BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘স্বপন দেবনাথ, অনুব্রত মণ্ডলরা বিকাশ দুবে হয়ে যাবেন’, হুঁশিয়ারি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 15, 2020 6:27 pm|    Updated: September 15, 2020 6:32 pm

An Images

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ, বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে বিকাশ দুবের (Vikash Dubey) মতো এনকাউন্টারের হুমকি দিলেন বিজেপি রাজ্য সম্পাদক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় (Raju Banerjee)। কালনায় বিজেপি কর্মী খুনের প্রতিবাদে সভা থেকে তাঁর স্পষ্ট হুঁশিয়ারি, ”স্বপন দেবনাথই হোক আর অনুব্রত মণ্ডলই হোক, বিকাশ দুবে হয়ে যাবেন সবাই। জ্বলবে কালনা থানা।” দোষীদের দ্রুত গ্রেপ্তারির দাবিতে এদিন বিজেপির প্রতিবাদ সভা ছিল কালনায় (BJP Protest Rally at Kalna)। সেখান থেকেই এমন তপ্ত সুরে বক্তব্য রাখেন তিনি।

গত ৫ তারিখ। রাস্তায় ১০০ দিনের প্রকল্পের কাজ চলাকালীন গাছের ডাল কাটায় বাধা দেওয়া ঘিরে উত্তেজনা ছড়ায় পূর্ব বর্ধমানের কালনার পাথরঘাটা গ্রামে। এক শ্রমিককে হাঁসুয়া দিয়ে কোপ মারেন স্থানীয় একজন। এরপর প্রকল্পের কাজে যুক্ত শ্রমিকদের গণপ্রহারে হাসপাতালে মৃত্যু হয় রবীন পাল নামে ওই ব্যক্তির। শুরু হয় রাজনৈতিক চাপানউতোর। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূলের সমর্থকরাই খুন করেছে রবীনকে। তিনি বিজেপি করতেন বলেই পরিকল্পনামাফিক হামলা হয়েছে তাঁর উপর। এই অভিযোগ উড়িয়ে জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র দেবু টুডু দাবি করেন, এই ঘটনাকে হাতিয়ার করে বিজেপি এখন ঘোলা জলে মাছ ধরতে চাইছে।

[আরও পড়ুন: ট্রেন চললে বাড়তে পারে অপরাধ, দাগী অপরাধীদের উপর কড়া নজর রেল পুলিশের]

ঘটনায় এখনও পর্যন্ত দু’পক্ষের বেশ কয়েকজন গ্রেপ্তার হলেও বিজেপির দাবি, মূল অভিযুক্ত তৃণমূল পরিচালিত স্থানীয় পঞ্চায়েতের উপপ্রধান। তাই তাঁকে গ্রেপ্তারির দাবিতে সুর চড়াতে মঙ্গলবার কালনা বাসস্ট্যান্ডের কাছে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে বিজেপি। সেখানেই রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় এমন উত্তপ্ত সুরে হুঁশিয়ারি দিলেন। বললেন, ”স্বপন দেবনাথ (Swapan Debnath) বা অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mandal), সবাই বিকাশ দুবে হয়ে যাবেন।”

[আরও পড়ুন: কথা রাখলেন হাসিনা, পুজোর আগেই পেট্রাপোলে ঢুকল পদ্মার ইলিশ]

এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি গ্রেপ্তারি নিয়ে একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন। বলেন, ”পুলিশ সঠিক দোষীকে গ্রেপ্তার করতে পারছে না। সাহস নেই। আমরা ৪ দিন সময় দিয়েছি। যদি প্রকৃত দোষী গ্রেপ্তার না হয়, তাহলে তারপর কালনা থানায় কিছু হলে আমাদের কেউ কিছু বলবেন না। আমরা জানি না, কালনায় থানায় তারপর কী হবে।” আগেই তিনি কালনা থানা জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন। বিজেপি রাজ্য সম্পাদকের এই তপ্ত কথায় দলীয় কর্মীদের আন্দোলনের জোর আরও বাড়বে বলে মত রাজনৈতিক মহলের একাংশের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement