BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

অত্যাধুনিক উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থার সফল প্রয়োগ হ্যাম রেডিওর, ঝড়-ঝঞ্ঝাতেও নির্বিঘ্নে হবে কাজ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 4, 2020 6:22 pm|    Updated: October 4, 2020 11:12 pm

An Images

সুরজিৎ দেব, ডায়মন্ড হারবার: আবারও মুশকিল আসানে হ্যাম রেডিও (Ham Radio)। প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলায় এবার রাজ্যে চালু করা হল অত্যাধুনিক উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থা (Satellite Communication System)। এতদিন বড় কোনও বিপর্যয় হলে হাই-ফ্রিকোয়েন্সি রেডিও তরঙ্গের মাধ্যমেই যোগাযোগ ব্যবস্থা বহাল রেখে প্রশাসন ও সরকারকে সহযোগিতা করে আসছিল ওয়েস্ট বেঙ্গল রেডিও ক্লাব। কিন্তু তাতেও অনেক সময় ব্যাহত হয়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। উদ্ধারকাজে অসুবিধায় পড়তে হয়েছে প্রশাসনিক কর্তাদের। এবার রেডিও ক্লাবের নতুন এই উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থায় প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে খবর আদানপ্রদানে এবং উদ্ধারকাজে অনেকটাই গতি আসবে বলে মনে করছেন হ্যাম রেডিও অপারেটররা।

ওয়েস্ট বেঙ্গল রেডিও ক্লাবের রাজ্য সম্পাদক অম্বরীশ নাগ বিশ্বাস জানান, ঘুর্ণিঝড়, বন্যা, ভূমিকম্পের মত বড় কোনও প্রাকৃতিক বিপর্যয় (Natural Disaster) ঘটলে সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে টেলিফোন, মোবাইল-সহ সমস্ত যোগাযোগ ব্যবস্থাই। এমনকি বিগড়ে যেতে পারে স্যাটেলাইট ফোনও। অসুবিধায় পড়তে হয় সরকার ও প্রশাসনিক আধিকারিকদের। আয়লা, বুলবুল ও সাম্প্রতিক আমফানের সময় তাই হ্যাম রেডিওই ছিল একমাত্র ভরসা। হাই-ফ্রিকোয়েন্সি রেডিও তরঙ্গের মাধ্যমে ক্লাবের সদস্যরাই তখন সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে খবর আদানপ্রদান ও উদ্ধারকাজে গতি আনেন।

[আরও পড়ুন: অনলাইনে পরীক্ষা নিয়ে আতঙ্কে কাঁটা অনভ্যস্ত পড়ুয়ারা, মুশকিল আসান করল কলেজ]

কিন্তু ‘রেডিও প্রপাগেশন’-এ সমস্যায় সিগনালিংয়ে ব্যাঘাত ঘটলে অনেক সময় HF (হাই-ফ্রিকোয়েন্সি) যোগাযোগ ব্যবস্থাও বিপন্ন হয়। তাছাড়া এতদিন যে হাই-ফ্রিকোয়েন্সি রেডিও তরঙ্গের মাধ্যমে হ্যাম রেডিও যোগাযোগ রক্ষা করত, সেই ব্যবস্থায় সরাসরি খবর আদানপ্রদান করা সম্ভব ছিল না। বিভিন্ন জায়গা ঘুরে তবেই খবরাখবর পৌঁছাত। চার হ্যাম রেডিও অপারেটর সুমন সৌরভ, অভ্রজিৎ দাস, জয়ন্ত বৈদ্য ও সারোর অক্লান্ত প্রচেষ্টায় ‘কাতার অস্কার ১০০’ স্যাটেলাইটকে কাজে লাগিয়ে হ্যামের এই নতুন প্রযুক্তি সেই অসুবিধাও দূর করে দিল বলে জানালেন অম্বরীশ নাগ।

[আরও পড়ুন: শূন্যে ভেসেও নিশ্চিন্তে সারুন শৌচকর্ম, তৈরি হয়েছে প্রায় আড়াই কোটির বহুমূল্য শৌচালয়!]

ভারত সরকারের অনুমতি সাপেক্ষে দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার উপকূল এলাকা হেনরি আইল্যান্ড, ফ্রেজারগঞ্জ ও বকখালি থেকে ইতিমধ্যেই ৩৭ টি দেশের হ্যাম অপারেটরদের সঙ্গে অত্যাধুনিক এই প্রযুক্তিতে যোগাযোগ রক্ষার প্রথম পরীক্ষামূলক চেষ্টা সফল হয়েছে। রেডিও তরঙ্গের সঙ্গে উপগ্রহ যোগাযোগ ব্যবস্থার মেলবন্ধনেই তা সফল হয়েছে। আগামী দিনে প্রত্যন্ত সুন্দরবন-সহ এ রাজ্যের কোথাও কোনও বড়সড় প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে এই ব্যবস্থা দারুণভাবে কার্যকরী হবে বলে আশাবাদী ওয়েস্ট বেঙ্গল রেডিও ক্লাবের রাজ্য সম্পাদক।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement