৪ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

তোলাবাজির প্রতিবাদে পুলিশের বিরুদ্ধে পোস্টার তৃণমূলের, চাঞ্চল্য বালুরঘাটে

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: October 7, 2018 7:48 pm|    Updated: October 7, 2018 7:48 pm

The ruling Trinamool is against the police

রাজা দাস, বালুরঘাট: জুয়া ও তোলাবাজির প্রতিবাদে পুলিশের বিরুদ্ধেই এবার সরব শাসক তৃণমূল৷ হিলিতে পোস্টার সাঁটানোর পাশাপাশি থানায় ডেপুটেশন ঘাসফুল শিবিরের৷ তবে, এই ঘটনার পিছনে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি৷

[সহ্যের অতীত, ছেলে কর্ণকে প্রাণে মেরে ফেলতে চেলেছিলেন বৃদ্ধ বাবা]

জানা গিয়েছে, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সীমান্তবর্তী হিলির বিভিন্ন এলাকায় তৃণমূলের পক্ষ থেকে পোস্টার সাঁটানো হয়েছে। সেখানে লেখা রয়েছে, ‘‘দাঙ্গা তোলাবাজদের দৌরাত্ম্য বন্ধ করে এক্সপোর্ট-ইমপোর্ট চালু রাখতে হবে হিলিতে। জুয়া সহ সমস্ত অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধ করতে হবে।’’ প্রকাশ্যে এহেন পোস্টার উদ্ধারকে কেন্দ্র করে কার্যত পুলিশ প্রশাসনের নিস্ক্রিয়তার বিরুদ্ধেই সরব হয়েছেন স্থানীয়দের একাংশ৷ পোস্টারগুলি নজরে আসতেই তোলপাড় শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে৷ হিলি তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে এমন পোস্টার পড়েছে বলে দাবি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির।

এদিকে, পুলিশি ভূমিকার প্রতিবাদে পোস্টার লাগানোর কথা স্বীকার করলেও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বিষয়টি অস্বীকার করা হয়েছে হিলি ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে।  তৃণমূল ব্লক সভাপতি বিকাশ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে পোস্টার লাগানো হয়েছে। রবিবার বিকেলে হিলি থানায় আলোচনার মাধ্যমে তারা তাদের দাবি-দাওয়া পেশ করবেন৷’’

[বঙ্গতনয়ার বিশ্বজয়, মার্কিন মুলুকে পাওয়ার লিফটিংয়ে সোনা হুগলির শম্পার]

বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার বলেন, ‘‘সেবা নয়, এদের একমাত্র উদ্দেশ্য আয়। হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানিতে তৃণমূলের একপক্ষ সক্রিয়, অপরপক্ষ পিছিয়ে পড়েছে। তখনই তারা  বিরুদ্ধাচরণ করছে নানা ভাবে। এই কারণেই এমন পোস্টার পড়েছে। হিলিতে তৃণমূলের দু’পক্ষের বিবাদ কোনও পর্যায়ে তা স্থানীয়দের জানা৷’’  নতুন কিছু নয় বলেও দাবি করেন শুভেন্দু সরকার।  

বাংলাদেশে পাথর রপ্তানি নিয়ে দিন কয়েক ধরেই বিবাদ দু’পক্ষের ব্যবসায়ীদের। এর জেরে গত ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে হিলি আন্তর্জাতিক স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে পাথর রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়। দু’দিনের জন্য বন্ধ ছিল সব ধরণের আমদানি-রপ্তানির কাজ। গত ৩ অক্টোবর দুই দেশের ব্যবসায়ীদের যৌথ আলোচনায় ফের ব্যবসা শুরু হয়েছে। কিন্তু এখনও দুই পক্ষের  মধ্যে বিরোধ চলছেই। আর এর জেরেই এলাকায় পোস্টার পড়েছে বলে দাবি স্থানীয়দের৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে