BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আরও প্যাঁচে মোর্চা সভাপতি, কালিম্পংয়ে পুলিশের জালে এবার গুরুং ঘনিষ্ঠ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 18, 2018 1:01 pm|    Updated: January 18, 2018 1:01 pm

An Images

নিজস্ব সংবাদদাতা, শিলিগুড়ি: পাহাড়ে ফের পুলিশের জালে গুরুং ঘনিষ্ঠ। বুধবার রাতে কালিম্পং থেকে গ্রেপ্তার জিটিএ-র প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান লোপসাং লামা। জলঢাকা থানার পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

[গুরুংকে সরিয়ে মোর্চার মসনদে বিনয়, রোশনের জায়গায় অনীত]

ধৃতের বিরুদ্ধে থানায় হামলা, অগ্নিসংযোগ, খুনের চেষ্টা-সহ একাধিক ধারায় মামলা রয়েছে। পাহাড়ে আন্দোলনের নামে অশান্তি ছড়ানোর পর থেকেই গুরুং অনুগামী বলে পরিচিত লোপসাংয়ের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ ওঠে। কিন্তু গুরুং কোণঠাসা হয়ে পড়ার পর কার্যত গাঢাকা দিয়েই ছিলেন এই নেতা। বুধবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। সম্প্রতি দিল্লিতে গুরুং প্রকাশ্যে আসার পর পাহাড়ে তার কয়েকজন অনুগামী সক্রিয়তা বাড়িয়েছেন বলে পুলিশের কাছে খবর ছিল। সেই মতোই তথ্য জোগাড় করে অভিযান চালায় পুলিশ। কালিম্পংয়ের পুলিশ সুপার অজিত সিং যাদব জানিয়েছেন, “ধৃতের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলা রয়েছে, সবটাই তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।”

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই রাজধানী দিল্লিতে প্রকাশ্যে আসেন বিমল গুরুং। এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গুরুং বুঝিয়েছেন গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলন তিনি চালিয়ে যাবেন। তবে তাঁর কথায় মোটেও কান দিচ্ছে না রাজ্য। পুলিশি ধরপাকড়ের ভয়ে রীতিমতো পালিয়ে বেড়াচ্ছেন ইউএপিএতে অভিযুক্ত এই নেতা। সেখানে গুরুং দাবি করেন তিনি বিচ্ছিন্নতাবাদী নন। গোর্খাদের স্বত্ত্বা রক্ষার লড়াইয়ে তিনি চালিয়ে যাবেন। পাশাপাশি গুরুং জানান, ‘বাংলার মানুষের সঙ্গে আমাদের কোনও বিরোধ নেই। সংবিধানের মধ্যে থেকে গোর্খাল্যান্ডের দাবি জানিয়েছি। নিরপেক্ষ সংস্থাকে দিয়ে তদন্ত করা উচিত। আমি আইন মেনে চলি।’ রাজনৈতিক মহলের একাংশের ব্যাখ্যা আলোচনার মাধ্যমে যাতে রাস্তা বেরোনো যায় তার জন্য এমন চাল দিলেন গুরুং। দার্জিলিং সমস্যা মেটানোর জন্য তিনি ঘুরপথে রাজ্যকে বার্তা দিয়েছেন।

[এসআই অমিতাভ মালিককে হত্যার অভিযোগে ধৃত ৩ গুরুংপন্থী নেতা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement