৩০ আষাঢ়  ১৪২৬  সোমবার ১৫ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রঞ্জন মহাপাত্র, কাঁথি: রোজ অফিস৷ কাজের চাপ৷ ক্লান্ত মন৷ অল্প দু’দিনের ছুটি পেলেই মনে হয় বেড়িয়ে পড়ি৷ দু-একদিনের ছুটিতে একান্তে সময় কাটানোর জন্য দিঘাকেই সাধারণত বেছে নেন ভ্রমণপিপাসুরা৷ দিঘা মানেই প্রথমে মনে পড়ে সমুদ্র, ঝাউয়ের সারি৷ কিন্তু এই ভাবনা বদলানোর সময় এসেছে৷ এবার আর শুধু সমুদ্র আর ঝাউয়ের সারি নয়, দিঘায় বেড়াতে গিয়ে থিয়েটারও দেখতে পারবেন পর্যটকরা৷ সৌজন্যে, দিঘা-শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদ৷ 

Digha-Shankarpur Development Authority

[ঘুরপথে নয়, এবার সহজেই দিঘা থেকে যাওয়া যাবে তাজপুর]

রাজ্যের পর্যটন কেন্দ্রগুলিকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার৷ দিঘা তার মধ্যে অন্যতম৷ একাধিক পরিকল্পনা করা হয়েছে৷ আগের তুলনায় অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে দিঘা৷ ওই তালিকায় নয়া সংযোজন থিয়েটার হল৷ নিউ দিঘায় জাহাজের আদলে তৈরি হয়েছে দিঘা-শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের নতুন ভবন৷ প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি হয়েছে এই ভবন৷ তাতেই থাকছে থিয়েটার হল৷ সমুদ্র দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে গেলে, সন্ধের দিকে থিয়েটারও দেখতে পারবেন পর্যটকরা৷ ওই হলে আপাতত একটি সংস্থাই থিয়েটার মঞ্চস্থ করবে৷ ওই সংস্থার সদস্যরা মূলত কলকাতাতে থিয়েটার করে থাকেন৷ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ওই ভবনে থিয়েটার হলের পাশাপাশি থাকছে একটি অডিটোরিয়াম, ফুড কোর্ট, কনফারেন্স হল৷ আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ভবনের কাজ সম্পূর্ণ হবে৷ উন্নয়ন পর্ষদ ভবনটির উদ্বোধন করার কথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ নিউ দিঘায় তৈরি হওয়া বিশ্ববাংলা উদ্যানও উদ্বোধন করবেন তিনি৷ দিঘা-শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদের সদস্য তথা সভাধিপতি দেবব্রত দাস বলেন, ‘‘দিঘায় প্রতিদিনই পর্যটকের ভিড় থাকে। জাহাজের আদলে তৈরি এই ভবন এবং বিশ্ববাংলা পার্ক উদ্বোধন হলে পর্যটকের ভিড় আরও বাড়বে। আগামী দিনে মুখ্যমন্ত্রীর পরিকল্পনামাফিক প্রকল্পগুলি বাস্তবায়িত হলে দিঘায় পর্যটকের জোয়ার দেখা দেবে৷’’

[নয়া আকর্ষণ উত্তরবঙ্গে, আলিপুরদুয়ারে চালু ক্যারাভান পরিষেবা]

দিঘার পাশাপাশি মন্দারমণি, শংকরপুর এবং তাজপুরকেও সাজিয়ে তোলার কাজ চলছে জোরকদমে। ইতিমধ্যেই শংকরপুরে সমুদ্র পাড় দিঘার মতোই বাঁধানো হয়েছে। শংকরপুর পর্যন্ত নতুন রাস্তা তৈরির কাজও শুরু হয়েছে। অপরদিকে মন্দারমণির সমুদ্রপাড়ে সৌন্দর্যায়নের কাজেও হাত লাগিয়েছে দিঘা-শংকরপুর উন্নয়ন পর্ষদ। পাশাপাশি দিঘা থেকে মন্দারমণি পর্যন্ত মেরিন ড্রাইভ তৈরির কাজেও গতি এসেছে। সব মিলিয়ে দিঘা, শংকরপুর, তাজপুর এবং মন্দারমণিকে একসূত্রে বেঁধে সাজিয়ে তোলার কাজে কোমর বেঁধে নেমেছে উন্নয়ন পর্ষদ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং