BREAKING NEWS

০২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বুধবার ১৮ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ছাত্রীদের সুবিধার্থে দুর্গাপুরের ১৫টি স্কুলে এবার স্যানিটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিন

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 7, 2018 6:46 pm|    Updated: July 7, 2018 6:46 pm

Sanitary pad vending machines installed in Durgapur schools

সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, দুর্গাপুরঋতুকালীন শারীরিক সমস্যা থেকে ছাত্রীদের রেহাই দিতে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিনের ভাবনা এবার দুর্গাপুরে। দুর্গাপুরের ফরিদপুর ব্লকের ১৫টি স্কুলে বসছে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিন। ফরিদপুর ব্লকে সাধারণত নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের বসবাস। তাই বয়ঃসন্ধির সময়ে কেউ কেউ ঋতুকালীন সমস্যার জেরে কয়েকদিনের জন্য স্কুলে আসে না। অনেক ছাত্রী আবার স্কুলেই আসাই ছেড়ে দেয়। বাজার চলতি স্যানিটারি ন্যাপকিনের বদলে ঘরোয়া ব্যবস্থা অবলম্বন করে অনেকেই জটিল রোগের শিকার হয়। ছাত্রীদের এহেন সমস্যা থেকে মুক্তি দিতেই স্কুলগুলিতে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিন বসানোর সিদ্ধান্ত নিল দুর্গাপুর ফরিদপুর ব্লক প্রশাসন।

[পাহাড়ের নিচে ১০ কোটি বছরের জীবাশ্ম, বীরভূমে ঐতিহাসিক খোঁজ]

ব্লক প্রশাসন সূত্রের খবর, প্রাথমিকভাবে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ভেন্ডিং মেশিন বসছে ব্লকের এগারোটি হাইস্কুল ও বেশ কয়েকটি মাধ্যমিক শিক্ষাকেন্দ্র ও জুনিয়র হাইস্কুলে। এরফলে ব্লকের সাড়ে সাত হাজার ছাত্রী উপকৃত হবে। ইতিমধ্যেই ভেন্ডিং মেশিনের হালহকিকত জানতে বিভিন্ন এজেন্সির সঙ্গে কথাবার্তা শুরু করেছেন ব্লকের আধিকারিকরা। কোন কোন মেশিনে ঠিক কি ধরনের সুবিধা মিলবে তার খোঁজখবর চলছে।  মেশিন কেনা ও বসানোর খরচ বাবদ সাড়ে ছ’লক্ষ টাকা বাজেট ধার্য হয়েছে। পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়ন পর্ষদের অর্থেই কেনা হবে যন্ত্রগুলি।

 

কোথা থেকে মিলবে স্যানিটারি ন্যাপকিন?

এখানেও লাভবান হবে দুর্গাপুর ফরিদপুর ব্লকের স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলি৷ এই মুহূর্তে সংশ্লিষ্ট ব্লকের মোট চারটি স্বনির্ভর গোষ্ঠী একশো দিনের প্রকল্পে স্যানিটারি ন্যাপকিন তৈরি করছে৷ তাদের কাছ থেকেই নেওয়া হবে ন্যাপকিন৷ ব্লক প্রশাসনের অনুমান, স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলি চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত পরিমাণে ন্যাপকিন সরবারহ করতে পারবে। খুবই স্বল্প মূল্যে ভেন্ডিং মেশিন থেকে মিলবে ন্যাপকিন৷ ব্যবহৃত ন্যাপকিন বাইরে ফেললে পরিবেশ দূষণের সম্ভবনা রয়েছে। সেকথা মাথায় রেখেই যন্ত্রের সাহায্যে যাতে ব্যবহৃত ন্যাপকিন পুড়িয়ে ফেলা যায় সেই খোঁজেও রয়েছে দুর্গাপুর ফরিদপুর ব্লক প্রশাসন৷

[মেরিট লিস্টে নাম থাকলেও মেলেনি সিট, আত্মঘাতী মেধাবী পড়ুয়া ] 

জানা গিয়েছে, এলাকার বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি ছাত্রীদের এই সমস্যা সমাধানে ব্লক প্রশাসনকে উদ্যোগী হতে অনুরোধ করেছিলেন৷ তারই অনুপ্রেরনায় প্রশাসনের এই উদ্যোগ৷ দুর্গাপুর ফরিদপুর ব্লকের বিডিও শুভ সিনহা রায় জানান, “ছাত্রীদের সুবিধার্থে এবার স্কুলেই স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটারি ন্যাপকিন পাওয়া যাবে। ব্লকের তরফে সেই উদ্যোগই নেওয়া হচ্ছে৷ সব ঠিক থাকলে চলতি মাসের মধ্যেই বসানো যাবে ‘স্যানিটারি ন্যাপকিন ভেন্ডিং মেশিন’৷ ঋতুকালীন শারীরিক সমস্যায় যাতে চিকিৎসকেরও পরামর্শ স্কুলে পাওয়া যায় তারও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে৷”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে