১৭  শ্রাবণ  ১৪২৯  রবিবার ৭ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পুরুলিয়ায় মোদির ফোনে আপ্লুত বিজেপির বুথ কর্মীরা

Published by: Tanumoy Ghosal |    Posted: March 18, 2019 1:37 pm|    Updated: March 18, 2019 1:37 pm

PM Modi calling party workers in Purulia to boost moral

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া:  শুধু লোকসভা কেন্দ্র নয়, সব বুথেই প্রার্থী নরেন্দ্র মোদী। ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে যেমন সব আসনেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রার্থী তুলে ধরে প্রচার করেছিল তৃণমূল, এবার লোকসভা ভোটেও ঠিক একইভাবে প্রচারে নেমেছে বিজেপিও। দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাবমূর্তিকে কাজে লাগাতেই গেরুয়া শিবিরের এমন কৌশল। তাই কখনও নিজেই ফোন করে দলের বুথকর্মীদের সঙ্গে কথা বলছেন প্রধানমন্ত্রী, কখনও আবার শোনানো হচ্ছে মোদির রেকর্ড করা ভাষণ।

[লোকসভা ভোটে রাজ্য বিজেপির থিম সং গাইলেন বাবুল সুপ্রিয়]

পুরুলিয়া জেলা বিজেপি জানিয়েছে, খোদ নরেন্দ্র মোদীর ফোন পেয়ে রীতিমতো চাঙ্গা হয়ে গিয়েছেন দলের কর্মীরা। আসলে সাধারণ মানুষের সঙ্গে মিশে যেতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর যেমন সরকারি অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’ চালু করেছেন,  তেমনই ভোটের মুখে দেশ জুড়ে প্রতিটি বুথের হালচাল জেনে নিচ্ছেন দলের বুথের কর্মীদের সঙ্গে টেলিফোনের আলাপচারিতায়। তাছাড়া, যে সব দলের নেতা-কর্মী, এমনকী সাধারণ মানুষজন ‘ভারত কে মন কি বাত, মোদী কে সাথ’ কর্মসূচিতে কোনও পরামর্শ বা নিজের কথা মোদীকে চিঠিতে জানিয়েছেন তাঁদের কাছেও ফোন আসছে নরেন্দ্র মোদীর। ঝাড়খন্ড লাগোয়া পুরুলিয়ায় বিজেপির একেবারে সাধারণ বুথ কমিটির সদস্যের কাছে এভাবে নরেন্দ্র মোদীর ফোন আসায় ভোটের আগে আবেগে ভাসছেন তাঁরা। বিজেপির পুরুলিয়া জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বলেন, “জেলার কোন্‌ বুথে দলের কি অবস্থা তা আর আমাদের জানাতে হবে না। দলের দিল্লির কার্যকর্তাদের পাশাপাশি আমাদের নেতা স্বয়ং নরেন্দ্র মোদীও বুথ কর্মীদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলে বুথের হালহকিকত জেনে নিচ্ছেন। তাই দেশজুড়ে আমাদের স্লোগান সকল বুথেই প্রার্থী নরেন্দ্র মোদী।” পুরুলিয়া জেলা বিজেপি সূত্রেই জানা গিয়েছে, তাদের সংগঠন সাজানোর সময়ই তারা সমস্ত কর্মকর্তাদের নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর রাজ্য হয়ে দিল্লিতে পাঠিয়ে দিয়েছে।

রাজ্যে বিজেপি যে সব জেলায় বেড়েছে তার মধ্যে একেবারে প্রথম দিকে ছিল পুরুলিয়া। জেলায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভাল ফলও করে পদ্মশিবির। কিন্তু ফলাফলের পর থেকেই ত্রি-স্তর পঞ্চায়েতের বিজেপির সদস্যরা দলে দলে তৃণমূলে যোগ দেন। তাছাড়া, যে বজরং দলকে সামনে রেখে বিজেপি এই জেলায় পঞ্চায়েত নির্বাচন লড়েছিল সেই বজরং দলের সঙ্গে বিজেপির মতপার্থক্য তৈরি হওয়ায় গেরুয়া শিবিরে ভাঙন ধরেছে। 

[ আকাশের মুখভার, আজও দিনভর বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে