৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বান্ধবী-সহ গেস্ট হাউস থেকে হাতেনাতে ধরা পড়লেন সাগরদিঘির বিধায়ক সুব্রত সাহার ছেলে। স্ত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই পূর্ত দপ্তরের গেস্ট হাউস থেকে বিধায়ক পুত্র সপ্তর্ষি সাহাকে আটক করেছে পুলিশ। তাঁর সঙ্গী যুবতীকেও আটক করা হয়েছে। যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেই দাবি করেছেন বিধায়ক পুত্র। তাঁর দাবি, ফাঁসানো হচ্ছে তাঁকে।

[আরও পড়ুন:নুুন-ভাতের পর বিস্কুট, মিড ডে মিলে এই খেয়েই বাড়ি ফিরছে পড়ুয়ারা]

জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরেই স্ত্রীর সঙ্গে অশান্তি চলছিল বিধায়ক পুত্র তথা তৃণমূল নেতা সপ্তর্ষি সাহার। এমনকি স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগও ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে। অশান্তির জেরে মাস ছয়েক আগে বাপের বাড়ি চলে যান তাঁর স্ত্রী। এরপর স্বামীর বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতনের অভিযোগ তুলে থানার দ্বারস্থও হন তিনি। এরই মধ্যে সপ্তর্ষিবাবুর স্ত্রী জানতে পারেন, পূর্ত দপ্তরের গেস্ট হাউসে এক যুবতীকে নিয়ে থাকতে শুরু করেছেন সপ্তর্ষি। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন তিনি। বাধ্য হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ স্ত্রী। পরিকল্পনা মাফিক বুধবার পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে নিয়ে গেস্ট হাউসে চড়াও হন তিনি। সেখানকার একটি ঘর থেকে উদ্ধার হন ওই তৃণমূল নেতা ও তাঁর বান্ধবী। ঘটনাস্থল থেকেই তাঁদের আটক করে পুলিশ।

যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেই দাবি করেছেন সপ্তর্ষিবাবু। তাঁর পালটা অভিযোগ, “দীর্ঘদিন ধরেই স্ত্রীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছিল না। আমি ওঁর সঙ্গে থাকতে চাই না। সেই কারণে মিথ্যে বধূ নির্যাতনের মামলায় আমাকে ফাঁসানো হচ্ছে।” সপ্তর্ষিবাবুর সঙ্গে থাকা ওই যুবতীর দাবি, একটি বিশেষ কাজে সেখানে গিয়েছিলেন তিনি। অন্যায়ভাবে তাঁকে আটক করা হয়েছে। পুলিশের আধিকারিকরা জানান, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। দুই পরিবার ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে, ঘটনাটি খতিয়ে দেখে অভিযুক্তদের শাস্তি দেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন:সার্থক ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি, স্থানীয়দের সমস্যা শুনতে পঞ্চায়েতেই বসবেন বিডিও]

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং