৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংগ্রাম সিংহরায়, শিলিগুড়ি: মাল্টিপ্লেক্সের প্রেক্ষাগৃহ কানায় কানায় ভরতি। বড় পর্দায় তখন এনকাউন্টারের দৃশ্যে জন আব্রাহাম ভীষণভাবে নির্দয়। চোখে আলো সয়ে আসতেই আবার চমক। পর্দার পুলিশ কীভাবে বাইরে? প্রেক্ষাগৃহের আসন তখন খাকি পোশাকে ভরা। এ কী আবার নতুন ডায়মেনশনের ছবি নাকি? ভুল ভাঙালেন উদ্যোক্তা রোটারি ক্লাবের এক প্রতিনিধি।

আসন অলংকৃত করা ওরা কেউ পুলিশ নন। সকলেই সশস্ত্র সীমা বল অর্থাৎ এসএসবি জওয়ান। তাঁদের জন্যই রবিবার শিলিগুড়ির মাটিগাড়ার ওই প্রেক্ষাগৃহে বিশেষ স্ক্রিনিংয়ের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। আর তাঁরাও তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করলেন পুরো সিনেমাটাই। পর্দার জন আব্রাহাম যেন তখন প্রত্যকের মধ্যে যেন ঢুকে গিয়েছেন। গোটা প্রেক্ষাগৃহে তখন পর্দা আর বাস্তব মিলেমিশে একাকার।

[আরও পড়ুন:  শুটিংয়ে সামান্য এসি নিয়ে বচসায় জড়ালেন রজতাভ-অপরাজিতা! তারপর…]

সদ্য স্বাধীনতা দিবস পার হয়েছে। তবে তার উদযাপন চলছে এখনও। শিলিগুড়িতে এবার অন্য রকম স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে অংশ নিলেন  এসএসবির শিলিগুড়ি ফ্রন্টিয়ারের ৪১ ব্যাটেলিয়নের জওয়ানরা। সৌজন্যে শহরের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা রোটারি ক্লাব। তাদের তরফে এদিন এসএসবি জওয়ানদের জঙ্গি দমন নিয়ে টানটান উত্তেজনার ছবি ‘বাটলা হাউস’ দেখানো হয়। ছবি দেখে তাঁরা যে খুশি, তা গোপন করেননি জওয়ানদের কেউই। শিলিগুড়ি ফ্রন্টিয়ারের ডিআইজি অমিত কুমার বলেন, “কাজের মধ্যে এমন ওয়ার্কিং অফ ডে বিরল। তার মধ্যে আমাদের জওয়ানরা যেভাবে সারা বছর ডিউটি করেন, এই উদ্যোগ তাঁদেরকে একটু বিরতি দেবে। যা তাঁদের কাজে বাড়তি অক্সিজেন যোগাবে। আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাব। এমন উদ্যোগ আরও নেওয়া হোক সে অনুরোধ রাখবো আয়োজকদের কাছে।

[আরও পড়ুন:  ‘রোগা হওয়ার ট্যাবলেটে বিশ্বাসী নই’, ১০ কোটি টাকার বিজ্ঞাপন ফেরালেন শিল্পা শেট্টি]

আয়োজকদের তরফ থেকে সন্দীপ ঘোষাল জানান, স্বাধীনতা সপ্তাহ উপলক্ষে বিভিন্ন রকম অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় সংগঠনের তরফে। তারই অঙ্গ হিসেবে এই উদ্যোগ। অন্যতম আয়োজক সঞ্জয় শর্মা বলেন, “এবার স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে একটু অন্য রকম চিন্তাভাবনা ছিল। যাঁরা লাগাতার দেশের সুরক্ষার জন্য কাজ করে চলেছেন, তাঁদের নিয়ে একটা দিন অন্যরকমভাবে উদযাপন করার পরিকল্পনা ছিল। অন্যদিকে যাদের জন্য আয়োজন, সেই এসএসবি জওয়ানদের মধ্যে এদিন ব্যাপক উৎসাহ ছিল। এক জওয়ান জানালেন, সিনেমাটি অত্যন্ত গ্রহণযোগ্য। পরিবার নিয়ে দেখার মতো সিনেমা। এমন একটা আয়োজনের অংশ হতে পেরে খুশি তিনি। অপর জওয়ান জানান, দারুণ অভিজ্ঞতা। ফের এমন উদ্যোগে শামিল হতে চান।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং