BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৭ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

মণীশ শুক্লা খুনে জড়িত সন্দেহে ১ জনকে আটক করে জেরা সিআইডি’র

Published by: Sayani Sen |    Posted: October 5, 2020 3:55 pm|    Updated: October 5, 2020 11:08 pm

An Images

বারাকপুরে অর্জুন সিং ঘনিষ্ঠ বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লা খুনের ঘটনায় উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি। রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে ঘটনার তদন্ত প্রকৃতি নিয়ে আলোচনা করেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। পুলিশি তদন্তে আস্থা নেই বিজেপি নেতৃত্বের। সিবিআই তদন্তের দাবি করেছে গেরুয়া শিবির। ঘটনায় সিআইডি তদন্তের নির্দেশ রাজ্যের। বিজেপি নেতা হত্যাকাণ্ডের লাইভ আপডেট (LIVE UPDATE)।

রাত ১১.০৭: রাসমণি ঘাটে বিজেপি নেতার শেষকৃত্য শুরু।

রাত ১০.৪১: রাসমণি ঘাটের কাছে পৌঁছল মণীশ শুক্লার দেহ।

রাত ১০.০৩: টিটাগড়ে ঘটনাস্থলে নিয়ে যাওয়া হল বিজেপি নেতার দেহ।

রাত ৯.৫৭: মণীশ শুক্লা খুনের ঘটনায় মহম্মদ খুররম নামে একজনকে আটক করে জেরা সিআইডি’র।

রাত ৯.৫০: অশান্তির আশঙ্কায় টিটাগড়ে মোতায়েন বাড়তি পুলিশ।

রাত ৯.৪৬: টিটাগড়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বিজেপি নেতার দেহ। 

রাত ৯.৩২: মৃতদেহ নিয়ে মিছিলের ফলে অবরুদ্ধ বিটি রোডের একাংশ। 

রাত ৯.৩০: মৃতদেহ নিয়ে খড়দহে মিছিল বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের।

রাত ৯.২০: খড়দহের বাড়ি থেকে বেরল দেহ। প্রথমেই দেহ নিয়ে যাওয়া হবে দলীয় কার্যালয়ে। যে এলাকায় খুন হয়েছেন মণীশ সেখানেও নিয়ে যাওয়া হতে পারে তাঁর দেহ। 

রাত ৯.০৫: বিজেপি নেতার বাড়িতে অর্জুন সিং।

রাত ৮.৪১: খড়দহের আদর্শপল্লিতে পৌঁছল বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লার দেহ। বাড়ির সামনে উপচে পড়া ভিড় বিজেপি কর্মীদের। 

রাত ৮.২১: বাবুল সুপ্রিয় বলেন, “তৃণমূলের মিছিল শেষ হয়ে যাওয়ার পর গুলি করে মারা হয়েছে অর্জুন ভাইয়ের একদম কাছের ছেলেকে। আমরা বহুবার রাষ্ট্রপতির কাছে গেছি ৩৫৬ জারি করার জন্য। পশ্চিমবঙ্গের যা অবস্থা তৈরি করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, তাতে ৩৫৬ জারি করাই উচিত। তবে আমরা মানুষের রায়ে বিশ্বাস করি।”

সন্ধে ৭.৫৯: নিহত বিজেপি নেতার বাবা এবং বিজেপি প্রতিনিধিদের সঙ্গে সাক্ষাতের পর টুইট রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের।

সন্ধে ৭.৪৮: “পুলিশের উপরে ভরসা নেই, চাই সিবিআই তদন্ত করুক,” রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাতের পর দাবি নিহত মণীশের বাবার।

সন্ধে ৭.৪৪: রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ নিহত মণীশ শুক্লার বাবা, অর্জুন সিং, লকেট চট্টোপাধ্যায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়র।

Jagdeep-Dhankhar

সন্ধে ৭.২৬: দেহ নিয়ে বাড়ির পথে রওনা মণীশ শুক্লার আত্মীয়রা। 

সন্ধে ৭.১০: “রাজ্যে বিশৃঙ্খলার অভিযোগ জানাতেই রাজ্যপালের কাছে যাচ্ছি”, দাবি নিহত মণীশ শুক্লার বাবার। পুলিশের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ তিনি।

সন্ধে ৭.০৫: দেহ নিয়ে মিছিল করে রাজভবনে যেতে পারবে না। মণীশ শুক্লার বাবা, অর্জুন সিং-সহ ৪ জন বিজেপি প্রতিনিধি রাজভবনে যেতে পারবেন  জানাল পুলিশ। 

সন্ধে ৭: রাস্তায় দাঁড়িয়ে ফোনে রাজ্যপালের সঙ্গে কথা অর্জুন সিংয়ের। ডিসির সঙ্গেও কথা বলেন রাজ্যপাল।

সন্ধে ৬.৫৯: “ফাঁকা বাস দাঁড় করিয়ে রেখে যানজট করছে। ওরা যত নোংরামি করবে আমরা তত করব”, জানালেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। 

সন্ধে ৬.৫৫: বাস ভাঙচুর করল বিজেপি।

সন্ধে ৬.৫১: নিউ মার্কেটের সামনে ব্যারিকেড করায় পুলিশের সঙ্গে বচসা বিজেপি কর্মীর। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা ডিসি সেন্ট্রালের।

Manish Shukla

সন্ধে ৬.৪৮: এলিট সিনেমা হলের সামনে ব্যারিকেড পুলিশের। বিক্ষোভ বিজেপি কর্মীদের।

সন্ধে ৬.৪৭: জানবাজারে যানজটে আটকে মণীশ শুক্লার দেহ।

সন্ধে ৬.৩৫: এস এন ব্যানার্জী রোডে তীব্র যানজট। মাঝপথে আটকে বিজেপি নেতার শববাহী গাড়ি। 

সন্ধে ৬.৩৪: তদন্ত চলছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে দাবি বারাকপুরের পুলিশ কমিশনারের।

সন্ধে ৬.৩৩: পরিকল্পনামাফিক খুন করা হয়েছে ছেলেকে, অভিযোগ নিহত মণীশ শুক্লার বাবার।

সন্ধে ৬.২৬: মণীশ শুক্লার মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি সম্বিত পাত্রের।

সন্ধে ৬.১৩: বাধা দিল না পুলিশ। এস এন ব্যানার্জী রোড ধরে রাজভবনের দিকে এগোচ্ছে মণীশ শুক্লার শবদেহবাহী গাড়ি।
বিকেল ৫.৫২: রাজভবনে নিয়ে যাওয়া হবে দেহ, দাবি বিজেপির। তবে এখনও মেলেনি পুলিশি অনুমতি।

বিকেল ৫.৪৮: এনআরএস হাসপাতালের ২ নম্বর গেট দিয়ে বেরল মণীশ শুক্লার দেহ। সম্পূর্ণ পুলিশি প্রহরায় শিয়ালদহ উড়ালপুল দিয়ে বিটি রোড হয়ে দেহ নিয়ে যাওয়া হবে বারাকপুরে, দাবি পুলিশের।

Manish Shukla

বিকেল ৫.৪৩: এনআরএসে শেষ বিজেপি নেতার ময়নাতদন্ত। চলছে দেহ হস্তান্তরের প্রক্রিয়া।

বিকেল ৫.৪১: ফিরহাদ হাকিমকে পালটা আক্রমণ অর্জুন সিংয়ের। তিনি বলেন, “যেদিন মন্ত্রীত্ব থাকবে না সেদিন বাংলার মানুষ ওকে রাস্তায় ফেলে পেটাবে।”

বিকেল ৫.৪০: এনআরএসে দাঁড়িয়ে লকেট চট্টোপাধ্যায় বলেন, “অপরাধীরা পুলিশের সঙ্গে হাত মিলিয়ে বিজেপি নেতাকে হত্যা করেছে। তৃণমূল এত সহজে পার পাবে না। বিজেপি শেষ দেখে ছাড়বে।”

বিকেল ৫.৩৭: “হঠাৎ অর্জুন কেন কলকাতায় এল? কেন মণীশকে সিআরপিএফের নিরাপত্তা দেওয়া হল না? তার নিরাপত্তারক্ষীরা কেন সরে গেল? পুলিশ খোঁজ করবে। চক্রান্ত সামনে আসবে। তার কারণ এটা উত্তরপ্রদেশ নয়। এনকাউন্টার করবে না। বিচারকের সামনে দোষীকে নিয়ে আসবে।” দাবি ফিরহাদ হাকিমের।

বিকেল ৫.৩৪: রাজ্যপালের জগদীপ ধনকড়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ কৈলাস বিজয়বর্গীয়র।

বিকেল ৫.২০: পুলিশ সূত্রে খবর, মাথার সামনে এবং পিছনে মিলিয়ে ৪ টি গুলি পাওয়া গিয়েছে। সেভেন এমএম পিস্তল থেকে গুলি চালানো হয়েছে। ময়নাতদন্তে কেন দেরি, এই প্রশ্ন তুলে এনআরএসের মর্গের সামনে বিক্ষোভ বিজেপির। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, শরীরে আঘাত বেশি থাকায় ময়নাতদন্তে দেরি হচ্ছে।

বিকেল ৫: টিটাগড়ের অলিগলিতে মোতায়েন পুলিশ।

বিকেল ৪.৫৬: পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলীপ ঘোষও বলেন, “মুখ্যমন্ত্রীর দম থাকলে সিবিআই তদন্ত করুন।”

বিকেল ৪.৫৩: বনগাঁ বিডিও অফিসের সামনে ধরনায় জয়প্রকাশ মজুমদার।

বিকেল ৪.৫১: কুড়ি ঘন্টা হয়ে গেলেও মণীশ শুক্লার ময়নাতদন্ত হয়নি, প্রতিবাদে রাজ্যপালের কাছে যাচ্ছে কৈলাস। ময়নাতদন্ত করে দ্রুত যাতে দেহ পরিবারকে দেওয়া হয় সেই দাবি জানাবেন তিনি। 
বিকেল ৪.৪৫: “বারাকপুরে বিজেপি কর্মী খুন প্রসঙ্গে নির্মল ঘোষই যখন সব জানেন, তাহলে নাম বলুন, না হলে ওনাকেই গ্রেপ্তার করা হোক”, গাইঘাটার বিডিও অফিসের সামনে ধরনা মঞ্চ থেকে বললেন বিজেপি নেতা রীতেশ তিওয়ারি

বিকেল ৪.৪৪: মণীশ শুক্লা খুনের ঘটনায় সিবিআই তদন্ত দাবি বিজেপির। কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে সিবিআই তদন্তের দাবি জানালেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

বিকেল ৪.১৫: এলাকা পরিদর্শনে সিআইডি’র ৩ সদস্যের দল। করা হয় ঘটনাস্থলের ভিডিওগ্রাফি।
বিকেল ৪: খড়দহে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ বিজেপি নেতাকর্মীদের।
দুপুর ৩.৪৫: নামানো হল ব়্যাফ ও কমব্যাট ফোর্স।
দুপুর ৩.৩০: টিটাগড় থানার ছাদ লক্ষ্য করে বোমা। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি। পালটা লাঠিচার্জ এবং কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোঁড়ে পুলিশ।

দুপুর ৩.১৫: ময়নাতদন্ত নিয়ে রাজ্য পুলিশের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রকাশ কৈলাস বিজয়বর্গীয়র।
দুপুর ৩: হাসপাতালে ঢুকতে দেওয়া হয় অরবিন্দ মেনন, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, সব্যসাচী দত্ত, অর্জুন সিং, লকেট চট্টোপাধ্যায়কে।
দুপুর ২.৩০: এনআরএসে ময়নাতদন্ত বিজেপি নেতার। দলীয় নেতাকর্মীদের হাসপাতালে ঢুকতে বাধা পুলিশের। বিজেপির সঙ্গে ধস্তাধস্তি।

NRS
দুপুর ২: মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাতের পর রাজ্যকে খোঁচা দিয়ে টুইট রাজ্যপালের। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement