৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল:  কাটমানির প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে অভিনব কায়দায় বিক্ষোভ দেখালেন যুব তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা। জনস্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তর অর্থ্যাৎ পিএইচই এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ারের টেবিলে জামা, প্যান্ট, ঘড়ি, আংটি খুলে ও মোবাইল জমা দিয়ে বিক্ষোভ দেখান আন্দোলনকারীরা। তাঁদের বক্তব্য কল্যাণেশ্বরী সাবস্টেশনে কাটমানি নিয়ে নিয়োগ করা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে। তাই যোগ্য শিক্ষিতদের কাছে টাকা না থাকায় তাঁরা জামা, প্যান্ট, ঘড়ি, আংটি ও মোবাইল ফোন জমা করলেন পিইচই আধিকারিকদের কাছে। এই সব দিয়ে যদি চাকরি পাওয়া যায়!

[ আরও পড়ুন: বনগাঁ পুরসভায় একতরফা আস্থাভোট! ফের আদালতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত বিজেপির ]

আসানসোল পিএইচই অফিসে যুব তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বিক্ষোভ দেখান যুবকরা। অফিসের বাইরে এসেও হাফপ্যান্ট পরে খালি গায়ে তাঁরা শ্লোগান দিতে থাকেন। বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, কল্যাণেশ্বরী ওয়াটার প্রোজেক্টে গত ৯ তারিখ ৪ জনের কাজে নিযুক্তি হয়েছে বহিরাগতরা। তাঁর অভিযোগ অষ্টম শ্রেণি উত্তীর্ণ এমন কয়েকজনকে ইলেকট্রিক বিভাগে নেওয়া হয়েছে। অথচ স্থানীয় স্কিলড আইটিআই পাশ করা ছেলেদের কাজে নেওয়া হয়নি। এমনকী স্কিলড এক স্থানীয় যুবককে নিয়োগপত্র দিয়েও কাজ দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। তৃণমূল নেতার অভিযোগ নিশ্চয় কাটমানি খেয়ে ওই আনস্কিলড ছেলেদের নেওয়া হয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের মধ্যে স্থানীয় রামকুমার মিশ্রের অভিযোগ, আইটিআই পাশের শার্টিফিকেট, রাজ্যবিদ্যুৎ পর্ষদের শার্টিফিকেট জমা করা সত্ত্বেও জয়েনিং বাতিল করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। রামকুমারের স্পষ্ট বলেন, “কনট্রাক্টর আমার কাছে পয়সা দাবি করেছিল। কিন্তু আমি দিতে পারিনি। তাই হয়তো আমায় কাজে নেওয়া হয়নি।”

[ আরও পড়ুন: বিজেপির বাড়বাড়ন্ত ঠেকাতে বীরভূমে সিপিএমকে পার্টি অফিস ফেরাল তৃণমূল ]

উল্লেখ্য গত ৯ তারিখ থেকেই স্থানীয় যুবকরা কল্যাণেশ্বরী প্রোজেক্টের বাইরে ধরনা অবস্থানে বসেছেন একই অভিযোগ নিয়ে। তৃণমূল থেকেও বিক্ষোভ দেখিয়ে ডেপুটেশন জমা দেওয়া হয়। এমনকী গত শুক্রবার বিজেপির ওবিসি মোর্চার নেতৃত্বে স্থানীয়দের নিয়োগের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়। এবার ধরনা অবস্থান মঞ্চ থেকে বিক্ষোভকারীদের যুব তৃণমূল নিয়ে আসে আসানসোলের এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ারের অফিসে। সেখানে এইভাবে ডেপুটেশন জমা দেন তাঁরা। পিএইচইর এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার আশিস নস্কর বলেন বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করা হবে। যে এজেন্সিকে কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল হবে। যাদের চাকরি দেওয়া হয়েছে তাদের চাকরি থেকে হটিয়ে দেওয়া হবে।

ছবি- মৈনাক মুখোপাধ্যায়

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং