১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ২৬ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘লাল ফেট্টি খুলে গেরুয়া ফেট্টি পরে তাণ্ডব চালাচ্ছে ওঁরা’, জঙ্গলমহলে বিস্ফোরক মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Kumaresh Halder |    Posted: November 28, 2018 2:29 pm|    Updated: November 28, 2018 2:31 pm

TMC to fight polls in 3 states

সুমিত বিশ্বাস, পুরুলিয়া: আগামী লোকসভা নির্বাচনে ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা ও অসমে তৃণমূল বেশ কিছু আসনে প্রার্থী দেবে। এবং সেই আসনগুলিতে তৃণমূল একাই লড়বে বলে ঘোষণা করলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আজ, বুধবার পুরুলিয়ার বলরামপুরে একটি জনসভার মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা, ‘‘আগামী লোকসভা নির্বাচনে কেন্দ্র সরকার গঠনের ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা পালন করবে তৃণমূল৷ আর সেই লক্ষ্যে আমরা এগিয়ে চলেছি৷’’ তিনি বলেন, জঙ্গলমহল লাগোয়া রাজ্যগুলিতে বুথস্তরে সংগঠন মজবুত করতে হবে। সেই রাজ্যগুলিতে লোকসভা নির্বাচনে লড়বে তৃণমূল। 

[অধ্যাপকদের ‘লুঙ্গি ডান্স’ বিতর্ক মেটাতে অবশেষে পদক্ষেপ বিশ্বভারতীর]

এদিনের এই জনসভার মঞ্চ থেকে বিজেপি কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন৷ রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটাতে বিজেপি ভিনরাজ্য থেকে গুন্ডা পাচ্ছে বলেও অভিযোগ তোলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ বলেন, ‘‘ঝাড়খণ্ড থেকে গুন্ডা আনানো হচ্ছে৷ জঙ্গলমহলে ঢুকে বিজেপির গুন্ডারা তাণ্ডব চালাচ্ছে৷’’ বাম ও সিপিএমকে কাঠগড়ায় তুলে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘যারা মাথায় গেরুয়া ফেট্টি বেঁধে তাণ্ডব চালাচ্ছে, তারা আগে সিপিএমের লাল ফেট্টি বাঁধত৷ মানুষকে ভয় দেখিয়ে নোংরা রাজনীতি চলছে৷ এটা আমরা মেনে নেব না৷ এর বিরুদ্ধে তৃণমূল লড়াই চালিয়ে যাবে৷’’ দীর্ঘদিন বাদে বলরামপুরে মমতার রাজনৈতিক সভা তাৎপর্যপূর্ণই বটে। কারণ গত পঞ্চায়েত ভোটে এই বলরামপুরে সবকটি পঞ্চায়েত সমিতি হাতছাড়া হয় তৃণমূলের। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, তার অন্যতম কারণ জঙ্গলমহলের বাসিন্দাদের প্রাক্তন জেলা সভাধিপতি সৃষ্টিধর মাহাতোর প্রতি ক্ষোভ। তাঁর দূর্নীতির বহর এমন জায়গায় পৌঁছায় যে সাধারণ মানুষ বীতশ্রদ্ধ হয়ে গেরুয়া শিবিরকে ভোট দেন। সেই প্রসঙ্গও মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘শুধুমাত্র সৃষ্টিধরের কাজ দেখে কেন ভোট দেবেন? জঙ্গলমহলে এত উন্নয়ন হয়েছে সেগুলো দেখে তৃণমূলের পাশে থাকুন।’ মমতা সাংসদ তথা পুরুলিয়া জেলার পর্য়বেক্ষক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নির্দেশ, জঙ্গলমহলে প্রত্যেক বুথে বুথে সংগঠনকে মজবুত করতে হবে। বলরামপুরে হারানো জমি পুনরুদ্ধারে কতটা মরিয়া তৃণমূল, তা মমতার বক্তব্যেই স্পষ্ট।

[দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে ৩ সন্তানের মাকে বিয়ে প্রেমিকের]

ঝাড়খণ্ড ও অসমে বিজেপি গোহারা হারবে বলেও কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ বলেন, ‘‘ঝাড়খণ্ডে কোনও উন্নয়ন হয়নি৷ ওখান থেকে মানুষ বাংলায় আসছেন কাজের জন্য৷ বাংলায়  এসে বিনামূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছেন ঝাড়খণ্ডের মানুষ৷ ওখানে কোনও উন্নয়নই হয়নি৷ আমরা ঝাড়খণ্ডের সাধারণ মানুষের পাশে আছি৷ আগামী লোকসভা ভোটে তৃণমূল ঝাড়খণ্ডে একাই প্রার্থী দেবে৷’’ অসমের এনআরসি প্রসঙ্গও তোলেন তিনি৷ নাগরিকত্ব ইস্যুই অসমে বিজেপি সরকারের পতনের মূল কারণ হবে বলেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মুখ্যমন্ত্রী৷ অসম, ঝাড়খণ্ড ও ওড়িশায় প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণার পাশাপাশি আসন্ন লোকসভা নির্বাচন প্রসঙ্গও তুলে ধরেন তিনি৷ ২০১৯-এর নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার বিষয়েও বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশ প্রসঙ্গেও মুখ খোলেন মমতা৷ বলেন, ‘‘ব্রিগেড সমাবেশে ১৮-১৯টি দল অংশ নেবে বলে জানিয়েছে৷ চন্দ্রবাবু নায়ডু, কুমারস্বামী, দেবেগৌড়া, অখিলেশ যাদব, ওমর আবদুল্লা, শরদ পওয়াররা আসবেন ব্রিগেড সমাবেশে। আপনারাও প্রস্তুতি নিন৷’’ এই কাজে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতেও অনুরোধ জানান মুখ্যমন্ত্রী৷ আগামী দিনে তরুণদের হাতেই তৃণমূল পরিচালনার ভার তুলে দেওয়ারও ইচ্ছা প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

[কলেজে জেনারেটর ব্যবহারে ঝামেলা, অভিযোগ টিএমসিপির বিরুদ্ধে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে