প্রার্থীরা। মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন খোদ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি। অভিযোগ, কান্দি শহরের স্কুল মোড়ের কাছে মিছিল আটকান তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকরা। অধীর চৌধুরিকে স্পষ্ট বলে দেওয়া হয়, তিনি বিডিও অফিসে যেতে পারবেন না। শাসকদলের কর্মী-সমর্থকদের আক্রমণাত্মক মেজাজ দেখে আর কথা বাড়াননি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি। তিনি ফিরে যান।

[বালি ঘাটের দখল রাখতে পঞ্চায়েত সমিতির আসন নিয়ে কাজিয়া সিউড়িতে]

এই ঘটনার পর ফের কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি। পুলিশ ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে আদালত আবমাননার মামলা দায়ের করেন তিনি। বৃহস্পতিবার মামলাটির শুনানি ছিল হাই কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্য ডিভিশন বেঞ্চে। মুর্শিদাবাদের পুলিশ সুপার শ্রী মুকেশ, কান্দির এসডিপিও শেখ মহম্মদ আজিম ও কান্দি থানার আইসি সোমনাথ ভট্টাচার্যের কাছে চার সপ্তাহের মধ্যে জবাব তলব করেছে আদালত।

[আদালতের করণিকের স্ত্রীকে চুলের মুঠি ধরে মারধর মদ্যপ দুষ্কৃতীদের

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে