BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় নয়া পদক্ষেপ রেলের, কর্মীদের জন্য খড়গপুরে তৈরি ‘স্যানিটাইজ শাওয়ার’

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: April 9, 2020 11:43 am|    Updated: April 9, 2020 12:29 pm

An Images

অংশুপ্রতিম পাল, খড়গপুর: দক্ষিণ-পূর্ব রেলের খড়গপুর ডিভিশনে রেলের চালক, সহকারী চালক, গার্ড, কর্মী ও আধিকারিকদের জন্য ক্রু লবিতে তৈরি করা হল ‘স্যানিটাইজ শাওয়ার’। করেনা ভাইরাসের আক্রমণ থেকে কর্মীদের রক্ষা করতেই এই উদ্যোগ রেলের। খুশি কর্মীরাও। 

দেশ জুড়ে জারি লকডাউন৷ ফলে চলছে না যাত্রীবাহি ট্রেন। কিন্তু রেল কর্তৃপক্ষ বন্ধ করেনি পণ্যবাহী ট্রেন চালানো৷ ফলে ঘুম নেই রেলের মালগাড়িগুলির চালক, গার্ড -সহ আধিকারিক ও কর্মীদের৷ করোনা ভাইরাসের লাল চক্ষু উপেক্ষা করে তাঁদের ছুটতে হচ্ছে দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে৷ এই গোটা ব্যবস্থাকে সুষ্ঠভাবে পরিচালনার জন্য দিনরাত এক করে কাজ করে চলেছেন রেলের আধিকারিক থেকে কর্মীদের একাংশ৷ লকডাউনের বাজারে এঁদের কোনও ছুটি নেই৷ এই পরিস্থিতিতে কর্মী-সহ ট্রেন চালক ও গার্ডদের সুরক্ষিত রাখার জন্য ও তাঁদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য অভাবনীয় উদ্যোগ নিল দক্ষিণ-পূর্ব রেলের খড়গপুর ডিভিশন৷ রেলের চালক, সহকারি চালক, গার্ড, কর্মী ও আধিকারিকদের জন্য ক্রু লবিতে ‘স্যানিটাইজ শাওয়ার’ তৈরি করল রেল।

SANITISE

[আরও পড়ুন: জমানো টাকা মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে দিতে চায়, একাধিক ব্যাংকে ঘুরেও ইচ্ছেপূরণ হল না কিশোরের]

খড়গপুর রেল স্টেশনের বাইরে বোগদা এলাকায় রয়েছে ক্রু লবি৷ এখানে যিনি ঢুকবেন বা বেরোবেন তাঁকে এই শাওয়ারের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে৷ কুয়াশা ঝড়ের মত এই শাওয়ার শরীরের বাইরের অংশে থাকা জীবাণু দ্রুত নাশ করে দেবে বলে জানালেন দায়িত্বপ্রাপ্ত কারিগরি আধিকারিক৷ এই জীবাণুনাশক শাওয়ার তৈরির প্রধান কারিগর খড়গপুর ডিভিশনের ইন্সপেক্টর অফ ওয়ার্কস দীপক শর্মা জানালেন, ‘‘প্রতি হাজার লিটার জলে এক পিপিএম সোডিয়াম হাইড্রোক্লোরাইড ব্যবহার করা হচ্ছে মিশ্রণে৷ মাত্র কয়েক সেকেন্ড থেমে এই শাওয়ারের এদিক থেকে অন্যদিকে চলে গেলেই জীবাণুমুক্ত হয়ে যাবে শরীরের বহিরাংশ৷” রেলের এই উদ্যোগে খুশি ও স্বস্তিতে কর্মী থেকে শুরু করে চালক, সহকারী চালক, গার্ড সহ প্রত্যেকে৷ রেলের খড়গপুর ডিভিশনের সিনিয়র ডিসিএম তথা জনসংযোগ আধিকারিক আদিত্য চোধুরি জানালেন, ‘‘এই শাওয়ার সিস্টেম লকডাউন চলা পর্যন্ত তো থাকবেই৷ চেষ্টা আছে, করোনা থেকে মুক্তি পাওয়া পর্যন্ত চালিয়ে যাওয়ার।”

দেখুন ভিডিও:

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement