BREAKING NEWS

৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গে তালিবানি রাজত্ব শুরু হয়ে গিয়েছে: দিলীপ ঘোষ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 11, 2017 12:49 pm|    Updated: November 30, 2019 3:44 pm

Hindus persecuted in 'Talibanised' west bengal, says Dilip Ghosh

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গে তালিবানি রাজত্ব শুরু হয়ে গিয়েছে। মঙ্গলবার সিউড়িতে হনুমান জয়ন্তীর মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনার সমালোচনা করতে গিয়ে এই বলেই শাসকদল তৃণমূলকে কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর অভিযোগ, ‘শান্তিপূর্ণ ধর্মীয় শোভাযাত্রায় পুলিশ নৃশংসভাবে লাঠিচার্জ করেছে, অন্যদিকে হাওড়ায় শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীরা একইধরনের মিছিল করছেন। সেইবেলা কোনও অন্যায় চোখে পড়ছে না পুলিশের। তৃণমূলের মিছিল মানেই ধর্মনিরপেক্ষ আর বিজেপির মিছিল হলেই সেটা সাম্প্রদায়িক।’ এই ধরনের দ্বিচারিতাকেই রাজ্যে উত্তেজনার প্রধান কারণ হিসাবে দেখছেন খড়গপুরের বিধায়ক।

[অনুমতি ছাড়াই হনুমান জয়ন্তীতে অস্ত্র হাতে মিছিল সিউড়িতে]

প্রসঙ্গত, এদিন বীরভূমের সিউড়িতে হনুমান জয়ন্তী উপলক্ষ্যে একটি মিছিল ঘিরে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পুলিশের বিরুদ্ধে বিনা প্ররোচনায় ব্যাপক লাঠিচার্জের অভিযোগ ওঠে। তারপরই রাজনীতির আসরে নেমে পড়ে শাসক ও বিরোধী শিবির। কিছুদিন আগে রামনবমী উপলক্ষ্যে রাজ্য জুড়ে বিভিন্ন জায়গায় মিছিল-শোভাযাত্রার আয়োজন করে বিজেপি তথা সংঘ পরিবার। সেইসব মিছিলে ছোট শিশুদের হাতে অস্ত্র দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। মিছিলগুলিতে বিজেপির নেতা-কর্মীদের হাতেও অস্ত্র-শস্ত্র দেখা যায়। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই মঙ্গলবার পবনপুত্রকে নিয়ে কাড়াকাড়ি পড়ে যায় শাসক-বিরোধী শিবিরে। হাওড়ায় রাজ্যের মন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা, বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়াকে হনুমান জয়ন্তীর মিছিলে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়।

[‘পারলে মহরমে অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধ করে দেখান মুখ্যমন্ত্রী’]

সেই পরিপ্রেক্ষিতেই এদিন বিধানসভায় দাঁড়িয়ে প্রশাসনকে একহাত নেন দিলীপ। মিছিলকে ঘিরে ভন্ডামির রাজনীতি করছে তৃণমূল, অভিযোগ দিলীপ ঘোষের। মিছিল কে করবে তা কি সরকার ঠিক করবে, প্রশ্ন করেন তিনি। তিনি আর কি কি বলেছেন শুনুন এই ভিডিওয়-

পাশাপাশি দিলীপ ঘোষের কটাক্ষের পাল্টা দিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। তিনি বলেন, ‘যাঁরা ভাবছে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে পশ্চিমবঙ্গের সম্প্রীতি নষ্ট করছে তাঁরা রাজ্যের সংস্কৃতি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নয়। ধর্মের নামে মিছিল করে অরাজকতা সৃষ্টি করলে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ তা কোনওদিন মেনে নেয়নি, আর আমার বিশ্বাস কোনওদিন মেনে নেবে না। ধর্মের নামে মিছিল করে অরাজকতা সৃষ্টি করলে মানুষ তা মেনে নেবে না।’ দিলীপবাবু অভিযোগ করেন, পুলিশ ইচ্ছাকৃতভাবে সিউড়িতে মিছিলে লাঠিচার্জ করেছে। সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে ফিরহাদ বলেন, ‘পুলিশের খেয়ে-দেয়ে কাজ নেই তারা লাঠিচার্জ করতে যাবে! আবারও বলছি, পশ্চিমবঙ্গ ধর্মের নামে অরাজকতা সৃষ্টির স্থান নয়।’ ভিডিওয় শুনুন আরও কী বলেছেন মন্ত্রী-

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে