BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

দিঘার হোটেলে নেওয়া যাবে না অতিরিক্ত ভাড়া, চরম হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 12, 2017 10:12 am|    Updated: July 12, 2017 10:12 am

Don't take extra fair, CM Mamata warns Digha hotel owners

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কথায় বলে, ছুটি পেলেই বাঙালি ‘দি-পু-দা’ ছাড়া কিছুই চেনে না। সেই ‘দি-পু-দা’র দার্জিলিং এখন আন্দোলন-পাল্টা পুলিশি অভিযানে অশান্ত। তাই ছুটি পেলেই বাঙালি এখন পুরী বা দিঘার সমুদ্রের দিকে ছুটে যাচ্ছে। ক্যালেন্ডারে দিন দু’য়েক-তিনেক লাল রঙের তারিখ দেখতে পেলেই টুক করে একটা হোটেল বুক করে দিঘাগামী ট্রেনে বা বাসে উঠে পড়েন অফিসের কেরানি থেকে শুরু করে বড়বাবু পর্যন্ত। শুধু মাইনের সঙ্গে পাল্লা দিতে পালটে যায় হোটেলের বাজেটটাই। কিন্তু সম্প্রতি এক নয়া সমস্যায় জেরবার সাধারণ মানুষ। পরপর দুই বা তিনদিন ছুটি পড়লেই একাধাক্কায় রহস্যজনকভাবে বেড়ে যাচ্ছে দিঘার হোটেলের ভাড়া। সেই সমস্যা মেটাতেই এবার হস্তক্ষেপ করলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী।

নয়া সরকারের আমলেই দিঘা জুড়ে ওয়াই-ফাই বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। বুধবার সেই দিঘায় প্রশাসনিক বৈঠক করতে গিয়ে স্থানীয় পর্যটনশিল্পকে চাঙ্গা করে তুলতে একগুচ্ছ নয়া দাওয়াই দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। হোটেলমালিকদের উদ্দেশ্যে স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিলেন, “অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া যাবে না। কোনটা চান বেছে নিন, একদিন ব্যবসা করবেন না ৩৬৫ দিন?” মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ আসে, ছুটি পড়লেই স্থানীয় হোটেলমালিকরা একধাক্কায় অনেকটাই ভাড়া বাড়িয়ে দেন। সেটা কখনও কখনও স্বাভাবিক ভাড়ার ১০ গুণ পর্যন্ত ছুঁয়ে ফেলে। অভিযোগ শুনেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন মমতা। পুলিশকে জানিয়ে দেন, অবিলম্বে ব্যবস্থা নিতে হবে। হোটেলে বেশি লোক আসছে বলে বেশি ভাড়া নেব, হোটেলমালিকদের এই বিপজ্জনক প্রবণতা থেকে দূরে থাকতে বলেন মুখ্যমন্ত্রী। নইলে আইনি পথে হাঁটবে রাজ্যও, হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর। কোনওভাবেই পর্যটকদের কোনও অসুবিধা তৈরি করা যাবে না।

পাশাপাশি, দিঘায় কেন ৭.৫ কিলোমিটার ব্রিজ এখনও তৈরি হয়নি, জানতে চান শিশির অধিকারীর কাছে। ঘনঘন বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে দিঘায়, সেই বিষয়েও তাঁর সতর্ক দৃষ্টি রয়েছে বলে জানান মমতা। বিদ্যুৎ দপ্তরকে এই বিষয়ে সতর্ক করে দেন তিনি। রাস্তা দখল করে কোনও ব্যবসা করা যাবে না, হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর। দিঘার আই কেয়ার নিয়েও তদন্ত করবে রাজ্য। রাজি সরকারের সব দপ্তরকে একযোগে কাজ করার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। দিঘার সৈকতে ওয়াচ টাওয়ার, সিসিটিভি বসিয়ে ২৪ ঘন্টা নজরদারি চালানোর পরামর্শ দেন তিনি। জানিয়ে দেন, ব্যবসা চলুক নিয়মমতো, কিন্তু তোলাবাজি বরদাস্ত করা হবে না। বিপজ্জনক জেটিগুলিতে নজর দেওয়ার কথাও বলেন মমতা। টাকা নিয়ে কোনও কাজ করা যাবে না, সতর্কতা মুখ্যমন্ত্রীর।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে