BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘যুব মানেই দুর্নীতি, জমির দালালি’, দলের যুব সংগঠনকে বেনজির আক্রমণ উদয়ন গুহর

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 31, 2020 10:51 am|    Updated: August 31, 2020 11:07 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যুব তৃণমূলের প্রতি বার্তা দিতে গিয়ে ফের বিস্ফোরক মন্তব্য করে বসলেন দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ (Udyan Guha)। রবিবার সেখানকার এক কর্মসূচি থেকে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ”লাল চুল আর কানে দুল নিয়ে চাকরির নামে টাকা তোলা আর জমির দালালি করা যুবদের তৃণমূলে দরকার নেই।” স্বভাবতই তাঁর এই মন্তব্য মোটেই ভালভাবে নেয়নি যুব তৃণমূলন নেতৃত্ব। যুবর অন্দরে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। যদিও বিধায়কের এই মন্তব্য নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ স্থানীয় যুব তৃণমূল নেতৃত্ব।

রবিবার দিনহাটায় তৃণমূলের এক কর্মসূচি ছিল। সেই মঞ্চে দলে ফিরিয়ে নেওয়া হয় একদা বহিষ্কৃত স্থানীয় যুব তৃণমূল নেতা জয়দীপ ঘোষকে। জয়দীপ দিনহাটা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রকে খুনের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত ছিল। এরপরই তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। সম্প্রতি আদালত থেকে জামিন পেয়ে এলাকায় ফিরেছে সে। সূত্রের খবর, বিধায়ক উদয়ন গুহর ঘনিষ্ট এই যুবনেতা জয়দীপ ঘোষ। তাঁর উদ্যোগেই ফের দলে তার জায়গা হয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একটা বড় অংশ।

[আরও পড়ুন: জঙ্গলমহল ছাড়ছে মাওবাদী দমনে দক্ষ নাগাবাহিনী, আপাতত ক্যাম্পের দায়িত্বে রাজ্য পুলিশই]

রবিবার তাকে দলে ফিরিয়েও যুবদের উদ্দেশে কড়া বার্তা দিলেন বিধায়ক। বললেন, ”যুব নেতা মানেই লাল চুল, কানে দুল নিয়ে জমির দালালি আর চাকরি দেওয়ার নামে তোলাবাজি। এসব করলে দলে থাকার দরকার নেই।” প্রকারান্তরে তৃণমূল বিধায়ক দলের যুব সংগঠনের দুর্নীতিগ্রস্ততার কথা স্বীকার করে নিলেন বলে মন্তব্য বিরোধী রাজনৈতিক শিবিরের।

[আরও পড়ুন: ভিডিও কলে রোগীকে করোনা টেস্টের পরামর্শ, হুমকির মুখে দক্ষিণ বারাকপুরের মহিলা চিকিৎসক]

দুর্নীতির অভিযোগে রাজ্যের শাসকদলের কাঠগড়ায় ওঠা নতুন কিছু নয়। সম্প্রতি আমফান দুর্যোগের ক্ষতিপূরণ নিয়েও ছোট-বড় স্তরের নেতাদের বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এই অভিযোগ থেকে বেরিয়ে এসে আগেও স্বচ্ছতার বার্তা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমফান দুর্নীতি নিয়ে তিনি আরও কড়া হয়েছেন। দলের কোনও স্তরেই কোনও দুর্নীতি বরদাস্ত নয় বলে স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি। সেখানে দাঁড়িয়ে উদয়ন গুহর দুর্নীতি-বিরোধী বার্তা হয়ত স্বাভাবিক। কিন্তু তা করতে গিয়ে তিনি দলেরই যুব সংগঠনের প্রতি যে ভাষায় কথা বললেন, তাতে যুবদের মনোবলে খানিকটা চিড় ধরতে পারে বলে আশঙ্কা। এতে তাঁদের উদ্যমে ভাটা পড়তে পারে, ক্ষতি হতে পারে। এমনই পর্যবেক্ষণ সংশ্লিষ্ট মহলের একাংশের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement