১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মাধ্যমিক পরীক্ষাকেন্দ্রের অদূরে যুবকের মৃতদেহ, অভিভাবকদের বিক্ষোভ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 12, 2018 4:24 pm|    Updated: September 12, 2019 1:42 pm

An Images

শংকর রায়, উত্তর দিনাজপুর: মাধ্যমিকের প্রথম দিনেই বিপত্তি রায়গঞ্জে। সাতসকালে পরীক্ষাকেন্দ্রের অদূরে উদ্ধার হল এক যুবকের মৃতদেহ। ঘটনার এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। বিক্ষোভ দেখান মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকরা। মৃতের পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, রবিরার রাতভর নিখোঁজ ছিলেন ওই ব্যক্তি। ঘটনার তদন্তে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

[মৃত্যুর আগে ফ্লাইং কিস, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর ভিডিও ভাইরাল]

মৃত ব্যক্তির নাম ছেদিয়া মাহাতো। বাড়ি রায়গঞ্জের থানার রামপুর গ্রামপঞ্চায়েতের লোহান্দা গ্রামে। রায়গঞ্জ-বিন্দোল রুটে যাত্রীবাহী ট্রেকার চালাতেন ছেদিয়া। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, মদ্যপানে আসক্তি ছিল তাঁর। প্রতি দিন রাতে মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরে অশান্তি করতেন ছেদিয়া। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, রবিবার সকালে কাজে যাননি তিনি। দিনভর বাড়িতেই ছিলেন। বিকেল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ কাজে যাচ্ছেন বলে বাড়ি থেকে বেরোন ছেদিয়া। রাতের আর ফেরেনি তিনি। সোমবার সকালে বাড়ির কাছে থেদিয়া মাহাতোর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। খবর দেওয়া হয় থানায়। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। এদিকে রায়গঞ্জে থানায় লোহান্দা গ্রামের যে জায়গায় মৃতদেহটি উদ্ধার হয়েছে, সেখান থেকে রামপুর ইন্দিরা উচ্চবিদ্যালয়ের দূরত্ব খুব বেশি নয়। ওই স্কুলের আবার মাধ্যমিক পরীক্ষায় সিট পড়েছে। তাই ঘটনাটি ভিন্ন মাত্রা পেয়ে যায়। পরীক্ষাকেন্দ্রের অদূরে মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখান মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকরা।

[টেনশনে মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকরা, বরফ-কর্পূর জল খাওয়াবে তৃণমূল]

কিন্তু, কীভাবে মৃত্যু হল ট্রেকার চালক থেদিয়া মাহাতোর?  স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশকে জানিয়েছেন, ছেদিয়া মদ্যপানে আসক্ত ছিলেন। প্রতি রাতে মদ খেয়ে বাড়ি ফিরতেন। তদন্তকারীদের বক্তব্য, সম্ভবত অতিরিক্ত মদ্যপানে কারণেই মারা গিয়েছেন ওই যুবক। তাঁর মৃতদেহ কোনও আঘাতের চিহ্নও ছিল না। তবে সব সম্ভাবনাই খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ছবি: দীপিকা দে

[দু’বছরের অপেক্ষায় মিলল অনুলেখক, মাধ্যমিকে বসার সুযোগ জন্মান্ধ রশিদার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement