BREAKING NEWS

৮ মাঘ  ১৪২৮  শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে জোর, স্কুলপাঠ্যে এবার বিবেকানন্দের শিকাগো বক্তৃতা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 29, 2018 8:24 pm|    Updated: July 15, 2019 1:35 pm

Swami Vivekananda's historic Chicago speech will be included in syllabus

দীপঙ্কর মণ্ডল: গোষ্ঠী সংঘর্ষ বাড়ছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় আরও বেশি বিবেকানন্দের চর্চা চাইছে রাজ্য সরকার। স্কুলপাঠ্যে এবার অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে স্বামী বিবেকানন্দের বক্তৃতা। নবান্ন থেকে নির্দেশ এসেছে স্কুল শিক্ষা দপ্তরে। ঘনঘন বৈঠক করছেন আধিকারিকরা। প্রাথমিকভাবে ঠিক হয়েছে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে স্বামী বিবেকানন্দর শিকাগো বক্তৃতা সিলেবাসে রাখা হবে।

[  রাজ্য জুড়ে অশান্তি বন্ধে গীতা, কোরান বিলি করবে ছাত্র পরিষদ ]

দেশের জাতীয় এবং আঞ্চলিক কোনও বোর্ডেই শিকাগো বক্তৃতা পড়ানো হয় না। রাজ্যের এমন সিদ্ধান্ত যে অভিনব এবং সময়োপযোগী তা নিয়ে দ্বিমত নেই শিক্ষামহলে। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে এই বিষয়ে উদ্যোগী হয়েছেন। সূত্রের খবর, তিনি শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে দ্রুত পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, চলতি বছরে স্বামীজির শিকাগো বক্তৃতার ১২৫ বছর। ১৮৯৩ সালে ১১ সেপ্টেম্বর আমেরিকার মানুষের হৃদয় জয় করেছিলেন তরুণ স্বামীজি। বক্তৃতার শুরুতে তিনি দর্শকদের উদ্দেশ্যে, “আমার আমেরিকাবাসী ভাই ও বোনেরা” সম্বোধন করেছিলেন। প্রথম বাক্যেই তিনি সবার মন জয় করে নেন। তারপর অনুরোধের ঝড় আসতে শুরু করে। ধর্মমহাসভায় আরও পাঁচদিন এবং আমেরিকার বিভিন্ন প্রান্তে হিন্দু ধর্মের প্রকৃত অর্থ ব্যাখ্যা করেন স্বামীজি। অন্য সমস্ত ধর্মকে সম্মান জানিয়ে তিনি হিন্দু ধর্মের সহিষ্ণুতার কথা জানান বর্হিবিশ্বকে। স্বামীজির শিকাগো বক্তৃতার পর আমেরিকায় হিন্দু ধর্মের  প্রবল জনপ্রিয়তা তৈরি হয়। নিজের ধর্মকে রক্ষা করেও অন্য ধর্মকে শ্রদ্ধার বাতাবরণ তৈরি হয় বিশ্ব জুড়ে। স্বামীজির সেই ঐতিহাসিক বক্তৃতা এবার স্কুলপাঠ্যে অন্তভুর্ক্ত করার আলোচনা চলছে। তবে কোন ক্লাসে তা পড়ানো হবে এখনও ঠিক হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী এবং শিক্ষামন্ত্রীর অনুমতি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে স্কুল শিক্ষা বিশেষজ্ঞ কমিটি। কমিটির চেয়ারম্যান অভীক মজুমদার এ প্রসঙ্গে বলেন, “বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে। কোন ক্লাসে স্বামীজির বক্তৃতা পড়ানো হবে তা এখনও ঠিক হয়নি।”

[  অ্যাপেলো কাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত দুই চিকিৎসক, সাময়িকভাবে বাতিল লাইন্সেস ]

১৯৭৭ সাল পর্যন্ত স্কুলে স্বামীজির লেখা ‘প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য’ পড়ানো হত। পাঠ সংকলনে প্রবন্ধটি অন্তভুর্ক্ত ছিল। কিন্তু বামেরা ক্ষমতায় আসার পর তা তুলে দেয়। ২০১১ সালে মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ব্যাপকভাবে স্বামীজির চর্চা শুরু করেন। ২০১৩ সাল থেকে এক বছর ধরে বিবেকানন্দর জন্মের সার্ধ শতবর্ষ রাজ্য জুড়ে মহা সমারোহে পালিত হয়। চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিকাগো বক্তৃতার ১২৫ বছর উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নবান্ন। সেই উৎসব উদযাপনের বৈঠকে স্কুল সিলেবাসে স্বামীজিকে ফের অন্তভুর্ক্ত করার বিষয়ে আলোচনা হয়। মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে ধাপে ধাপে স্কুলশিক্ষা দপ্তরে সেই বার্তা পৌঁছেছে। এক আধিকারিক এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, “শিকাগো বক্তৃতার মাধ্যমে বিশ্ববাসীকে গভীর বার্তা দিয়েছেন স্বামীজি। অল্পবয়সি ছাত্রছাত্রীদের পক্ষে সেই বার্তা বোঝা সম্ভব নয়। তাই আমরা চাইছি উচ্চমাধ্যমিক স্তরে শিকাগো বক্তৃতা পড়ানো হোক।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে