BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বোঝাপড়া রেল ও রাজ্যের, জট কাটছে সব প্রকল্পের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 10, 2016 12:49 pm|    Updated: June 10, 2016 12:58 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: মুম্বইয়ের মতো কলকাতাতেও চালু হচ্ছে ‘ইন্টিগ্রেটেড ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম’৷ একইসঙ্গে রাজ্য ও রেলের পারস্পরিক উদ্যোগ ও সমন্বয়ে কাটতে চলেছে দীর্ঘদিনের জোকা- বিবাদী বাগ মেট্রো প্রকল্পের জট৷ আর এর পাশাপাশি রাজ্যের পরিকাঠামো উন্নয়নে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়ে সরাসরি আগ্রহ প্রকাশ রেল মন্ত্রকের৷
বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভুর ঘন্টাখানেকের বৈঠকে বাংলার প্রাপ্তির ভাঁড়ার ভরল অনেকটাই৷
আর এ সবের মাঝেই অকুন্ঠে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেশের অত্যন্ত সফল একজন রেলমন্ত্রী হিসাবে স্বীকার করতেও দ্বিধা করলেন না প্রভু৷ বললেন, “পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে৷ রাজ্য সরকার সবরকম সাহায্য করার প্রতিশ্রূতি দিয়েছে৷”
পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব রেলের একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধনে এদিন কলকাতা এসেছিলেন প্রভু৷ দিনভর নানা কর্মসূচির ফাঁকে নবান্নে এসে রাজ্যের প্রকল্প নিয়ে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে৷ বৈঠক শেষে একসঙ্গে সাংবাদিক সম্মেলনও করেন দু’জনে৷ সেখানেই প্রভু জানিয়ে দেন, বাংলার পরিকাঠামো উন্নয়নে বিনিয়োগ বাড়ানোর উপর জোর দিচ্ছে রেল৷ রাজ্য চাইলে রেল যৌথ অংশীদারির ভিত্তিতে বাংলার উন্নয়নে শামিল হতে চায়৷ জোকা-বিবাদী বাগ সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্পের জট কাটাতে রাজ্য ও রেলের সমন্বয়ের উপরও জোর দিয়েছেন তিনি৷
মুখ্যমন্ত্রী ও রেলমন্ত্রীর আলোচনার মূল বিষয়ভাবনা ছিল রাজ্যে বর্তমান রেল পরিকাঠামোর সংস্কারসাধন, উন্নয়ন ও প্রসারণ৷ এবিষয়ে প্রভুর মন্তব্য, “ইতিমধ্যেই এ রাজ্যের প্রকল্পগুলিতে বিনিয়োগের প্রশ্নে আমরা নিজেদের অংশীদারিত্ব বৃদ্ধি করেছি৷ কলকাতায় ইন্টিগ্রেটেড ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম চালু করাই আমাদের লক্ষ্য৷” আর সেই সুরেরই প্রতিধবনি তুলে প্রভুর কাছে রাজ্যের বিভিন্ন চালু প্রকল্পগুলির পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে কেন্দ্রীয় দল পাঠানোর আবেদন জানান মুখ্যমন্ত্রী৷
এদিনের বৈঠকে প্রত্যাশিতভাবেই ওঠে ইস্ট-ওয়েস্ট ও জোকা-বিবাদী বাগ মেট্রো প্রকল্পের প্রসঙ্গ৷ নানা জটে এই দুই প্রকল্পের রূপায়ণ দীর্ঘায়িত হচ্ছে৷ আলোচনায় সেই জট অনেকটাই কেটেছে বলে নবান্ন-সূত্রে দাবি৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “জোকা মেট্রো প্রকল্পে প্রয়োজনে পুনর্বাসন দেবে রাজ্য সরকার৷ আমরা চাই যত দ্রূত সম্ভব এই কাজ শেষ হোক৷” এসময় রেলমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, “জোকা-বিবাদী বাগ মেট্রোর পথে অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা পড়ছে৷ তাছাড়া এই এলাকাও খুব ঘিঞ্জি৷ তাই তাড়াতাড়ি কাজ শেষ যাতে হয়, সেটা একটু দেখুন৷” ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো নিয়ে রেলমন্ত্রকের এক কর্তা জানান, এই কাজ দুই পর্যায়ে হচ্ছে৷ একটা ভাগ সেক্টর ফাইভ থেকে শিয়ালদহ স্টেশন৷ অন্য ভাগ শিয়ালদহ থেকে হাওড়া ময়দান৷ ইতিমধ্যে হাওড়ায় গঙ্গার নিচ দিয়ে টানেল তৈরির কাজ শুরুও হয়েছে বলে রেলকর্তা জানান৷
এর আগে হাওড়া স্টেশনে একঝাঁক প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেও রেল ও রাজ্যের যৌথ উদ্যোগের কথা বলেছেন প্রভু৷ বলেছেন, রেলের উন্নয়নে এগিয়ে আসতে হবে রাজ্যকেও৷ যৌথ অংশীদারিত্বে কাজ করতে হবে দু’জনকে৷ এজন্য রাজ্যকে আহ্বান জানানো হচ্ছে৷ আরপিএফ ও জিআরপি যাতে এবিষয়ে সমন্বয় রেখে কাজ করে সেজন্যও আবেদন জানানো হয়েছে রাজ্যের কাছে৷ পাশাপাশি রেল স্টেশন ও লাইনের ধারে জবরদখল থাকায় রেলের কাজ ব্যাহত হওয়ার প্রসঙ্গও তোলেন তিনি৷ যদিও তাঁর কথায়, উচ্ছেদের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে আইনশৃঙ্খলার বিষয়টি৷ তিনি জানান, রেলমন্ত্রক পশ্চিমবঙ্গকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে৷ তাঁর কথায়, এই রাজ্যেই প্রথম সব লেভেল ক্রসিংয়ে প্রহরা বসানো হয়েছে৷ মেট্রো প্রকল্পগুলি দ্রূত শেষ করার জন্য ৩৭১ কোটি টাকা খরচ করা হচ্ছে শিয়ালদহ-ধর্মতলার মাঝে৷ এদিন দূরসঞ্চার পতিতে হাওড়া স্টেশন থেকে প্রভু উদ্বোধন করেন আরামবাগ-গোঘাটের মধ্যে নতুন লাইন, বজবজে বগি নির্মাণ কারখানা,আগরপাড়া ও তিলভিটায় ফুট ওভারব্রিজ, পলাশি-বেলডাঙার মাঝে ডবল লাইন, মুরারইতে পিআরএস ইত্যাদি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement