২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিপ্লবচন্দ্র দত্ত, কৃষ্ণনগর: ভোট মিটলেও রাজ্যের বহু জায়গায় এখনও হিংসা অব্যাহত। আর হিংসায় নেপথ্য খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন এ রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

[আরও পড়ুন: রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা অব্যাহত, ‘জয় শ্রীরাম’ বলায় আক্রান্ত বিজেপি কর্মী]

নদিয়ার চাপড়া বিধানসভা ভীমপুরে খুন হয়েছেন এক বিজেপি কর্মী। মৃতের নাম হারাধন মৃধা। অভিযোগ, বুধবার রাতে গরমের হাত থেকে বাঁচতে যখন বাড়ির পাশেই মাঠে শুয়েছিলেন, তখন তাঁর উপর চড়াও হয় বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী। গাছে বেঁধে লাঠি ও বাঁশ দিয়ে ওই বিজেপি কর্মীকে বেধড়ক মারধর করা হয়। রাতেই শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে মারা যান বিজেপি কর্মী হারাধন মৃধা। তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তুলে দেহ নিয়ে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা।

শনিবার নদিয়ার ভীমপুরে দলের নিহত কর্মীর বাড়িতে যান বিজেপির এ রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। তাঁর অভিযোগ, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রকাশ্য জনসভায় ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে বদলার নেওয়ার কথা বলেছেন। তাঁর বিবৃতিতেই তৃণমূলকর্মীরা উৎসাহ পেয়েছেন এবং বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা চালাচ্ছেন।’ কৈলাস বিজয়বর্গীয় হুঁশিয়ারি, গণতন্ত্রে হিংসার কোনও জায়গাই নেই। বিজেপি হিংসার জবাব হিংসা দিয়ে দেওয়ার তত্ত্বে বিশ্বাসী নয়। কিন্তু, তার মানে এই নয় যে, বিজেপি দুর্বল।’ এলাকায় ভোট হয়ে যাওয়ার পরেও যারা হিংসা ছড়াচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছেন বিজেপি কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং