১২  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বিউটি পার্লারে বেআইনি কাজের অভিযোগ, লাইসেন্স নবীকরণে কড়া পুরনিগম

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 21, 2018 8:18 pm|    Updated: May 21, 2018 8:18 pm

New rule for beauty parlour's license renewal sparks controvercy in Durgapur

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দুর্গাপুর: বিউটি পার্লারের লাইন্সেস নবীকরণের জন্য জমা দিতে হবে স্থানীয় কাউন্সিলর ও থানার শংসাপত্র। বিতর্কে দুর্গাপুর পুরনিগম। বিউটি পার্লার মালিকদের আশঙ্কা, শহরে নির্বিঘ্নে ব্যবসা করার জন্য এমনিতেই বিভিন্ন মানুষকে টাকা দিতে হয়। আর এখন শংসাপত্র দেওয়ার জন্য টাকা চাইবেন কাউন্সিলররাও! সোজা কথায়, এতদিনে যে আর্থিক লেনদেন চলত আড়ালে-আবডালে, নয়া নিয়মে সেই ব্যবস্থাকে আইনি বৈধতা দিল দুর্গাপুর পুরনিগম।

[ট্রেন সফরে নয়া আতঙ্ক, কন্যাকুমারী এক্সপ্রেসে বিষাক্ত পোকার কামড়ে যুবকের মৃত্যু]

আগেকার দিনে ঘরোয়া পদ্ধতিতেই রূপচর্চা করতেন মহিলারা। কিন্তু, সময় বদলেছে। অলিগলিতে গজিয়ে উঠেছে বিউটি পার্লার। দেখানদারির যুগে নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে বিউটি পার্লারে ছুটছেন আট থেকে আশি সকলেই। দুর্গাপুর শহরে পুরনিগমের তালিকাভুক্ত বিউটি পার্লারের সংখ্যা ১২। কিন্তু, পুরসভার অনুমতি বা ট্রেড লাইন্সেস ছাড়াই দুর্গাপুরে বিউটি পার্লারের ব্যবসা করছেন অনেকেই। আর এই বেআইনি বিউটি পার্লারগুলিকে নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, শহরের অভিজাত এলাকা বিউটি পার্লারের আড়ালে চলছে দেহ ব্যবসা। সম্প্রতি আবার দুর্গাপুরে বাঁকুড়ার এক ঠিকাদারকে খুন করে দেহ লোপাটের অভিযোগ উঠেছিল। ঘটনার নাম জড়িয়েছিল সিটি সেন্টারের একটি বিউটি পার্লারের। এরপরই দুর্গাপুরের বিউটি পার্লারগুলি অপরাধের ঘাঁটি হিসেবে চিহ্নিত হয়ে যায়। বিউটি পার্লার উচ্ছেদের দাবিতে সরব হন স্থানীয় বাসিন্দারা। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছয়, যে শহরের বিউটি পার্লারকে লাইন্সেস দেওয়া তো দূর অস্ত, লাইন্সেস নবীকরণ প্রক্রিয়াও বন্ধ রাখতে বাধ্য হয় দুর্গাপুর পুরনিগম।

[১০ দফা দাবিতে অবরোধ আদিবাসীদের, রাজ্যজুড়ে বিপর্যস্ত রেল পরিষেবা]

চলতি আর্থিক বছর থেকে ফের বিউটি পার্লারগুলির লাইন্সেস নবীকরণের প্রক্রিয়া চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুর্গাপুর পুরনিগম। নিয়ম আরও কড়া হয়েছে। কিন্তু, তাতেও বিতর্ক মিটছে কই! নয়া নিয়মে বিউটি পার্লারের লাইন্সেস নবীকরণের জন্য স্থানীয় কাউন্সিলর ও থানার শংসাপত্র জমা দিতে হবে। শুধু তাই নয়, বিউটিশিয়ান কোর্সের শংসাপত্র, এমনকী, ব্যবসার ধরন নিয়ে দুর্গাপুর পুরনিগমে স্বীকারোক্তি দিতে হবে আবেদনকারীকে। কিন্তু, কাউন্সিলরের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন শহরের বিউটি পার্লার মালিকরা। তাঁদের বক্তব্য, নির্বিঘ্নে ব্যবসা করার জন্য নানা জনকে টাকা দিতে হবে। আর এখন পুরনিগমের নয়া নিয়মে টাকা দিতে হবে কাউন্সিলরকেও। যদিও চলতি আর্থিক বছর থেকে লাইন্সেস নবীকরণে নয়া নিয়ম লাগু হয়ে গিয়েছে। জানা গিয়েছে, লাইন্সেস পুর্ননবীকরণে ক্ষেত্রেও কাউন্সিলর ও থানার শংসাপত্র জমা দিতে হবে।

[নোটিস দিয়ে গৃহস্থের ঘরে আবির্ভাব ‘অাম্মা ভগবান’-এর, বুজরুকির গন্ধ কাঁকসায়]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে