BREAKING NEWS

০৯  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২৫ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

খুনের বদলা খুন! ১৭ বছর পর দাদার খুনিকে থেঁতলে মারল ভাই

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: September 12, 2018 5:53 pm|    Updated: September 12, 2018 5:53 pm

Man avenges brothers murder, kills accused

ধীমান রায়, কাটোয়া: খুনের বদলা খুন৷ ১৭ বছর আগে দাদার খুনের বদলা ভাইয়ের৷ মদের আসরে ‘খুনি’কে বসিয়ে মাথা থেঁতলে খুনের অভিযোগ৷ খুনের খবর ছড়িয়ে পড়তেই তীব্র উত্তেজনা মঙ্গলকোটের বরাগর গ্রামে৷

[সেলফির মাশুল, আসানসোলে নদীতে তলিয়ে গেলেন যুবক]

পুলিশ সূত্রে খবর, ১৭ বছর আগে দাদার খুনের বদলা নিতে অভিযুক্তকে মদের আসরে ডেকে আনা হয়৷ আসরে বসিয়ে ভোলাই শেখ (৫০) নামের এক দুষ্কৃতীকে খুনের অভিযোগে সনৎ থান্ডার নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷ কাটোয়া মহকুমা পুলিশ আধিকারিক ত্রিদিব সরকার জানিয়েছেন, বুধবার ভোরে কেতুগ্রামের নবগ্রাম থেকে সনৎ থান্ডারকে গ্রেপ্তার করে জেরার কাজ শুরু হয়েছে পুলিশ৷ ধৃতের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে নিহত ভোলাইয়ের মোবাইল ফোন৷

[দিনে রাজমিস্ত্রি, রাতে চৌর্যবৃত্তি! পুলিশের জালে টোটো চোর গ্যাংয়ের পাণ্ডা]

এদিনই ধৃতকে কাটোয়া মহকুমা আদালতে তোলা হয়৷ ধৃতকে জেরার জন্য নিজেদের হেফাজতের চেয়ে আদালতে আর্জি জানায় পুলিশ৷ পুলিশের আর্জি মঞ্জুর করে আদালত৷ মঙ্গলকোটের পদিমপুরের কাছে রবিবার দুপুরে ভোলাই শেখের থেঁতলানো দেহ উদ্ধার করে পুলিশ৷ ঘটনার তদন্তে নেমে প্রায় ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ মঙ্গলকোটের বরাগর গ্রামে বাড়ি ভোলাই শেখের। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকায় একজন দুষ্কৃতী বলে পরিচিত ছিল। তার বিরুদ্ধে একাধিক খুন, তোলাবাজি, বেআইনি অস্ত্র রাখার-সহ একাধিক অভিযোগ ছিল ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে৷

[ঘুমন্ত নাবালিকাকে ধর্ষণ, নাতনির সম্ভ্রম বাঁচাতে গিয়ে খুন দাদু]

স্থানীয় সূত্রে খবর, প্রায় ১৭ বছর আগে বরাগর গ্রামে রবি থান্ডার নামে এক জনমজুরকে মাঠে নৃশংসভাবে পিটিয়ে খুন করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় অভিযোগ উঠেছিল ভোলাইয়ের বিরুদ্ধে৷ এছাড়া প্রায় ১২ বছর আগে নিজের ভাইকে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগে মামলা হয়েছিল ভোলাইয়ের বিরুদ্ধে। তারপরেও একাধিক গুরুতর অভিযোগ ছিল ভোলাই শেখের বিরুদ্ধে। পুলিশ জানিয়েছে, দু’চার বছর ধরে ভোলাইয়ের সঙ্গে সনৎ থান্ডার বন্ধুত্ব গড়ে তোলেন৷ দাদার খুনের বদলা নিতেই এই বন্ধুত্ব পাতিয়েছিল বলে অনুমান পুলিশের৷ স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সনৎরা সাত ভাই। সনৎ পঞ্চম সন্তান৷ স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সনৎ থান্ডার তালগাছে চড়ে পাতা কেটে বিভিন্ন জিনিস তৈরির পেশায় যুক্ত ছিল। গাছ কাটারও কাজ মাঝেমধ্যে করত। সুঠাম স্বাস্থ্যের অধিকারী। অপরদিকে অপেক্ষাকৃত বেশি বয়সের ভোলাই নেশার ঘোরে দুর্বল হয়ে পড়ে। তখন ভারী কিছু দিয়ে তাকে থেঁতলে খুন করা হয় বলে অভিযোগ৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে