BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভোটের আগে উত্তপ্ত কোচবিহার, কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে ফের বিক্ষোভ

Published by: Tanumoy Ghosal |    Posted: April 10, 2019 12:59 pm|    Updated: April 22, 2019 3:10 pm

An Images

বিক্রম রায়, কোচবিহার: রাত পোহালেই প্রথম দফার লোকসভা ভোট। বুধবার সকালেও কোচবিহারের সমস্ত বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে বিক্ষোভ দেখালেন ভোটকর্মীরা। বেশ কিছুক্ষণ বিক্ষোভ চলল কোচবিহার পলিটেকনিক কলেজ বা DCRC সেন্টারে। কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকলে বুথেও বিক্ষোভ দেখানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ভোটকর্মীরা।

[ আরও পড়ুন: বাড়ির সামনে ‘চৌকিদার চোর হ্যায়’ লেখা ফ্লেক্স জ্বালিয়ে দিলেন বিরক্ত বাবুল]

বৃহস্পতিবার দেশে লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দফার ভোটগ্রহণ। এ রাজ্যে ভোট হবে কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রে। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, কোচবিহারে ভোট পরিচালনার জন্য ৪৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী পাঠানো হয়েছে। ভোটের দিন ৪৪ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন থাকবে ১০৬০টি বুথে। বাকি সাড়ে ন’কোটি বুথে ভোট হবে রাজ্য পুলিশের সশস্ত্র বাহিনীর তত্ত্বাবধানে। কিন্তু রাজ্য পুলিশ নয়, জেলার সমস্ত বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি তুলেছেন ভোটকর্মীরা। বুধবার সকালে যখন কোচবিহার পলিটেকনিক কলেজে এভিএম বিতরণের কাজ চলছিল, তখন বিক্ষোভে ফেটে পড়েন তাঁরা। শেষপর্যন্ত অবশ্য বিক্ষোভ থামিয়ে নিজেদের দায়িত্ব বুঝে নেন ভোটকর্মীরা। ভোটকর্মীরা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, বুথে গিয়ে যদি দেখেন, কেন্দ্রীয় বাহিনী নেই, তাহলে ফের বিক্ষোভ দেখাবেন। সেক্ষেত্রে বৃহস্পতিবার কোচবিহারের বিভিন্ন প্রান্তে ভোট পরিচালনায় সমস্যা হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এদিকে সব বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকলেও, কোচবিহারে ভোটকর্মীদের নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

গত শুক্রবারও কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে কোচবিহারের রামভোলা হাইস্কুলে প্রশিক্ষণ বন্ধ রেখে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন ভোটকর্মীরা। পথ অবরোধ করা হয়েছিল শহরের গুঞ্জাবাড়ি মোড়ে। ভোটকর্মীদের বক্তব্য, পঞ্চায়েত ভোটের সময়ে কোচবিহারে জেলায় কোনও বুথেই পর্যাপ্ত কেন্দ্রীয় বাহিনী ছিল না। রাজনৈতিক নেতাদের হাতে রীতিমতো হেনস্তা হতে হয় তাঁদের। উত্তর দিনাজপুরেও কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবিতে প্রশিক্ষণ বয়কট করেছিলেন ভোটকর্মীরা।    

দেখুন ভিডিও:

ভিডিও সৌজন্যে: দেবাশিস বিশ্বাস

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement