BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

আগেভাগেই নারদ কাণ্ডে ইডি দপ্তরে হাজিরা মুকুল রায়ের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 9, 2017 10:47 am|    Updated: September 25, 2019 3:37 pm

Narada Sting: Mukul Roy visits ED office

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দলীয় কর্মসূচিতে ব্যস্ত থাকবেন। এই কারণ দেখিয়ে গত সোমবার নারদ কাণ্ডে ইডি দপ্তরে হাজিরা এড়িয়েছিলেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া মুকুল রায়। মেল করে তদন্তকারীদের কাছে ২ সপ্তাহ সময় চেয়েছিলেন।এরপর সোমবার দিল্লি  থেকে ফিরে নিজেই ইডির সঙ্গে  যোগাযোগ করেছিলেন মুকুল। জানিয়েছিলেন, শুক্রবার হাজিরা দেবেন। কিন্তু,  ঘটনাচক্রে সেদিন তাঁর নতুন দল বিজেপির কর্মসূচি রয়েছে। তাই নির্দিষ্ট দিনের আগেই বৃহস্পতিবার নারদ কাণ্ডে ইডির দপ্তরে হাজিরা দিলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। ইডি দপ্তর থেকে বেরিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি কোনও অন্যায় করিনি। তদন্তের সবরকম সাহায্য করতে প্রস্তুত।’

[নারদকাণ্ডে ইডিতে হাজিরা এড়ালেন মুকুল, সময় চাইলেন ২ সপ্তাহ]

তৃণমূল এখন অতীত। একদা শাসকদলের ‘নম্বর টু’ মুকুল রায় এখন বিজেপি নেতা। দিন কয়েক আগেই দিল্লিতে গিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে গেরুয়া শিবিরের নাম লিখিয়েছেন তিনি। শুক্রবার কলকাতায় বিজেপির জনসভায় বক্তব্য রাখবেন তিনি। তাই নির্দিষ্ট দিনের একদিন আগেই নারদ কাণ্ডে ইডি দপ্তরে হাজিরা দিলেন মুকুল রায়। বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ সল্টলেকে সিজিও কমপ্লেক্সে যান তিনি। প্রাক্তন এই তৃণমূল নেতাকে দীর্ঘক্ষণ জেরা করেন ইডির তদন্তকারীরা। তাঁর বয়ানও রেকর্ড করা হয়।

[নারদ কাণ্ডে এবার সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেরা ইডির]

তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করে পদ্মশিবিরে যোগ দিয়েছেন মুকুল রায়। কিন্তু, তিনি যখন শাসকদলের নেতা ছিলেন, তখন নারদ কাণ্ডে নাম জড়িয়েছিলেন রাজ্যসভার এই প্রাক্তন সাংসদেরও। সিবিআইয়ের দাবি, কলকাতার এলগিন রোডের ফ্ল্যাটে ছদ্মবেশী সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েলের সঙ্গে দেখা করেছিলেন মুকুল। তাঁর নির্দেশেই বর্ধমানে গিয়ে জেলার তৎকালীন পুলিশ সুপার এইচএম মির্জাকে টাকাও দিয়ে এসেছিলেন নারদ নিউজের তৎকালীন সিইও। নারদ কাণ্ডে ইতিমধ্যেই মুকুল রায়কে জেরা করেছে সিবিআই। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকদের দাবি, জেরায় বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতার নামও বলেছেন মুকুল রায়। ইডি সূত্রে খবর, এদিন জেরায়  একাধিক প্রশ্নের মুখে পড়েন মুকুল। পুলিশকর্তা এইচএম মির্জাকে ম্যাথু স্যামুয়েল যে টাকা দিয়েছিলেন, সেই টাকা কীভাবে খরচ হয়েছে? সিবিআইয়ের কাছে যেসব তৃণমূল নেতার নাম তিনি বলেছিলেন, নারদকাণ্ডে তাঁদের কী ভূমিকাটাই বা কী? মুকুল রায়ের কাছে এসব তথ্য জানতে চাওয়া হয়। তাঁর বয়ানও রেকর্ড করা হয়। প্রসঙ্গত, গত সোমবার নারদ কাণ্ডে তৃণমূল সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কেও জেরা করেছিল ইডি।

[শীতের কলকাতায় নয়া অতিথি, ওয়াটার-ট্যাক্সি চেপে গঙ্গাবক্ষে ভ্রমণের সুযোগ

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে