১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

রাম নবমীতে বজরং দলের সদস্যদের গ্রেপ্তার, বিক্ষোভে দিনভর স্তব্ধ পুরুলিয়া

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 27, 2018 9:18 pm|    Updated: March 27, 2018 9:18 pm

Purulia: Members of Bajrang Dal protest against arrest on Ram Navami

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: বজরং দলের মিছিল ও বিক্ষোভে স্তব্ধ হয়ে গেল পুরুলিয়া শহর। মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটে থেকে সাড়ে চারটে পর্যন্ত শহরে মিছিল ও পুরুলিয়া সদর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখানোয় আতঙ্কে সব দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। ঘরবন্দি হয়ে পড়েন স্থানীয়রা।

গত রবিবার রাম নবমীতে পুরুলিয়ায় বজরং দল অস্ত্র নিয়ে মিছিল করার অভিযোগে ১২ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে বজরং দলের সদস্য ও বিজেপি কর্মীরা থাকায় তাঁদের মুক্তির দাবিতে এই বিক্ষোভ, ঘেরাও, মিছিল করেন তাঁরা। পরে বিকেলে ১২ জনের মধ্যে ধৃত এগারো জন জামিন পাওয়ার পর থানা থেকে ঘেরাও তুলে নেওয়া হয়। এই ১২ জনের মধ্যে শহর পুরুলিয়ার নিমটাঁড়ের বাসিন্দা রোহিত বর্মা নামে এক যুবক রয়েছেন যিনি ‘পিস্তল’ নিয়ে গত রবিবার রাম নবমীতে বজরং দলের শোভাযাত্রায় শামিল হয়েছিলেন বলে অভিযোগ। এদিন তাঁকে পুরুলিয়া আদালতে তোলা হলে তাঁর দু’দিন পুলিশ হেফাজত হয়।

[রাম নবমীর মিছিলে কার হাতে বন্দুক, ভাইরাল ভিডিও খতিয়ে দেখছে পুলিশ]

এদিন ধৃত বারো জনকে কড়া পুলিশি পাহারায় পুরুলিয়া আদালতে তোলা হয়। তারা ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দিয়ে এজলাসে ঢোকে। এদিন আদালতেও হাজির ছিলেন বজরং দলের সদস্যরা। ধৃতদের মুক্তির দাবিতে তারা স্টেশন এলাকা থেকে মিছিল শুরু করে গোটা শহর পরিক্রমা করে। সেই আতঙ্কেই শহরের দোকানপাট সব বন্ধ হয়ে যায়। তারপর পুরুলিয়া সদর থানা ঘেরাও করে রাখে বজরং দল। তবে সন্ধের পর থেকে শহর আবার স্বাভাবিক হয়। গত রবিবার রাম নবমী থেকেই উত্তপ্ত জেলা তপ্ত। বিশেষ করে পুরুলিয়া শহর ও আড়শা। তবে রাম নবমীর শোভাযাত্রাকে ঘিরে যারা অস্ত্র হাতে মিছিল করেছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে পদক্ষেপ করছে পুলিশ। পুরুলিয়া জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ঘটনায় অস্ত্র নিয়ে শোভাযাত্রা করায় মোট আঠারো জনের নামে অভিযোগ করা হয়েছে। এফআইআরে থাকা বাকি এক হাজার জন অজ্ঞাতপরিচয়।

29750420_10214891742542674_516154235_n

এদিকে এদিন আড়শার বেলডিতে শান্তি মিছিল করে তৃণমূল। কারণ গত রবিবার রাম নবমীতে বজরং দলের শোভাযাত্রাকে কেন্দ্র করে এই বেলডিতেই এক তৃণমূল কর্মীর মৃত্যু হয়। মিছিলে ছিলেন দলের জেলা সভাপতি তথা রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন বিভাগের মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাত। এদিন ওই তৃণমূল কর্মীর পরিবারের হাতে অর্থ তুলে দেওয়া হয়। দলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,“গেরুয়া শিবির যেভাবে জেলাকে অশান্ত করে তুলতে চাইছে আমরা তার বিরুদ্ধে আগামী ১ এপ্রিল সারা জেলা মিলিয়ে পুরুলিয়া শহরে হ্যান্ড মাইক নিয়ে শান্তি মিছিল করব।”

[ফের সংঘর্ষে উত্তপ্ত রানিগঞ্জ, জারি ১৪৪ ধারা]

ছবি: সুনিতা সিং

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে