BREAKING NEWS

১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ২৬ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘সুবিচার পেয়েছি বলেই বিজেপিতে’, প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে খুশি ইশরাত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 1, 2018 11:33 am|    Updated: June 1, 2019 7:23 pm

Ishrat is happy for PM Modi’s initiative regarding Tripple Talaq Bill

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক : তিন তালাক বিল পাস হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানালেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া ইশরাত জাহান। অনেক বঞ্চনার পর এতদিনে সুবিচার পেয়েছেন। তাই মোদির লড়াইয়ে শামিল হওয়ার সিদ্ধান্ত তাঁর। এবার মহিলাদের অধিকার রক্ষায় কাজ করার ইচ্ছে ইশরাতের।

‘বড্ড বেশি পশ্চিমী সভ্যতার দিকে ঝুঁকেছে ভারত’, আক্ষেপ দলাই লামার ]

তিনি নিজেও তিন তালাকের শিকার। নিম্ন আদালত থেকে উচ্চ আদালতের দরজায় কড়া নেড়েছেন। কিন্তু সুবিচার মেলেনি। ইশরাতের মতোই পরিস্থিতি রয়েছেন দেশের অসংখ্য মুসলিম মহিলা। তাই তিন তালাক রদে যখন উদ্যোগ নিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী, তখন বহু মহিলা তাঁকে সমর্থন জানিয়েছিলেন। ইতিমধ্যে লোকসভায় পাশ হয়েছে তিন তালাক বিল। সোমবার এএনআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইশরাত জানান, “তিন তালাকের বিরোধিতায় আমি কোথাও কোনও সহযোগিতা পাইনি। তিন তালাকের শিকার হয়ে নিম্ন আদালত, উচ্চ আদালত সব জায়গাতেই আবেদন করেছি। এতদিনে সুবিচার পেলাম। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তিন তালাকের বিল পাশ করিয়েছেন। আমি খুব খুশি। সেই জন্যেই বিজেপিতে যোগদান করেছি। ভবিষ্যতে মহিলাদের অধিকার রক্ষায় কাজ করতে চাই।” মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের থেকেও কোনও সাহায্য পাননি বলে অভিযোগ ইশরাতের। তাঁর দাবি, একজন মহিলা হিসেবে মুখ্যমন্ত্রীর উচিত ছিল তাঁকে সমথর্ন করা।

শনিবার বিজেপিতে যোগ দেন ইশরাত। ২০১৪-তে ইশরাতের স্বামী দুবাই থেকে ফোন মারফৎ তাঁকে তালাক দেয়। ফোনে তিনবার তালাক উচ্চারণের পরেই তাঁদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এরপরেই তিন তালাকের বিরোধিতায় আদালতে যান ইশরাত। দীর্ঘদিন এই অসম নিয়মের বিরুদ্ধে লড়াই করার পর গত আগস্টে দেশের শীর্ষ আদালত তিন তালাকের বিরুদ্ধে রায় দেয়। নির্দেশিকায় জানিয়ে দেওয়া হয়, তিন তালাক সংক্রান্ত ইসলামিক নীতি অসাংবিধানিক। এর পরেই সারা দেশ জুড়ে আলোড়ন ওঠে। গত বৃহস্পতিবারে লোকসভায় ধ্বনি ভোটে তিন তালাক নিষিদ্ধ হওয়ার বিল পাস হয়ে যায়। বিলে স্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে তিন তালাক নিষিদ্ধ। কোনও স্বামী যদি স্ত্রীকে তাৎক্ষণিক তিন তালাক দেন তাহলে তাঁর তিন বছরের কারাদণ্ড হবে। বিলটি এখন রাজ্যসভায় পাস হওয়ার অপেক্ষায় মূহূর্ত গুনছে। রাজ্যসভায় সবুজ সংকেত পেলেই বিল চলে যাবে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কাছে। তারপর রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের সুবাদে আইনে পরিণত হবে তিন তালাক বিল।

[ নিরপেক্ষ ভেন্যুতেও পাকিস্তানের সঙ্গে ক্রিকেট নয়, সাফ কথা সুষমার ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে