৩০ আশ্বিন  ১৪২৮  রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

উড়ানে জুড়বে উত্তরবঙ্গ-সার্কভুক্ত দেশ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 29, 2016 5:12 pm|    Updated: October 27, 2018 5:38 pm

Plane servic will be started from North Bengal to Sark countries

বিশেষ সংবাদদাতা: উত্তরবঙ্গের সঙ্গে সার্কভুক্ত দেশগুলোকে উড়ান মানচিত্রে জুড়তে চাইছে রাজ্য৷ বাগডোগরা বিমানবন্দরের আমূল সংস্কার করে সেখান থেকে বাংলাদেশ, নেপাল এবং ভুটানে বিমান চালানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে খুব শীঘ্রই রাজ্যের তরফে এবিষয়ে এয়ারপোর্ট অথরিটিকে চিঠি দেওয়া হবে৷ মঙ্গলবার হাসিমারা প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী উত্তরবঙ্গের প্রতিটি এয়ারপোর্টের অবস্থা জানতে চান৷ একইসঙ্গে দ্রুততার সঙ্গে সেগুলোর সংস্কারের নির্দেশ দেন৷ মুখ্যমন্ত্রী এদিনের বৈঠকে জানিয়েছেন, বাগডোগরা থেকে সার্কভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে আকাশপথে যোগাযোগ তৈরি করলে প্রচুর পর্যটক লাভবান হবেন৷ একইসঙ্গে বাগডোগরা বিমানবন্দরে নাইট ফ্লাইট দ্রুত চালুর বিষয়েও জোর দিতে বলেন তিনি৷
অন্যদিকে রাজ্যের বিমান মানচিত্রে আজ জুড়তে চলেছে মালদহ ও বালুরঘাট৷ এই দুই জায়গায় এয়ারপোর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার পরিত্যক্ত জমি রয়েছে৷ এই জমিই বিমান ওঠা-নামার কাজে ব্যবহার করতে চায় রাজ্য৷ দীর্ঘদিন ধরে এয়ারপোর্ট অথরিটি-র সঙ্গে তা নিয়ে আলোচনাও হয়েছে৷ অবশেষে খুব স্বল্প দামে এই দুই জায়গার জমি রাজ্যের হাতে তুলে দিতে সম্মত হয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ৷ আজ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে রাজ্যের সঙ্গে এয়ারপোর্ট অথরিটি-র মউ স্বাক্ষরিত হওয়ার কথা৷ সম্প্রতি কলকাতা-কোচবিহার (ভায়া দুর্গাপুর, বাগডোগরা) বন্ধ হয়ে যাওয়া রুট চালুর বিষয়ে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য৷ বিষয়টি নিয়ে বৈঠকও হয়েছে৷ জানানো হয়েছে, পুজোর আগেই কলকাতা-কোচবিহার রুট চালুর চেষ্টা করা হচ্ছে৷ ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, কলকাতা-কোচবিহার সার্কিটের মধ্যে রাজ্য মালদহ, বালুরঘাটকেও জুড়তে পারে৷ মুখ্যমন্ত্রী প্রশাসনিক বৈঠকে জানান, যে দূরত্ব যাতায়াত করতে পর্যটকদের আট-দশ ঘণ্টা লাগে, আকাশপথে সেই দূরত্বই খুব অল্প সময়ে চলে যেতে পারবেন সাধারণ মানুষ৷ নবান্নসূত্রে খবর, বালুরঘাট এবং মালদহ বিমানবন্দরের জমি খুব স্বল্পমূল্যে ৩০ বছরের জন্য রাজ্যকে লিজ দেবে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ৷ সে বিষয়েই আজ মউ স্বাক্ষর হবে৷ চুক্তির পর শুরু হবে বিমানবন্দর সংস্কারের কাজ৷ প্রথমে হবে বালুরঘাট বিমানবন্দর সংস্কারের কাজ৷ এখানে রানওয়ে সংস্কার করা হবে৷ সেই কাজ করবে পূর্ত দফতর৷ রানওয়ে আরও বড় হবে৷ ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, এরপর মালদহ-বালুরঘাট ছোট বিমান পরিষেবাও চালু হতে পারে৷
মঙ্গলবারের প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী পরিবহণসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে প্রতিটি বিমানবন্দরের অবস্থা জানতে চান৷ পরিবহণসচিবও সেই রিপোর্ট তুলে ধরেন৷ তারপরই মুখ্যমন্ত্রী উড়ানপথে যাত্রী পরিবহণকে আরও সুদৃঢ় করার নির্দেশ দেন৷ মরা তোর্সা নদীর স্রোত কখনও কখনও কোচবিহার বিমানবন্দরে বিমান ওঠা-নামার ক্ষেত্রে সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়৷ তাই এই নদীর স্রোত যাতে অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেওয়া যায় তা দেখতে বলেন তিনি৷ কোচবিহার বিমানবন্দর থেকে দ্রুত যাতে ৪২ সিটের বিমান চালু করা যায়, সে-বিষয়ে আলোচনা চলছে বলে জানান উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ৷ উত্তরবঙ্গের এয়ারপোর্টগুলোকে সংস্কার করে কীভাবে পর্যটনকে আরও ভাল করা যায় তা পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেবকে দেখতে বলেন মুখ্যমন্ত্রী৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement