BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

হাই মাদ্রাসায় শিক্ষক নিয়োগে সমস্যা, জল গড়াতে পারে কমিশন পর্যন্ত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 3, 2018 6:28 pm|    Updated: June 3, 2018 6:28 pm

Problems in recruitment of high madrasa teachers

ছবি: প্রতীকী

রাজা দাস, বালুরঘাট: পরিচালন কমিটির সম্পাদকদের আপত্তির কারণে, শিক্ষক নিয়োগের সমস্যা জেলার ৪টি হাই মাদ্রাসায়।  প্রতিবাদে সরব বেঙ্গল মাদ্রাসা এডুকেশন ফোরাম নামে অরাজনৈতিক শিক্ষক সংগঠনের দক্ষিণ দিনাজপুর শাখা। শিক্ষক নিয়োগের সহায়তায়, শূন্যপদ-সহ অন্যান্য তথ্য দ্রুত মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনে পাঠানোর দাবি জানিয়েছেন চাকরি প্রার্থী-সহ শিক্ষকরা।

[ বেনাপোলে আগুনে ভস্মীভূত ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাক, কোটি টাকার ক্ষতি ]

জানা গিয়েছে, রাজ্যে ৬১৪টি মাদ্রাসার মধ্যে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় রয়েছে ১৬টি। জেলায় মোট ১২০টি শূন্যপদ রয়েছে। তবে নিয়োগ প্যানেলে রয়েছেন  ৭০ জনের মতো চাকরী  প্রার্থী। সুতরাং প্রতিটি বিদ্যালয়ে থাকা শূন্যপদের চেয়ে প্যানেলে থাকা চাকরি প্রার্থী অনেকটা কম। স্বাভাবিকভাবে সকলেই চাকরি পাবেন বলে আশা করছেন। কিন্তু জেলার ১২টি হাই মাদ্রাসা নিয়ে কোনও সমস্যা না থাকলেও বাকি ৪টি  হাই মাদ্রাসা এখন চিন্তার ভাঁজ চাকরি প্রার্থীদের কপালে। অভিযোগ, বংশীহারির ব্লকের বেলপুকুর, হরিপুর, এলাহাবাদ হাই মাদ্রাসা এবং তপন ব্লকে থাকা নদন হাই মাদ্রাসা তাদের শূন্যপদ পূরণে উদাসীন। তারা মাদ্রাসা সার্ভিক কমিশনের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় আপত্তি রেখেছে। অথচ ওই চারটি মাদ্রাসায় যথাক্রমে ২৬, ১৫ ,৭ এবং ৬টি শূন্যপদ রয়েছে। ফলে,  জেলার এই চারটি হাই মাদ্রাসা বাদ দিলে প্যানেলে থাকা চাকরি প্রার্থীর তুলনায় শূন্যপদ অনেকটা কমে যাবে। সুতরাং মনে করা হচ্ছে, এবার সকলের নিয়োগ সম্ভব হবে না। অথচ ১২  জুলাইয়ের মধ্যে মাদ্রাসার নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করার নির্দেশ রয়েছে আদালতের। এতে ওই চারটি মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষর ভূমিকার প্রতিবাদে সরব শিক্ষক থেকে চাকরি প্রার্থীরা।

[ অজানা জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু জেলা পরিষদে জয়ী প্রার্থীর, চাঞ্চল্য তারকেশ্বরে ]

বেঙ্গল মাদ্রাসা এডুকেশন ফোরামের জেলা সভাপতি আবদুর সাত্তার আহমেদ বলেন, মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন নাকি রাজ্যে থাকা তিনটি ম্যানেজিং  কমিটি দ্বারা শিক্ষক নিয়োগ হবে। তবে মামলাটি এখন বিচারাধীন। এর মধ্যে আদালত এক নির্দেশে জানিয়েছে যে, ইচ্ছে করলে রাজ্যের সমস্ত মাদ্রাসা ১২ জুলাইয়ের মধ্যে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে পারবে। মামলা বিচারাধীন থাকলেও মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশনই এই নিয়োগ করবে। সেই পরিপ্রেক্ষিতে কমিশন সব মাদ্রাসাকে লিখিতভাবে জানিয়েছে যে, কর্তৃপক্ষ যদি মনে করে তবে শিক্ষক নিয়োগ করতে পারবে। এক্ষেত্রে মাদ্রাসাগুলিকে  তাদের শূন্যপদ ও অন্যান্য তথ্য ৮  জুনের মধ্যে কমিশনে জমা করতে হবে। কিন্তু এই চারটি মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সম্পাদক শিক্ষক নিয়োগ করতে অনিচ্ছুক। তারা অন্য কোনও অসৎ উদ্দেশ্যে এই পরিকল্পনা নিয়েছেন বলে অভিযোগ। এও অভিযোগ, তারা চাকরি প্রার্থী ও শিক্ষকদের নিয়ে আন্দোলনে নামছে। ওই মাদ্রাসাগুলিতে শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে রাস্তা অবরোধ থেকে অনশন পর্যন্ত যাওয়া হবে বলে খবর।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে