২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

শেষকৃত্য হবে করোনায় মৃত ব্যক্তির! ভিত্তিহীন গুজবের জেরে দুর্গাপুরে শ্মশান ঘেরাও স্থানীয়দের

Published by: Bishakha Pal |    Posted: April 17, 2020 7:05 pm|    Updated: April 17, 2020 7:34 pm

People encompass burning ground for the baseless rumor

ছবি: প্রতীকী

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দুর্গাপুর: দিনভর গুজবের ফলে রাত পর্যন্ত ঘেরাও দুর্গাপুর মহাশ্মশান। বৃহস্পতিবার সকালেই দুর্গাপুরে গুজব রটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির মৃতদেহ দাহ করা হবে সেখানে। সেই শেষকৃত্য আটকাতেই এলাকাবাসী ঘেরা করে মহাশ্মশান। যদিও শেষ পর্যন্ত শ্মশানে আসেনি কোন দেহ। অন্যদিকে জেলার প্রথম করোনা আক্রান্ত সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরলেন।

বৃহস্পতিবার দুর্গাপুরে ছড়িয়ে পড়ে করোনায় ফের মৃত্যুর গুজব। গুজবের রেশ চলে বৃহস্পতিবার রাতেও। এও গুজব রটে, দুর্গাপুরের বীরভানপুরের শ্মশানে মধ্যরাতেই দাহ হবে এই দেহ। এই গুজবের ফলে শ্মশানের রাস্তা ঘেরাও করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মশাল জ্বালিয়ে বাঁশের ব্যারিকেড করে ঘিরে রাখা হয় শ্মশানের রাস্তা। কয়েকশো বাসিন্দা নেমে আসেন রাস্তায়। তাঁদের বক্তব্য, কোনওভাবে শ্মশানে ঢুকতে দেওয়া হবে না মৃতদেহ। যদিও শেষ রাত পর্যন্ত শ্মাশানে কোন দেহ আসেনি।

[ আরও পড়ুন: টিভি দেখে সচেতন ছোট্ট মেয়ে, জন্মদিনে পাওয়া টাকা দান করে দিল করোনা তহবিলে ]

দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ১৫ এপ্রিল হাসপাতালের আইসিইউ বিভাগে ভরতি দুই রোগী রামরঞ্জন ঘোষ ও কিষান দাস মহন্তের মৃত্যু হয় শ্বাসকষ্ট জনিত কারণে। নিশ্চিত হতেই তাঁদের COVID-19 পরীক্ষার জন্যে লালারস পাঠানো হয় কলকাতায়। শুক্রবার সেই রিপোর্ট এসেও পৌঁছায়। তাতে দেখা যায় দুই জনেরই নেগেটিভ।

এদিকে দুর্গাপুর মহকুমা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত দুর্গাপুরের ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতাল সনোকার ১ জন রোগী ভরতি আছেন। এখনও পর্যন্ত দুর্গাপুরে কেউ আক্রান্ত হননি। করোনা আক্রান্ত মহকুমা নয় দুর্গাপুর। অন্যদিকে জেলার প্রথম করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন। আসানসোলের এই বাসিন্দার ৪ এপ্রিল পরীক্ষা করে করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। এরপর ১৩ ও ১৫ এপ্রিল পরীক্ষা করে দেখা যায় নেগেটিভ এসেছে। তাকে বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকে ছাড়ার পর ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: লকডাউনের নিয়ম মেনেই বিয়ে, ৫০০ দুস্থ পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন নবদম্পতি ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে