৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আইন ভাঙলে কড়া শাস্তি পুলকার নিয়ে, কঠোর পুলিশ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 24, 2016 12:49 pm|    Updated: August 24, 2016 12:49 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: স্কুল পড়ুয়াদের সুরক্ষার বিষয়ে কোনওরকম আপস নয়৷ তাই পুলকারের বিরু‌দ্ধে কড়া অবস্থান নিল উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পুলিশ৷

৩১ অক্টোবরের মধ্যে নতুন আইনের যাবতীয় শর্ত পূরণ না করলে শুরু হবে ধরপাকড়৷ নেওয়া হবে আইনানুগ ব্যবস্থা৷ মঙ্গলবার বারাসত ও মধ্যমগ্রাম পুর এলাকার পুলকার অ্যাসোসিয়েশন, স্কুল কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবকদের নিয়ে আলোচনা সভায় এ কথা স্পষ্ট জানিয়ে দিল জেলা পুলিশ কর্তৃপক্ষ৷ পথ দুর্ঘটনার বিষয়ে কথা উঠলেই বারবার উঠে এসেছে পুলকারের নাম৷ লজঝড়ে গাড়ি, রিসোল টায়ার, বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই স্কুল পড়ুয়াদের নিয়ে ঝুঁকির যাত্রা করে এই পুলকারগুলি৷ প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বারাসত ও মধ্যমগ্রাম অঞ্চলে প্রায় ৮০টি পুলকার চলে যার অধিকাংশরই ন্যূনতম সুরক্ষা ব্যবস্থা নেই৷ মঙ্গলবার এই আলোচনা সভার মাধ্যমে পুলকারচালক ও মালিকদের সচেতন করার পাশাপাশি নতুন বিধি মেনে চলার জন্য কড়া বার্তাও দেয় জেলা পুলিশ৷

এদিনের এই সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, আঞ্চলিক পরিবহণ আধিকারিক ও বারাসত এবং মধ্যমগ্রাম পুরসভার পুরপ্রধানরা৷ পুলকার মালিকদের এদিন সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, ২০০৬ সালের পুরনো কোনও গাড়ি পুলকার হিসাবে ব্যবহার করা যাবে না৷ দশ বছরের পুরনো হলে সেই গাড়িকে ছাড়পত্র দেওয়া হবে না জানিয়ে দেন আঞ্চলিক পরিবহণ আধিকারিক সিদ্ধার্থ রায়৷ এ ছাড়াও কোনও প্রাইভেট নম্বরের গাড়িকে পুলকারের পারমিট দেওয়া হবে না৷ পারমিট পাওয়ার জন্য কমার্শিয়াল রেজিস্ট্রেশন প্রয়োজন৷

এদিনের এই আলোচনা সভায় পুলকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ তোলেন অভিভাবক-সহ জনপ্রতিনিধিরা৷ তাঁরা অভিযোগ করেন, পুলকারগুলি খুদে পড়ুয়াদের নিয়ে বেপরোয়াভাবে চালায়, যেখানে দশজন নেওয়ার ক্ষমতা সেখানে প্রায় ১৫ থেকে ১৬ জন বাচ্চা নিয়ে যায় পুলকারগুলি৷ পুলিশ ও পরিবহণ দফতরের তরফ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, নির্ধারিত সময়ের পর পুলিশি ধরপাকড় শুরু হবে এবং বৈধ নথি না থাকলে গাড়ি মালিক-সহ চালকের বিরুদ্ধেও কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement