BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পরীক্ষায় অকৃতকার্য, বাড়িতে মিথ্যা বলার অনুশোচনায় আত্মঘাতী কলেজ পড়ুয়া

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 10, 2018 5:16 pm|    Updated: June 10, 2018 5:16 pm

Purulia: a student commits suicide in college hostel

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: ছেলে পাশ করার আনন্দে পার্টির আয়োজন করেছেন বাবা। কিন্তু, ছেলে যে পরীক্ষাই পাশই করেনি! বাবাকে খুশি করতে মিথ্যা বলেছে সে। শেষপর্যন্ত, সেই পার্টিতেই বাবার রাগ ভাঙালেন পড়শিরা। শাহরুখ খানের জনপ্রিয় সিনেমার দৃশ্যটি মনে পড়ে? বাস্তবে তেমনই ঘটনা ঘটল পুরুলিয়ায়। তবে শেষটা আর সিনেমার মতো হয়নি। তীব্র অনুশোচনায় হস্টেলে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করলেন বছর বাইশের এক তরুণ।

[প্রতিবেশীর বাড়িতে চোলাই মদের দোকান, প্রতিবাদ করে আক্রান্ত দম্পতি]

বাঁকুড়ার রানিবাঁধের হলুদকানালী গ্রামেক যুবক অনুপম মল্লিক। পুরুলিয়া শহরের জগন্নাথ কিশোর মহাবিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন তিনি। থাকতেন হস্টেলে। শুক্রবার রাতে আত্মহত্যা করলেন অনুপম। হস্টেলের ঘর থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করল পুলিশ। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, হস্টেলের ঘর থেকে একটি সুইসাইড নোট পাওয়া গিয়েছে। বাবা-মাকে উদ্দেশ্যে স্নাতক স্তরের পড়ুয়াটি লিখে গিয়েছেন, ‘কলেজের প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারিনি। এত পয়সা খরচ করে  তোমরা পড়াচ্ছো… তোমরা ভাল থেকো। আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়।’

[রূপনারায়ণের জলে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা, কিশোরের সাহসিকতায় বাঁচলেন বধূ]

পুরুলিয়া শহরের সেন্ট্রাল শিডিউল কাস্ট হস্টেলে থাকতেন অনুপম। পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার বিকেলে খাওয়া-দাওয়া সেরে নিজের ঘরে চলে যান তিনি। সারা সন্ধ্যা ঘরে বসে ফেসবুকের সমস্ত বন্ধদের আনফ্রেন্ড করেন। হোয়াটঅ্যাপে বিভিন্ন গ্রুপ থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন। শেষে সুইসাইড নোট লিখে সিলিং থেকে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন স্নাতক স্তরের পড়ুয়াটি। এদিকে বিকেল থেকে বেশ কয়েকবার অনুপম মল্লিকের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন পরিবারের লোকেরা। কিন্তু, ফোন বেজে যায়। একই হস্টেল থাকেন অনুপমের গ্রামেরই এক যুবক। রাতে তাঁকে ফোন করেন অনুপমের বাড়ির লোকেরা। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, ফোন নিয়ে ওই যুবক যখন অনুপমের ঘরে যান, তখন তাঁর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। খবর পেয়ে হস্টেলে পৌঁছয় পুলিশ। ময়নাতদন্তের পর পুলিশ মৃতদেহটি পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া গিয়েছে সুইসাইড নোটটিও। জানা গিয়েছে, দু’বার কলেজের পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছিলেন অনুপম। কিন্তু, বাড়িতে সে খবর জানাননি তিনি। বলেছিলেন, পাশ করেছেন। পুরুলিয়ার জগন্নাথ কিশোর মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ শান্তনু চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘যে হস্টেলে ঘটনাটি ঘটেছে, সেই হস্টেলটি অনগ্রসর শ্রেণিকল্যাণ দপ্তরের। তবে ওই হস্টেলে আমাদের কলেজের পড়ুয়াই থাকে। ঘটনা মর্মান্তিক ও দুঃখজনক।’

[জানেন, এখন কীভাবে মুর্শিদাবাদে আয়োজন হয় নবাবি ইফতারের?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে