৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিক্রম রায়, কোচবিহার: ছাত্রনেতাই শুধু নন, তিনি শাসকদলের ছাত্র সংগঠনের পদাধিকারীও বটে। অথচ সকলের সামনে জেলারই মন্ত্রী কিনা সটান বলে দিলেন, কোচবিহার জেলা টিএমসিপির সহ-সভাপতিকে তিনি চেনেন না! মাথাভাঙায় উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন শাসকদলের ছাত্র সংগঠনের জেলা সহ-সভাপতির অনুগামীরা। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যে, সভা পণ্ড হয়ে যেতে বসেছিল। শেষপর্যন্ত টিএমসিপির রাজ্য সভাপতির মধ্যস্থতায় কোনওমতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

[‘তোমরা নিজেরা শোধরাও’! যুযুধান দুই দলীয় নেতাকে সতর্ক করলেন মুখ্যমন্ত্রী]

আগামী ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিয়েছেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সমাবেশ সফল করতে জেলায় জেলায় প্রচার চালাচ্ছেন শাসকদলের কর্মী-সমর্থকরা। পিছিয়ে নেই ছাত্র সংগঠনও। বুধবার কোচবিহারের মাথাভাঙায় নজরুল সদনে ব্রিগেডের প্রচার সভার আয়োজন করেছিল টিএমসিপির জেলা নেতৃত্ব। সভায় হাজির ছিলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ, বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন, কোচবিহারের সাংসদ পার্থপ্রতিম রায়, টিএমসিপির রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য-সহ আরও অনেকে। ছিলেন টিএমসিপির কোচবিহার জেলার সহ-সভাপতি সায়নদীপ গোস্বামীও। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সভায় ভাষণ দিতে গিয়ে রীতিমাফিক সংগঠনের সমস্ত পদাধিকারীকে সম্ভাষণ করেন উত্তরবঙ্গ রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। শেষে তিনি টিএমসিপির জেলা সভাপতির কাছে জানতে চান, কেউ বাদ পড়ে গেলেন কিনা। তখন জেলা সভাপতি বলেন, মঞ্চে রয়েছেন টিএমসিপির কোচবিহার জেলার সহ-সভাপতি সায়নদীপ গোস্বামীও। মন্ত্রী বলেন, তিনি সায়নদীপকে চেনেন না, আগে কোথাও দেখেনও নি। এরপরই পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়েন সায়নদীপের অনুগামীরা। হই-হট্টগোল শুরু করে দেন তাঁরা। শেষপর্যন্ত সংগঠনের কর্মী-সমর্থকদের কোনওমতে শান্ত করেন টিএমসিপির রাজ্য সভাপতি তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্য।

কিন্তু নিজের জেলায় টিএমসিপির সহ-সভাপতিকে কি সত্যি চেনেন না উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ? শাসকদলের অন্দরের খবর, বিষয়টি মোটেও তেমন নয়। কোচবিহারে শাসকদলের দীর্ঘদিনের ছাত্রনেতা সায়নদীপ গোস্বামী। টিএমসিপির আগের কমিটির কার্যকরী সভাপতিও ছিলেন তিনি। দিন কয়েক আগে সংগঠনের সহ-সভাপতি হয়েছেন। কিন্তু, ঘটনা হল, জেলার রাজনীতিতে মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের বিরোধী গোষ্ঠীর নেতাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বেশি সায়নদীপের। তাই ইচ্ছাকৃতভাবে টিএমসিপির সভায় তাঁকে এড়িয়ে যেতে চেয়েছিলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী।    

দেখুন ভিডিও:

ছবি ও ভিডিও: দেবাশিস বিশ্বাস

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং