১৪ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

লাভের মুখ দেখছে SAIL, স্বস্তিতে কর্মীরা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 3, 2018 6:24 pm|    Updated: June 3, 2018 6:24 pm

SAIL makes profit, staff in relief

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দুর্গাপুর: লাভ করছে সেইল। ক্ষতি কমাচ্ছে মিশ্র ইস্পাত কারখানা৷ আর এই আর্থিক উন্নতি দেখেই আশায় বুক বেঁধেছেন কর্মীরাও৷ মিশ্র ইস্পাত কারখানাকে কেন্দ্রীয় সরকার কৌশলগত বিলগ্নীকরণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে৷ আন্দোলনে নেমেছে ডান-বাম, সব রাজনৈতিক দল৷ কিন্তু এর মাঝেই রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থা সেইলের আর্থিক স্বাস্থ্য উন্নত হওয়াতেই ফের আশার আলো দেখছেন কর্মীরা৷ ইতিমধ্যেই মিশ্র ইস্পাত কারখানা কর্তৃপক্ষ সেইলকে এই কারখানার আধুনিকীকরণের প্রথম পর্যায়ের প্রস্তাবও পাঠিয়েছে৷ সব মিলিয়ে ‘ফিল গুড’ পরিবেশ মিশ্র ইস্পাত কারখানায়৷

২০১৭-১৮ অর্থ বছরের শেষ তিন মাসে সেইল ৮১৫.৫৭ কোটি টাকা লাভ করেছে৷ যা শেষ গত সাতাশটি ত্রিমাসিক ফলাফলের থেকে বেশি৷ গত আর্থিক বছরে ঠিক এই শেষ তিন মাসে সংস্থার আর্থিক ক্ষতি হয়েছিল ৭৭১.৩০ কোটি টাকা৷ গত লোকসানকে ঢেকে এই বিপুল পরিমাণ লাভ করায় সেইলের ভবিষ্যৎ নিয়ে যে প্রশ্ন উঠেছিল, তাও আপাতত ঢেকে গেল বলেই অনুমান কর্মীদের৷ এর সঙ্গে রোজগারও বৃ‌দ্ধি পেয়েছে সেইলের৷ রোজগার ৩৪.৪ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ১৭,০৩৮ কো‌টি টাকা৷ অন্যদিকে, মিশ্র ইস্পাত কারখানাও তার ক্ষতির পরিমাণ কমিয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ গত আর্থিক বছরে যেখানে ক্ষতির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫৩ কোটি টাকা, তা কমে দাঁড়িয়েছে ৪৮ কোটি টাকায়৷ তাই এই স্বাস্থ্যবৃদ্ধির পর মিশ্র ইস্পাত কারখানা নিয়ে এবার পজিটিভ কিছু ভাবনা ইতিমধ্যেই ভাবতে শুরু করেছে সেইল৷

[ চোখের সামনে ছাগলের ঘাড় মটকে দিল কুকুর! ফের আতঙ্ক ছড়াল পূর্ব বর্ধমানে ]

মিশ্র ইস্পাত কারখানা কর্তৃপক্ষ সেইলকে এই কারখানার সার্বিক আধুনিকীকরণে না গিয়ে ধাপে ধাপে আধুনিকীকরণের প্রস্তাব দিয়েছে বলে সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে৷ মোট তিনটি পর্যায়ে এই আধুনিকীকরণ হবে৷ প্রথম পর্যায়ে মোট ১২০ কোটি টাকার আধুনিকীকরনের প্রস্তাব গিয়েছে সেইলের কাছে৷ দেশীয় ইস্পাতের ব্যবহার বাড়ছে বলেই রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থা সেইলেরও লাভ বাড়ছে বলে জানা গিয়েছে৷ গত দুই বছরে সেইল তার নিজস্ব কারখানায় যে পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ করেছে আধুনিকীকরণের জন্যে। তারও সুফল ধীরে ধীরে পেতে শুরু করেছে সেইল৷ এই অবস্থায় মিশ্র ইস্পাতের চাহিদাও বাড়ছে দেশে৷ তাই মিশ্র ইস্পাত কারখানাকে বাঁচাতে চাইছে সংস্থা বলে কর্মী ও কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে৷ মিশ্র ইস্পাত কারখানার আধুনিকীকরণ ও সম্প্রসারণের জন্যে ১ হাজার ১০০ কোটি টাকার প্রস্তাব আজ থেকে পাঁচ বছর আগে ফিরিয়ে দেয় সেইল৷ সেই থেকেই শিক্ষা নিয়ে এবার আর সার্বিক আধুনিকীকরণের প্রস্তাব দেওয়া হয়নি সেইলকে৷ ধাপে ধাপে উৎপাদনের স্বার্থে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় বিভাগেই সংষ্কারের প্রস্তাব করা হয়েছে৷ মিশ্র ইস্পাত কারখানা কর্তৃপক্ষের ভূমিকাতেও খুশি শ্রমিক ও কর্মীরা৷ তাঁদের দাবি, সরাসরি কেন্দ্রীয় সরকার এখনও বিলগ্নীকরণ প্রস্তাব বাতিল নিয়ে মুখ না খুললেও সেইলের সবুজ সংকেত না থাকলে মিশ্র ইস্পাত কর্তৃপক্ষ এই প্রস্তাব পাঠাত না৷

[ আত্মঘাতীই হয়েছেন পুরুলিয়ার বিজেপি কর্মী, সিলমোহর মেডিক্যাল বোর্ডের ]

মিশ্র ইস্পাত কারখানকে বাঁচাতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়ও গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা নিয়েছেন৷ দফায় দফায় কেন্দ্রীয় ইস্পাত মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনাও করেছেন৷ কারখানাকে বাঁচাতে সিটু-আইএনটিউসির যৌথ মঞ্চের সঙ্গে ইস্পাত মন্ত্রীর ফের বৈঠকের ব্যবস্থাও করে দিয়েছেন বাবুল৷ তাই আশঙ্কা কাটিয়ে ওঠার মতন পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে মিশ্র ইস্পাত কারখানা জুড়ে৷ কারখানার সিটুর সহ-সভাপতি বিজয় কমার সাহা জানান, “কারখানাকে বাঁচাতে সব ধরনের প্রক্রিয়া চলছে৷ সব পক্ষই এই কারখানাকে ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করছে৷ শ্রমিক কর্মীরাও যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েই এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছে৷ প্রথম পর্যায়ের সংষ্কারের প্রস্তাব গৃহিত হলে সার্বিক আধুনিকাকরণের দাবি তুলব আমরা৷”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে