BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নেপালে পাচারের পথে উদ্ধার কোটি টাকার হাতির দাঁত-খড়গ, মালবাজারে ধৃত ৩

Published by: Paramita Paul |    Posted: January 18, 2020 12:31 pm|    Updated: January 18, 2020 12:37 pm

Elephant tooth recovered from smuggler at Malbazar, three arrested.

শান্তনু কর, জলপাইগুড়ি: ভিনদেশে পাচারের পথে মালবাজার থেকে উদ্ধার হাতির দাঁত, গণ্ডারের খড়গ। যার বাজার মূ্ল্য কয়েক কোটি টাকা। একইসঙ্গে হাতেনাতে তিন পাচারকারীকেও পাকড়াও করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন ভিন দেশের নাগরিক বলে খবর। এই অভিযান বন বিভাগের স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের দুরন্ত সাফল্য বলেই মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

উত্তরবঙ্গের ডুয়ার্সের মালবাজার এলাকা বন্যপ্রাণী পাচারের গুরুত্বপূর্ণ করিডোর হয়ে উঠেছে। নেপাল, ভূটান এলাকায় হাতির দাঁত, গণ্ডারের খড়গ কিংবা পশুর চামড়ার কদর মারাত্মক। কোটি কোটি টাকা বিকোয় পশুদের দেহাংশ। আর সেই বাজার ধরতে নির্বিচারের চলে পশু শিকার। বিশেষত অসম-সহ উত্তর পূর্ব ভারতেরক রাজ্যগুলিতে চোরা শিকারিদের দাপট বেশি। সেখানে পশু হত্যার পর পুলিশি নজর এড়িয়ে  তাদের দেহাংশ উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা দিয়ে পাচার করা হয়।

[আরও পড়ুন : নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চায়ের দোকানে ঢুকে পড়ল ট্রাক, দুর্ঘটনায় মৃত্যু ৩ গ্রামবাসীর]

এবার গোপন সূত্রে বন দপ্তরের কাছে খবর ছিল মালবাজার দিয়ে বন্যপ্রাণীদের দেহাংশ পাচার করা হবে। সেই খবর অনুযায়ী, পাচারকারীদের ধরতে ফাঁদ পেতেছিল বন বিভাগের স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের আধিকারিকরা। সন্দেহজনক গাড়িগুলিতে তল্লাশি চালাচ্ছিলেন তাঁরা। সেইসময় একটি চারচাকা গাড়ি দাঁড় করিয়ে তল্লাশি চালাতেই উদ্ধার হয় দাঁত ও খড়গ। গাড়ির মধ্যে একটি ব্যাগে সেগুলি রাখা ছিল। জানা গিয়েছে, উদ্ধার হওয়া হাতির দাঁত ও খড়গগুলি ভুটান থেকে নেপালে পাচার করা হচ্ছিল। অসমে বন্যপ্রাণীদের হত্যা করে এই অংশগুলি সংগ্রহ করা হয়।

[আরও পড়ুন : নিজের বাড়িতেই অধ্যাপককে শ্বাসরোধ করে খুন, কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিশ]

ধৃতদের মধ্যে একজন ভুটান, একজন সিকিম ও আরেকজন ভুটান সীমান্ত সংলগ্ন আলিপুরদুয়ারের জয়গাঁর এলাকার বাসিন্দা। ধৃতদের নাম সুভাষ ছেত্রী, পিয়ার রাই, অর্জুন তিওয়ারি। ধৃতদের আজ জলপাইগুড়ি আদালতে হাজির করবে টাস্ক ফোর্স। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে