BREAKING NEWS

২১ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

বউবাজার থেকে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর টানেল তৈরি শুরু, স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করছেন কর্মীরা

Published by: Bishakha Pal |    Posted: June 19, 2020 6:59 pm|    Updated: June 19, 2020 6:59 pm

An Images

নব্যেন্দু হাজরা: প্রায় তিন মাস পর ফের শুরু হল ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোর সুড়ঙ্গ তৈরির কাজ। নির্দিষ্ট স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুক্রবার সকালে বউবাজার থেকে এই কাজ শুরু হয়। টানেল বোরিং মেশিন বা টিবিএমটি সুড়ঙ্গ খুঁড়তে খুঁড়তে শিয়ালদহের দিকে যায়।

লকডাউনের কারণে শিয়ালদহ থেকে ঠিক ৮০০ মিটার দূরে আটকে গিয়েছিল সুরঙ্গ খননকারী এই যন্ত্র উর্বি। গত বছর ৩১ আগস্ট বউবাজার বিপর্যয়ের জেরে দীর্ঘদিন টানেল তৈরির কাজ বন্ধ ছিল। মাটিতে বসে গিয়েছিল অপর টিবিএম চণ্ডী। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহে আদালতের ছাড়পত্র নিয়ে ফের উর্বি সুড়ঙ্গ খোঁড়ার কাজ শুরু করলেও লকডাউনে তা থমকায়। সেই ঝক্কি কাটিয়ে শ্রমিকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুক্রবার থেকে আবারও তা শুরু হল। KMRCL সূত্রে খবর, ঠিকঠাক গতিতে এগোলে মাস তিনেকের মধ্যেই শিয়ালদা পর্যন্ত সুড়ঙ্গ করার কাজ করে ফেলবে উর্বি।

[ আরও পড়ুন: চিনা বর্বরতায় শহিদ রাজেশের শেষকৃত্য বীরভূমে, প্রিয়জনদের সম্বল আলতামাখা পায়ের ছাপ ]

লকডাউনের জেরে গত ২৫ সে মার্চ থেকে ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোর এই সুড়ঙ্গ খোঁড়ার কাজ বন্ধ ছিল। থমকে গিয়েছিল মহাকরণে মেট্রো স্টেশন তৈরির কাজও। ফলে অধিকাংশ শ্রমিকরাই দেশে ফিরে গিয়েছিলেন। তাদেরও ফিরিয়ে আনা হয়েছে। বউবাজারে সুড়ঙ্গ তৈরির সময় যে সমস্ত বিশেষজ্ঞরা কলকাতায় এসেছিলেন, তাঁদের অনেকেই দেশে ফিরে যান। তবে কয়েকজন থেকে যান এদেশে। তাঁদের দিয়ে গোটা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করানোর পরই এদিন কাজ শুরু হল।

উল্লেখ্য, গত বছর ৩১ আগস্ট মেট্রো সুড়ঙ্গ তৈরি করতে গিয়ে সমস্যা হয়। তাসের ঘরের মতো বউবাজারে ভেঙে পড়ে একের পর এক বাড়ি। একাধিক বাড়িতে ফাটল দেখা যায়। বহুদিন আদালতের স্থগিতাদেশ বজায় থাকে সুড়ঙ্গ খননের জন্য। চলতি বছরে অবশেষে অনুমতি পেয়ে শুরু হয় সেই সুড়ঙ্গ খননের কাজ। যে সুড়ঙ্গ কাটতে গিয়ে সমস্যা হয় তা আটকে আছে বউবাজারের স্যাকরা পাড়াতে। আর যে সুড়ঙ্গ এখন কাটা হচ্ছে, তাও সেই বউবাজারের স্যাকরা পাড়াতে এসে আটকে যায়। এই মেশিনেও কাজ করতে গিয়ে চৈতন সেন লেন, হিদারাম ব্যানার্জি লেনের বেশ কিছু বাড়িতে ফাটল ধরে। অবশেষে স্যাকরা পাড়া পৌঁছেও সাবধানে কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা মেট্রো কর্মীরা করছিলেন। শিয়ালদহ স্টেশন ঢোকার আগে সেই কাজ ফের থমকে যায়। আপাতত KMRCL ধীরে চলো নীতি নিয়েছে। KMRCL-এর চিফ ইঞ্জিনিয়ার বিশ্বনাথ দেওয়ানজি বলেন, “নির্দিষ্ট স্বাস্থ্যবিধি মেনেই আমরা সুরঙ্গ করার কাজ শুরু করছি। বর্তমানে সুরঙ্গ খননকারী যন্ত্রটি শিয়ালদহ থেকে ৮০০ মিটার দূরে অবস্থান করছে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement