BREAKING NEWS

৮ কার্তিক  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

পুজোর মুখে মাওবাদী আতঙ্ক মেদিনীপুরে, পোস্টার ঘিরে চাঞ্চল্য

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 9, 2021 8:46 pm|    Updated: October 9, 2021 9:14 pm

Maoist Posters at Medinipur sparks controversy | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

সম্যক খান, মেদিনীপুর: পুজোর মুখে মেদিনীপুর (Medinipur) শহরে পড়ল ‘মাওবাদী’ (Maoist Poster) পোস্টার। আদিবাসীরা বঞ্চনার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে পোস্টারে। যদিও আতঙ্কের কিছু নেই বলে আশ্বস্ত করেছেন পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার।

শনিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে করে পুলিশ সুপার বলেন, “পোস্টারে নির্দিষ্ট একটি সম্প্রদায়ের প্রতি বঞ্চনার অভিযোগ-সহ কিছু সাধারণ ইস্যু তুলে ধরা হয়েছে। তবে পোস্টার দেওয়ার ব্যাপারটি বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।” তিনি আরও জানান, এর আগেও একবার অন্যত্র এধরনের ঘটনা ঘটেছে। সেখানে দেখা গিয়েছিল যে স্থানীয়রাই ওই পোস্টার সাঁটানোর ঘটনায় জড়িত ছিলেন। যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন পুলিশ সুপার।সাধারণ মাওবাদী পোস্টারের তুলনায় অনেকটাই আলাদা এই পোস্টার। এমনটাই দাবি পুলিশ কর্তাদের।

[আরও পড়ুন: Coronavirus Update: পুজোর মরশুমে সামান্য স্বস্তি, কমল রাজ্যের দৈনিক করোনা সংক্রমণ]

এদিন মেদিনীপুর শহরের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ঈশ্বরপুরে মাওবাদী নামাঙ্কিত ওই পোস্টার পাওয়া গিয়েছে। পোস্টারে প্রশ্ন তোলা হয়েছে, আদিবাসীদের পাট্টা কেন দেওয়া হচ্ছে না, কেন হেনস্থা করা হচ্ছে, কেন ঘুষ নিয়ে পদ বিক্রি করা হচ্ছে, পোস্টারে এসব প্রশ্ন তোলা হয়েছে। এমনকী, অবৈধভাবে বালিখাদান চলছে কেন তারও জবাব চাওয়া হয়েছে। ওই পোস্টারে আবার লেখা হয়েছে, চাকরির লোভ দেখিয়ে মাওবাদীদের কেনা যাবে না। পোস্টার লেখার ধরন দেখে পুলিশকর্তাদের একাংশের ধারনা এটা স্থানীয় কিছু উচ্ছৃঙ্খল যুবকের কাজ। প্রচারের আলোয় আসার জন্যই এধরনের পোস্টারিং করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ঠিক দু’বছর আগে শহরের রাঙামাটিতে স্থানীয় তৃণমূল নেতাদের নামে মাওবাদী পোস্টার পড়েছিল। পরে পুলিশ জানতে পারে ওটা স্থানীয় কয়েকজন যুবকের কাজ। আইনী ব্যবস্থাও নিয়েছিল পুলিশ। এবারও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটতে চলেছে বলে মনে করছেন পুলিশকর্তারা।

[আরও পড়ুন: Weather Update: চতুর্থীর দুপুরেই কলকাতা-সহ গোটা রাজ্যে ভারী বৃষ্টি, মনখারাপ আমজনতার]

অপরদিকে জেলা তৃণমূল সভাপতি সুজয় হাজরা বলেছেন, “সারা রাজ্যজুড়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের উন্নয়ন বিরোধী দলগুলির সহ্য হচ্ছে না। মুখ্যমন্ত্রী মাওবাদীদের প্রতি যেমন প্যাকেজ ঘোষণা করে আত্মসমর্পণের সুযোগ দিয়েছেন তেমনি মাওবাদীদের হাতে নিহত পরিবারগুলিকেও চাকরি ও আর্থিক সুবিধাযুক্ত প্যাকেজ দিয়েছেন। গোটা জঙ্গলমহলে এখন শান্তি বিরাজমান। বিজেপি-সহ বিরোধীদের এটা সহ্য হচ্ছে না।” পোস্টারিংয়ের ঘটনা বিরোধীদেরই কাজ বলে অভিযোগও করেছেন সুজয়বাবু।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement